এসপি হারুনের বিষয়ে যা বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   ০৩:৪৪, নভেম্বর ০৭, ২০১৯

আম্বার গ্রুপের চেয়ারম্যান শওকত আজিজ রাসেলের কাছে চাঁদা দাবি ও তার পরিবারকে তুলে নিয়ে যাওয়াসহ বিভিন্ন অভিযোগ উঠেছে নারায়ণগঞ্জ থেকে প্রত্যাহার পুলিশ সুপার (এসপি) হারুন অর রশিদের বিরুদ্ধে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) এসপি হারুনের বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল সাংবাদিকদের বলেছেন, বিভিন্ন অভিযোগের কারণে এসপি হারুনকে সরিয়ে আনা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের শিগগিরই তদন্ত শুরু হবে।’

অভিযোগ রয়েছে, এসপি হারুন চাঁদার জন্য একাধিক শিল্পপতিকে তুলে নিয়ে সাজানো মামলায় গ্রেপ্তার দেখানোর ভয় দেখিয়েছেন। সম্প্রতি তার বিরুদ্ধে আম্বার গ্রুপের চেয়ারম্যান শওকত আজিজ রাসেলের কাছে চাঁদা দাবি ও তার পরিবারকে তুলে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ ওঠে।

গেলো রোববার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক প্রজ্ঞাপনে এসপি হারুন অর রশীদকে নারায়ণগঞ্জ থেকে প্রত্যাহার করে পুলিশ সদর দপ্তরে (ট্রেনিং রিজার্ভ) সংযুক্ত করা হয়।

তবে পুলিশ সদর দপ্তর বলছে, এসপি হারুনের বিরুদ্ধে এখনো কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে তখন তদন্ত এবং বিভাগীয় শাস্তির বিষয়টি সামনে আসবে।

এদিকে অভিযোগের মুখে এসপি হারুনকে প্রত্যাহারের কথা বলা হলেও এখনও কাউকে দায়িত্ব বুঝিয়ে দেননি তিনি। নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপারের জন্য বরাদ্দ করা সরকারি গাড়ি এবং মোবাইলফোনও তিনি ব্যবহার করছেন বলে জেলা পুলিশের একাধিক কর্মকর্তা নিশ্চিত করেছেন।

১১ হাজার বিদেশি নাগরিককে ফেরত পাঠাবে সরকার
পাসপোর্টের মেয়াদ শেষ হওয়ায় আফ্রিকাসহ বিভিন্ন দেশের প্রায় ১১ হাজার নাগরিক বাংলাদেশে বসবাস করছে। তারা নানা অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

মন্ত্রী জানান, বিভিন্ন সময়ে আফ্রিকাসহ নানা দেশের নাগরিক ভিসা নিয়ে বৈধভাবে বাংলাদেশে এসেছেন। সম্প্রতি ১১ হাজার নাগরিকের তালিকা তৈরি করা হয়েছে যাদের ভিসা এবং পাসপোর্ট কোনটিরই মেয়াদ নেই। এদের কিছু সংখ্যক অপরাধে জড়িয়ে কারাগারে বন্দি রয়েছে। আবার কিছু সংখ্যক অবৈধভাবে বসবাস করছে। তাদের আবার কেউ কেউ অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে।

অবৈধ এসব বিদেশিদের পাসপোর্টের মেয়াদ শেষ হলেও তারা কখনো নিজ দেশে যাওয়ার চেষ্টা করেনি। কিছু দেশের দূতাবাস রয়েছে, সরকারের পক্ষ থেকে তাদের নাগরিকদের বিষয়ে কথা বলতে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাতে সারা পাওয়া যায়নি। তাই সরকার নিজ উদ্যোগে তাদের নিজ নিজ দেশে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এমএআই


আরও পড়ুন

সর্বশেষ সংবাদ

সব খবর