প্রাথমিকে ডিপ্লোমা প্রকৌশলী নিয়োগের কথা ভাবছে সরকার

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   ০৯:২৯, নভেম্বর ১২, ২০১৯

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মোঃ জাকির হোসেন বলেছেন, প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ডিপ্লোমা প্রকৌশলী নিয়োগ দেওয়ার কথা চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে, যাতে করে শিক্ষার্থীরা কারিগরি শিক্ষা গ্রহণ করে স্বাবলম্বী হতে পারে।

মঙ্গলবার (১২ নভেম্বর) প্রতিমন্ত্রী রাজধানীর কাকরাইলে আইডিইবি ভবনে বাংলাদেশ (আইডিইবি) এর ৪৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও গণপ্রকৌশল দিবস উপলক্ষে ‘লার্নিং বাই ডুয়িং হোক শিক্ষার ভিত্তি’ শীর্ষক সেমিনারে এ কথা বলেন।

প্রযুক্তিনির্ভর প্রতিযোগিতামূলক বিশ্বের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় দক্ষতা উন্নয়নের বিকল্প নেই উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, বিশ্বকর্মবাজার উপযোগী দক্ষতা উন্নয়নে আমাদের সমম্বিতভাবে কাজ করতে হবে। আমরা তাৎপর্যপূর্ণভাবে এমডিজি অর্জনে সক্ষম হয়েছি। এখন এসডিজি অর্জনে কাজ করতে হবে। এ লক্ষ্যে বর্তমান সরকার কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষাকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়ে এর বিকাশে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

জাকির হোসেন বলেন, দক্ষ মানবসম্পদ উন্নয়নের বিষয়টি মাথায় রেখে সরকার দেশের সামগ্রিক শিক্ষা ব্যবস্থায় প্রয়োগিক শিক্ষার প্রতি বেশি গুরুত্ব দিয়েছে।

তিনি বলেন, খেলার ছলে দৈনন্দিন জীবনের প্রয়োজনীয় শিক্ষা চালু করে শিক্ষার্থীদের প্রতিনিয়ত নতুন কিছু শেখার প্রতি মনোযোগী করে গড়ে তুলতে হবে। ফলে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা সকল কাজ ও শিক্ষাকে উপভোগ্য হিসেবে গ্রহণ করবে। যার মধ্য দিয়ে দেশে বৃদ্ধি পাবে জাতীয় উৎপাদশীলতা।

তিনি বলেন, শিশুদের প্রতিভা ও বুদ্ধির বিকাশ ঘটানোর লক্ষ্যে শিক্ষাকে মানসিক চাপমুক্ত করে আনন্দময় করার প্রতি সরকার গুরুত্বারোপ করেছে।

তিনি বলেন, কারিগরি শিক্ষার প্রদানের মাধ্যমে এ দেশের বিপুলসংখ্যক বেকার যুব সমাজকে আয়বর্ধক মানব সম্পদে রুপান্তর করতে হবে।

তিনি বলেন, অতিসত্তর পথশিশুদের জন্য কারিগরি শিক্ষার ব্যবস্থা করা হবে যাতে ভবিষ্যতে তারা বেকারত্বের অভিশাপ থেকে মুক্তি পায় এবং দেশের উন্নয়নের মূলস্রোত ধারায় সম্পৃক্ত হতে পারে।

তিনি আরো বলেন, হতদরিদ্র শ্রমজীবী শিশুদের জন্য প্রতিষ্ঠিত শিশু কল্যাণ ট্রাস্ট।

ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স, বাংলাদেশ (আইডিইবি) এর সভাপতি প্রকৌশলী এ কে এম এ হামিদের সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক রওনক মাহমুদ। অনুষ্ঠানে মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ড. মোঃ শাহ আলম মজুমদার।

বিএইচ/আরআর


আরও পড়ুন

সর্বশেষ সংবাদ

সব খবর