কে হচ্ছেন সাধারণ সম্পাদক

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   ০৫:১৬, নভেম্বর ২৬, ২০১৯

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের ২১তম জাতীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে আগামী মাসে। ডিসেম্বরের ২০-২১ ডিসেম্বর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আওয়ামী লীগের জাতীয় কাউন্সিল। এই কাউন্সিলকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যে দলটির অভ্যন্তরীণ রাজনীতি এখন তুঙ্গে। এ সম্মেলনে পরবর্তী তিন বছরের জন্য নতুন নেতৃত্বের হাতে তুলে দেয়া হবে দেশের প্রাচীনতম দলটির পরিচালনার ভার। কে হচ্ছেন দলের পরবর্তী সাধারণ সম্পাদক এ নিয়েই মূলত এখন বিভিন্নমুখী আলোচনা দলে।

কেন্দ্রীয় কমিটিতে ব্যাপক পরিবর্তনের আভাস মিললেও দলটির শীর্ষ পদে কোনো পরিবর্তন আসবে না। এই পদের দাবিদার হিসেবে এখনো অদ্বিতীয় বর্তমান সভাপতি শেখ হাসিনা। তার কোনো বিকল্প নেই আওয়ামী লীগে। নেতাকর্মীদের মধ্যে আস্থা আর ভালোবাসার মূর্তপ্রতীক তিনি। এবারো তিনিই দলের সভাপতি থাকছেন তা নিশ্চিত।

তিন বছর ধরে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে দায়িত্ব পালন করছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। মাঝে বড় ধরনের অসুস্থতার ধকল কাটিয়ে এখন তিনি অনেকটাই সুস্থ। আবারো তার এ পদে থাকার সম্ভাবনা রয়েছে।

তবে আওয়ামী লীগ সভাপতি তার রানিংমেট হিসেবে নতুন কাউকে বেছে নিতে চাইলে ভাগ্য পরিবর্তন হয়ে যেতে পারে অন্যদের।

এর আগে আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক প্রয়াত সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম পরপর দুই মেয়াদে এই পদে দায়িত্ব পালন করেছেন। ওবায়দুল কাদেরও এই পদে দুই মেয়াদে দায়িত্ব পেতে পারেন বলে আলোচনা হচ্ছে।

ওবায়দুল কাদের ছাড়াও আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, সাংগঠনিক সম্পাদক ও নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান, জাহাঙ্গীর কবির নানকের নামও আলোচনায় রয়েছেন।

আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক ইতিহাস বলছে, পর পর দুইবার সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করার একাধিক নজির আছে দলটিতে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান চারবার এ দায়িত্ব পালন করেন। তাজউদ্দীন আহমদ তিনবার দলের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। জিল্লুর রহমান চারবার এ দায়িত্ব পালন করেন। সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী ও আবদুর রাজ্জাক দুইবার করে ওই পদে ছিলেন।

আওয়ামী লীগের নীতি-নির্ধারণী পর্যায়ের একাধিক নেতা আমার সংবাদকে বলেছেন, সাধারণ সম্পাদক পদটির বিষয়ে আগে থেকে কোনো ধারণা করা সম্ভব হয় না। এ পদের দায়িত্ব কে পাবেন তা একান্তই দলের সভাপতি শেখ হাসিনা নির্ধারণ করবেন। তবে কেন্দ্রীয় কমিটিতে ব্যাপক পরিবর্তন আসলেও দলে শীর্ষ কোনো পরিবর্তন আসা সম্ভাবনা নেই। এই পদের দাবিদার হিসেবে এখনো অদ্বিতীয় বর্তমান সভাপতি শেখ হাসিনা।

এমএআই


আরও পড়ুন

সর্বশেষ সংবাদ

সব খবর