২ শিশুকে গাছে বেঁধে মারধর

পিরোজপুর প্রতিনিধি   |   ১১:০৪, ডিসেম্বর ০৯, ২০১৯

পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়ায় চুরির অভিযোগে দুই শিশুকে গাছের সঙ্গে বেঁধে মারধর করার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় স্থানীয় মুদি দোকানি খলিলুর রহমান ও তার ছেলে মেহেদি হাসানকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মারধরের শিকার দুই শিশুর একজনের মা থানায় মামলা করলে পুলিশ ওই বাবা ও ছেলেকে গ্রেপ্তার করে।

এর আগে শনিবার চুরির অভিযোগ তুলে গাছের সঙ্গে বেঁধে উত্তর ভিটাবাড়ীয়া গ্রামের তোফাজ্জেল হাওলাদারের ছেলে রাকিব ও একই গ্রামের রুবেল বয়াতির ছেলে হৃদয় বয়াতিকে মারধর করে। পরে স্থানীয়রা ৯ বছর ও ১১ বছরের এই দুই শিশুকে উদ্ধার করে ভাণ্ডারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। এরা দুইজনই পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র।


আহত রাকিবের মা রাশিদা বেগম জানান, তার ছেলে রাকিব ৬নং পশ্চিম ভিটাবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির এবং হৃদয় ভিটাবাড়িয়া আজাহারিয়া দাখিল মাদ্রাসার পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র।

ভাণ্ডারিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এস এম মাকসুদুর রহমান গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করে গণমাধ্যমকে জানান, তাজাম্বেল হাওলাদারের শিশু পুত্র রাকিব এবং রুবেল বয়াতির ছেলে হৃদয়কে একই এলাকার খলিলুর রহমান ও তার ছেলে মেহেদী হাসান দোকান চুরির অভিযোগে গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতন করে।

তাদের বাড়ি উপজেলার এক নং ভিটাবাড়িয়া ইউনিয়নের উত্তর ভিটাবাড়িয়া গ্রাম। আহত দুই জনকে ভাণ্ডারিয়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। রোববার খলিলুর রহমান ও মেহেদী হাসানকে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠানো হলে আদালত তাদের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠায়।

এমএআই


আরও পড়ুন