শিরোনাম

জীবনের শ্রেষ্ঠ মুহূর্তের মুখোমুখি বেলী আফরোজ

প্রিন্ট সংস্করণ॥বিনোদন প্রতিবেদক   |  ০৭:৩৮, জুলাই ২২, ২০১৯

২০১২ সালে পাওয়ার ভয়েস প্রতিযোগিতার মাধ্যমে শিল্পী স্বীকৃতি পান বেলী আফরোজ। এরপর ২০১৫ সালে ‘বেলী’ নামে নিজের একক অ্যালবাম প্রকাশ করেন তিনি।

তারপর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি তাকে। একের পর এক জনপ্রিয় গান উপহার দিয়েছেন শ্রোতাদের।

এবার তারই স্বীকৃতি পেলেন এই কণ্ঠশিল্পী। ‘সাঁকো টেলিফিল্মের ২০১৯’-এ শ্রেষ্ঠ সঙ্গীত শিল্পীর পুরস্কারে ভূষিত হলেন বেলী আফরোজ।

গেলো বৃহস্পতিবার ‘সাঁকো টেলিফিল্ম স্টার অ্যাওয়ার্ড ২০১৯’-এ শ্রেষ্ঠ সঙ্গীত শিল্পীর পুরস্কারে ভূষিত হন বেলী আফরোজ।

বেলী সঙ্গীত জীবনের শ্রেষ্ঠত্বর এই পুরস্কার গ্রহণ করেন উপমহাদেশের প্রখ্যাত সঙ্গীতশিল্পী রুনা লায়লার কাছ থেকে। আর এটাই ছিলো বেলী আফরোজের সঙ্গীত জীবনের শ্রেষ্ঠ মুহূর্ত।

বেলী আফরোজ বলেন, ‘সঙ্গীত জীবনের এটাই আমার প্রথম স্বীকৃতি। একজন শ্রেষ্ঠ সঙ্গীতশিল্পী হিসেবে সম্মাননা পাওয়া নিশ্চয়ই অনেক আনন্দের।

তবে জীবনের প্রথম সম্মাননা শ্রদ্ধেয় রুনা লায়লা ম্যাডামের হাত থেকে নেওয়ার অনুভূতিটা আসলে ভাষায় প্রকাশের নয়। আমি সেই মুহূর্তে ভাষাহীন, অনুভূতিহীন হয়ে পড়েছিলাম।

এমন একটি মুহূর্ত আমার জীবনে এসেছে, আমার বিশ্বাসই হচ্ছিলো না। রুনা ম্যাডামের হাত থেকে সম্মাননা নেয়ার পর তার কাছে গেলাম, তাকে সালাম করলাম। তিনি আমাকে বুকে জড়িয়ে নিলেন। কী যে ভালোলাগায় বুকটা ভরে গিয়েছিলো তা সত্যিই বলে বুঝানোর মতো নয়।

সেই মুহূর্তটি আমার সঙ্গীত জীবনের চলার পথে অনেক বড় অনুপ্রেরণা হয়ে থাকবে। অবশ্যই ধন্যবাদ দিতে চাই সাঁকো টেলিফিল্ম পরিবারের সবাইকে।

কারণ তাদের জন্যই সেই মুহূর্তের সৃষ্টি। মহান আল্লাহর কাছে অসীম কৃতজ্ঞতা। সবসময়ই যিনি আমার পাশে থেকে আমাকে অনুপ্রেরণা দেন সেই মমতামীয় মায়ের প্রতি অনেক ভালোবাসা, কৃতজ্ঞতা।’

পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন রুনা লায়লা, বিশেষ অতিথি ছিলেন গাজী মাজহারুল আনোয়ার।

চলতি মাসের শুরুতে প্রথমবারের মতো লণ্ডনে গিয়েছিলেন বেলী আফরোজ। সেখানে পঞ্চাশ হাজারেরও বেশি দর্শকের সামনে গান গেয়ে সবাইকে মুগ্ধ করেছেন তিনি।

আবারো আগামী অক্টোবরে সেখানে যাবেন তিনি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত