মোবাইলে প্রতিবন্ধী হতে পারে অনাগত সন্তান!

আমার সংবাদ ডেস্ক   |   ০২:০১, ডিসেম্বর ১৪, ২০১৯

সন্তান-সম্ভবা নারী মোবাইল ফোন ব্যবহার করলে এর ক্ষতিকর তরঙ্গ-বিকিরণ (রেডিয়েশন) গর্ভস্থ শিশুর মস্তিষ্কে পড়তে পারে নেতিবাচক প্রভাব। এছাড়া থাকে শিশুর অস্থিরমতি হওয়ারও ঝুঁকি।

যুক্তরাষ্ট্রের একদল গবেষক এ তথ্য জানিয়েছেন। মোবাইল ফোনের রেডিয়েশনের ক্ষতিকর দিক নিয়ে আগে অনেক গবেষণা হয়েছে। সাম্প্রতিক গবেষণার ফলাফলটিকে মনে করা হচ্ছে সবচে ভয়ঙ্কর। দ্য টেলিগ্রাফ-এ প্রকাশিত এক প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা যায়।


এছাড়া ন্যাচার সাময়িকীর বৈজ্ঞানিক গবেষণা প্রতিবেদন ভিত্তিক ওয়েবসাইট সায়েন্টিফিক রিপোর্টসেও প্রকাশিত হয়েছে এ গবেষণাটি। যুক্তরাষ্ট্রের ইয়েল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রসূতিবিদ্যা, স্ত্রীরোগ ও প্রজনণ বিজ্ঞান বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ড. হিউ টেইলর ও তার সহযোগীরা এ গবেষণা চালান।

গবেষণা শেষে সায়েন্টিফিক রিপোর্টসে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়, গর্ভবতীদের মোবাইল ফোন নিজের কাছ থেকে যতটা সম্ভব দূরে রাখা উচিত। তা না হলে গর্ভস্থ শিশুর মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে।

কারণ মোবাইল ফোনের তরঙ্গ-বিকিরণ গর্ভাবস্থায় শিশুর মস্তিষ্কের গঠনে ক্ষতিকর প্রভাব রাখতে পারে। এর ফলে প্রসব জটিলতায় পড়তে পারে গর্ভবতীরা। এমনকি মানসিক বিকলাঙ্গ হয়েও জন্ম নিতে পারে শিশু।

ড. টেইলর জানান, ইঁদুরের ওপর এ গবেষণাটি চালানো হয়। গবেষণায় দুই দল গর্ভবতী ইঁদুরের মধ্যে একটি দলের খাঁচার নীচে মোবাইল ফোন রেখে তাতে নিয়মিত কল দেওয়া হয়। অন্য দলটির খাঁচার নিচে রাখা হয় একটি বন্ধ মোবাইল ফোন।

এরপর উভয় দলে জন্ম নেওয়া বাচ্চা ইঁদুরগুলোর মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা যাচাই করার পর দেখা যায়, সক্রিয় মোবাইল তরঙ্গের মধ্যে থাকা ইঁদুরগুলোর বাচ্চাদের মধ্যে অতিরিক্ত চঞ্চলতা, উদ্বেগ ও দুর্বল স্মৃতিশক্তির লক্ষণ দেখা দিয়েছে। যা অন্য দলের ইদুরগুলোর বাচ্চাদের মধ্যে এ লক্ষণ দেখা যায়নি।

এমএআই


আরও পড়ুন

সর্বশেষ সংবাদ

সব খবর