নবীজি সা. কে ভালোবাসা ঈমান

মাওলানা ইমদাদুল হক   |   ০৩:০২, অক্টোবর ২৯, ২০১৯

নবী সা. এর সাথে উম্মাতের সম্পর্ক

মহান আল্লাহ বলেন, নবী মুমিনদের নিকট তাদের নিজেদের প্রাণ অপেক্ষা অধিক নিকটজন এবং তাঁর স্ত্রীগণ তাদের মাতা। সূরা আহযাব, আয়াত: ৬

আবু হুরাইরা রা. বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, আমি তোমাদের জন্য পিতৃতুল্য, তোমাদেরকে আমি দ্বীন শিক্ষা দিয়ে থাকি। সুনান আবু দাউদ, হাদীস-৮

উম্মাতের প্রতি তাঁর দয়া ও ভালোবাসা

আল্লাহ তাআলা বলেন, আমি আপনাকে বিশ্ববাসীর জন্যে রহমত স্বরূপই প্রেরণ করেছি। সূরা আম্বিয়া, আয়াত: ১০৭

মহান আল্লাহ আরো বলেন, তোমাদের কাছে এসেছে তোমাদের মধ্য থেকেই একজন রাসূল। তোমাদের দুঃখ-কষ্ট তাঁর পক্ষে দুঃসহ। তিনি তোমাদের মঙ্গলকামী, মুমিনদের প্রতি স্নেহশীল, দয়াময়। সূরা তাওবাহ, আয়াত: ১২৮

আল্লাহ তাআলা উম্মাতের কল্যাণে নবী সাল্লাল্লাহু আলায়হি ওয়া সাল্লামের অন্তরের পেরেশানির বর্ণনা দিয়ে বলেন, যদি তারা এই কথার প্রতি বিশ্বাস স্থাপন না করে, তবে তাদের পশ্চাতে পরিতাপ করতে করতে আপনি নিজের প্রাণই তো নিপাত করে ফেলবেন। সূরা কাহফ, আয়াত: ৬

আবদুল্লাহ ইবন মাসঊদ রা. বলেন, আমি যেন এখনো নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে দেখছি, যখন তিনি একজন নবী আ.-এর অবস্থা বর্ণনা করছিলেন যে, তাঁর স্বজাতি তাঁকে প্রহার করে রক্তাক্ত করে দিয়েছে আর তিনি নিজ চেহারা থেকে রক্ত মুছে ফেলছেন এবং বলছেন, হে আল্লাহ, আমার জাতিকে ক্ষমা করে দাও, তারা তো অবুঝ। সহীহ বুখারি, হাদীস-৩৪৭৭; সহীহ মুসলিম, হাদীস -১৭৯২; মুসনাদ আহমাদ, হাদীস-৩৬১১

অনেক মুহাদ্দিস বলেছেন, এই হাদীসে আলোচিত নবী হচ্ছেন আমাদের নবী হযরত মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলায়হি ওয়া সাল্লাম নিজে।

তাঁকে ভালোবাসা ঈমান

মহান আল্লাহ বলেন, (হে নবী, আপনি আপনার উম্মাতদেরকে) বলে দিন, আমি এসব কিছুর বিনিময়ে তোমাদের কাছে নিকটসম্পর্কজনিত ভালোবাসা ছাড়া আর কিছুই চাই না। সূরা শুরা, আয়াত: ২৩

আবু হুরাইরা রা. বলেন, আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, সেই আল্লাহর শপথ, যাঁর হাতে আমার প্রাণ, তোমাদের কেউ মুমিন হতে পারবে না, যতক্ষণ না আমি তার নিকট তার পিতা ও সন্তানাদির চেয়ে অধিক ভালোবাসার পাত্র হই। সহীহ বুখারি, হাদীস-১৪

আনাস রা. বলেন, আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, তোমাদের কেউ মুমিন হতে পারবে না, যতক্ষণ না আমি তার নিকট তার পিতা, তার সন্তান, পরিবার-পরিজন, ধন-সম্পদ ও সব মানুষের অপেক্ষা অধিক প্রিয়পাত্র হই। সহীহ বুখারি, হাদীস-১৫; মুসলিম, হাদীস-৪৪; মুসনাদ আহমাদ, হাদীস-১২৮১৪

আবদুল্লাহ ইবন হিশাম রা. বলেন, আমরা একবার নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামর সঙ্গে ছিলাম। তিনি তখন উমার ইবনুল খাত্তাব রা.-এর হাত ধরেছিলেন।

উমার রা. তাঁকে বললেন, হে আল্লাহর রাসূল, আমার প্রাণ ছাড়া আপনি আমার কাছে সব কিছুর চেয়ে অধিক প্রিয়। তখন নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন, না, যাঁর হাতে আমার প্রাণ ওই সত্তার কসম! তোমার কাছে আমি তোমার প্রাণের চেয়েও প্রিয় না হওয়া পর্যন্ত নয়। তখন উমার রা. তাঁকে বললেন, আল্লাহর কসম! এখন আপনি আমার কাছে আমার প্রাণের চেয়েও বেশি প্রিয়। নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন, হে উমার, এখন (তুমি সত্যিকার ঈমানদার হলে) (সহীহ বুখারি, হাদীস-৬৬৩২)।

নবীজি সা. কে ভালোবাসার পুরস্কার

আনাস ইবন মালিক রা. বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আমাকে বলেছেন, হে বৎস, তুমি যদি সকাল-সন্ধ্যা এমনভাবে কাটাতে পার যে, তোমার অন্তরে কারো প্রতি কোনো রকম বিদ্বেষ নেই, তাহলে তাই করো। তিনি আমাকে পুনরায় বললেন, হে বৎস, এটা হল আমার সুন্নাত। আর যে ব্যক্তি আমার সুন্নাতকে জীবিত করল, সে আমাকেই ভালোবাসল, আর যে ব্যক্তি আমাকে ভালোবাসল সে তো জান্নাতে আমার সাথেই থাকবে। সুনান তিরমিযি, হাদীস-২৬৭৮

আলী ইবন আবু তালিব রা. হতে বর্ণিত আছে, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হাসান ও হুসাইনের হাত ধরে বলেন, যে ব্যক্তি আমাকে ভালোবাসে এবং এ দু’জন ও তাঁদের পিতা-মাতাকে ভালোবাসে, সে কিয়ামাতের দিন আমার সাথে একই মর্যাদায় থাকবে। সুনান তিরমিযি, হাদীস-৩৭৩৩

লেখক: শিক্ষক দারুস সুন্নাহ মাদরাসা, আলমডাঙ্গা, চুয়াডাঙ্গা

আরআর


আরও পড়ুন

সর্বশেষ সংবাদ

সব খবর