ভারতকে ১৫৪ রানের টার্গেট টাইগারদের (লাইভ)

ক্রীড়া প্রতিবেদক   |   ০৭:২৯, নভেম্বর ০৭, ২০১৯

ভারতকে ১৫৪ রানের টার্গেট দিয়েছে টাইগাররা। নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ১৫৩ রান করেছে বাংলাদেশ। সর্বোচ্চ ৩৬ রান করেছেন মোহাম্মদ নাঈম।

ভারতের পক্ষে ২ উইকেট শিকার করেছেন যুজবেন্দ্র চাহাল। এ ছাড়া দিপক চাহার, খলিল আহমদ ও ওয়াশিংটন সুন্দর ১টি করে উইকেট নিয়েছেন।

ভালো শুরুর পর হঠাৎ ছন্দপতন

শুরুটা ভালোই হয়েছিল। নাঈম-লিটনের ব্যাটে দুর্দান্ত এগুচ্ছিল টাইগাররা। তবে লিটন দাসের আউটের পর যেন সব এলোমেলো হয়ে গেল। একে একে চলে গেলেন নাঈম, মুশফিক, সৌম্য, আফিফ।

আফিফের পর ক্যাপ্টেন মাহমুদুল্লাহ বাংলাদেশকে ভরসা দেখালেও ১৮ তম ওভারের তৃতীয় বলে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান। এর আগে তিনি ২১ বলে ৩০ রান করেন।

এক ওভারেই ফিরলেন মুশফিক-সৌম্য

যুজবেন্দ্র চাহালের এক ওভারে ফিরে গেলেন বাংলাদেশের নির্ভরযোগ্য দুই ব্যাটসম্যান। ১২ তম ওভারের শুরুর বলেই সহজ ক্যাচ তুলে আউট হন মুশফিকুর রহিম। গত ম্যাচে দুর্দান্ত খেলে বাংলাদেশকে জিতিয়েছিলেন তিনি।

একই ওভারের শেষ বলে আউট হন সৌম্য সরকার। সাজঘরে ফেরার আগে ২০ বলে ৩০ রান করেন তিনি। যার মধ্যে দুটি চার ও একটি ছক্কা রয়েছে।

বাংলাদেশ ১৪ ওভার শেষে ৪ উইকেটে ১০৬ রান করেছে। এ মুহূর্তে ক্রিকে আছেন মাহমুদুল্লাহ (৫), আফিফ হোসাইন (৩)

সুন্দরে ফিরলেন নাঈম

ওয়াসিংটন সুন্দরের বলে ক্যাচ তুলে ফিরে গেলেন মোহাম্মদ নাইম। এর আগে ৩১ বলে ৩৬ রান করেন তিনি। লিটন দাসের সঙ্গে ওপেনিংয়ে দারুন শুরু এনে দিয়েছিলেন তিনি।

বাংলাদেশ ১১ ওভার শেষে ২ উইকেটে ৮৬ রান করেছে। এ মুহূর্তে ক্রিকে আছেন সৌম্য সরকার (১৮), মুশফিকুর রহিম (২)

দুইবার লাইফ পেয়েও ব্যর্থ লিটন দাস

ভালো শুরুর কিছুক্ষণ পরই যেন আলস্য এসে ভর করেছিল লিটন দাসের উপর। খেলছিলেন যাচ্ছেতাইভাবে। তাই পরপর দুইবার লাইফ পেয়েও করতে পারলেন না বড় স্কোর।

ম্যাচের ৮ তম ওভারের শুরুতে চাহালের করা বলে রান আউট হন লিটন দাস। ফেরার আগে ২১ বলে ২৯ রান করেন তিনি।

চাহালের প্রথম ওভারে জীবন পেয়েছিরেন এ ওপেনার। উইকেট থেকে অনেকটা সামনে এসে মারতে গিয়ে বল ব্যাটে ছোঁয়াতে ব্যর্থ হন। সেটা চলে যায় উইকেট কিপারের গ্লাভসে। সঙ্গে সঙ্গে উইকেট ভাঙেন তিনি। তবে রিভিওয়ে দেখা যায় স্ট্যাম্পের সামনে থেকে বল ধরেছিলেন উইকেট কিপার। তাই নট আউট দেন থার্ড আম্পায়ার।

দ্বিতীয়বার বড় শট খেলতে গিয়ে বল তুলে দেন আকাশে। সেই সহজ ক্যাচ রোহিত শর্মার হাত ফসকে বেরিয়ে যায়। দুই বার জীবন পাওয়ায় অনেকেই ভাবছিলেন বড় স্কোর করবেন আজ। তবে সেই আশার গুড়ে বালি।

লিটন-নাঈমে দারুন শুরু বাংলাদেশের

ভারতের মাটিতে ব্যাটিংয়ে রিতিমত কাপাচ্ছে বাংলাদেশের দুই ওপেনার লিটন দাস এবং মোহাম্মাদ নাঈম।

৩ ওভারে দুই ওপেনার তুলেছেন ২৫ রান। যার মধ্যে চারটি চারের মার রয়েছে।

সিরিজ জয়ের লক্ষে ব্যাট করছে বাংলাদেশ

দিল্লিতে প্রথম টি-টোয়েন্টিতে দারুণ জয়ের পর সিরিজ জয়ের লক্ষ্য নিয়ে দ্বিতীয় ম্যাচে টস হেরে ব্যাট করছে বাংলাদেশ। এই ম্যাচে ভারতকে হারাতে পারলেই হয়ে যাবে এক ইতিহাস।

রাজকোটের উইকেটকে বলা হয় ভারতীয় ক্রিকেটে সবচেয়ে ভালো ব্যাটিং উইকেটগুলোর অন্যতম। এই মাঠে এর আগে দুটি টি-টোয়েন্টি হয়েছে।

পিচ রিপোর্টে সুনীল গাভাস্কার বললেন, এই ম্যাচেও যথারীতি উইকেট ব্যাটিং স্বর্গ। তার মতে, আগে ব্যাট করা দলের অন্তত ১৭০-১৮০ রান করা উচিত। তবে বৃষ্টির কারণে আউটফিল্ড কিছুটা ভারি থাকতে পারে বলে ধারণা তার।

ভারতে টি-টোয়েন্টি সিরিজ জয়ের স্বাদ পেয়েছে কেবল ২০১৫ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা ও গত ফেব্রুয়ারিতে অস্ট্রেলিয়া। শক্তি-সামর্থ্য ও আত্মবিশ্বাসে অনেকটা পিছিয়ে থেকে সিরিজ শুরু করলেও বাংলাদেশ চমকে দিয়েছে প্রথম ম্যাচে। ভারতকে ৭ উইকেটে হারিয়ে এগিয়ে গেছে সিরিজে। দ্বিতীয় ম্যাচে তাদের সামনে হাতছানি সিরিজ জয়ের। জিততে পারলে বাংলাদেশ গড়বে নতুন ইতিহাস।

প্রথমবার ভারতে সিরিজ খেলতে এসেই জয়! ভারতে এর আগে টি-টোয়েন্টি সিরিজ জিততে পারেনি উপমহাদেশের কোনো দল। প্রথম ম্যাচে ব্যাটিং এবং বোলিং, দুই বিভাগেই দুর্দান্ত পারফর্ম করেছে বাংলাদেশ দল। ফিল্ডিংটাও ছিল মানানসই।

দলে সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল ও মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের মতো ক্রিকেটারদের অনুপস্থিতি দারুণভাবে ঘুচিয়ে দিয়েছিলেন তরুণ আমিনুল ইসলাম, আফিফ হোসেনরা। ব্যাট হাতে দায়িত্ব কাঁধে তুলে নিয়েছিলেন অভিজ্ঞ মুশফিকুর রহিম। পরিণত নেতৃত্ব দিয়েছেন ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। এসবকিছুর পুনরাবৃত্তি করতে পারলেই বাংলাদেশের জয় ঠেকানো অসম্ভব।

বাংলাদেশের একাদশ: লিটন দাস, সৌম্য সরকার, মোহাম্মদ নাঈম, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ, মোসাদ্দেক হোসেন, আফিফ হোসেন, মোস্তাফিজুর রহমান, আল আমিন হোসেন, আমিনুল ইসলাম এবং শফিউল ইসলাম।

ভারতের একাদশ: রোহিত শর্মা, শিখর ধাওয়ান, লোকেশ রাহুল, শ্রেয়াস আইয়ার, ঋশভ পন্ত, শিভাম দুবে, ক্রুনাল পান্ডিয়া, ওয়াশিংটন সুন্দর, যুজবেন্দ্র চাহাল, দীপক চাহার এবং খলিল আহমেদ।

আরআর/আরআর


আরও পড়ুন

সর্বশেষ সংবাদ

সব খবর