দ. কোরিয়াতে উদ্যোক্তা সেমিনার অ্যাওয়ার্ড প্রদান

দক্ষিণ কোরিয়া প্রতিনিধি   |   ১২:২৪, নভেম্বর ০৫, ২০১৯

সফল উদ্যোক্তাদের গল্প নিয়ে দক্ষিণ কোরিয়াতে ভিন্নধর্মী ‘উদ্যোক্তা সেমিনার ও অ্যাওয়ার্ড-২০১৯ অনুষ্ঠিত হয়েছে। কোরিয়ায় সবচেয়ে জনপ্রিয় সামাজিক সংগঠন ইপিএস স্পোর্টস এন্ড ওয়েলফেয়ার অর্গানাইজেশন (ইসো) এই সেমিনারের আয়োজন করে।

কোরিয়াস্থ প্রবাসী বাংলাদেশি তরুণ ও নবীন উদ্যোক্তাদের সঙ্গে প্রাজ্ঞ উদ্যোক্তাদের জ্ঞান ও অভিজ্ঞতা বিনিময়, উদ্যোক্তার পথ চলার চ্যালেঞ্জ উত্তরণ এবং দেশে উদ্যোক্তাবান্ধব একটি পরিবেশ গড়ে তুলতে এই সেমিনারের আয়োজন করা হয়েছে।

অনুষ্ঠানে অংশগ্রহনকারীদের মধ্যে ছিলেন কোরিয়ায় অধ্যয়নরত বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র, রেমিটেন্স যোদ্ধা ইপিএসকর্মীসহ নানা পেশার ব্যক্তিবর্গ।

রোববার (৩নভেম্বর) দুপুর ১টায় বিয়ংজমে হোয়াসংশি দোংবুছুলজাংসো অডিটোরিয়ামে এই উদ্যোক্তা সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়।

প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ দূতাবাসের রাষ্ট্রদূত আবিদা ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশের একজন সফল নারী উদ্যোক্তা হেলেনা জাহাঙ্গীর, পরিচালক এফবিসিসিআই ও চেয়ারম্যান জয়যাত্রা টেলিভিশন।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন- নাজমুর রহিম (হেড অব অল্টারনেটিভ ডিলিভারি চ্যানেল) ব্র্যাক ব্যাংক, শাহরিয়ার জামিল (হেড অব রেমিটেন্স), কিম গিয়ং হুন (সিইও হানপাস রেমিটেন্স), কাউন্সিলর মোহাম্মদ মাসুদ রানা চৌধুরী প্রমুখ। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন, আয়োজক সংস্থার সভাপতি আল আমিন মৃধা। ইপিএস কর্মীদের পথ চলার অনুপ্রেরণা ও সার্বিক সহযোগিতা কারার জন্য বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতকে বিশেষ সম্মাননা প্রদান করেন (ইসো) সভাপতি।

বাংলাদেশের যে কোন ইতিবাচক বিষয়ের উপর কোরিয়ান ভাষায় লিখে বাচাইকৃত তিনজনকে দেয়া হয়েছে বিশেষ সম্মননা। তারা হলেন- মুরাদ হোসাইন, মোমিন, আশিকুর রহমান।

সফল উদ্যোক্তা হিসেবে ১৫ জনকে ইপিএস স্পোর্টস এন্ড ওয়েলফেয়ার অর্গানাইজেশন (ইসো) কর্তৃক অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়েছে।

তারা হলেন-মুক্তা আক্তার, ফরিদ খান, শাখাওয়াত হোসাইন, রফিকুল ইসলাম, লুলু জামালি, জাহাঙ্গীর হোসেইন, শামীম ইসলাম, সাইদুর রহমান, এম এন ইসলাম, ছোটন আহমেদ, রাফিদ রুবেল, জুয়েল আহাম্মেদ, সাদেকুজ্জামান, মারুফ।

আয়োজনের স্পন্সর রেমিট্যান্স পাঠানোর বিশ্বস্ত প্রতিষ্ঠান হানপাস রেমিট্যান্স। সহযোগী পৃষ্ঠপোষক হ্যাপি স্টার ট্রাভেল অ্যান্ড ফুড, গ্রিন এশিয়া রেস্টুরেন্ট অ্যান্ড মার্ট। সার্বিক সহযোগিতায় ছিলো বাংলাদেশ কমিউনিটি ইন কোরিয়া (বিসিকে)।

অনুষ্ঠানে সফল কয়েকজন ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তার সফলতার গল্প তুলে ধরা হয়। অনুষ্ঠানের শেষ পর্বে আগত অতিথিবর্গ সফল উদ্যোক্তাদের গল্পে বিমোহিত হন। তাদের মতামত ও বক্তব্য তুলে ধরেন।

তারা মনে করেন, অন্যর অধীনে কোন কাজ নয়, যা পারি নিজে করবো। অনেক শিক্ষিত ও চাকরি করা যোগ্য লোকের মাঝেও এমন চেতনা দেখা লক্ষ্য করা যায়।আর এ চেতনা ধারণ করে অভিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছানোর ব্যাপারে যারা দৃঢ়-প্রতিজ্ঞ, কেবল তারাই হতে পারেন একজন ইন্টারপ্রেনিয়ার বা সফল উদ্যোক্তা।

এমএআই


আরও পড়ুন

সর্বশেষ সংবাদ

সব খবর