শনিবার ০৪ এপ্রিল ২০২০

২১ চৈত্র ১৪২৬

ই-পেপার

আমার সংবাদ ডেস্ক

ফেব্রুয়ারি ১৮,২০২০, ০৭:৩৭

ফেব্রুয়ারি ১৮,২০২০, ০৭:৪১

চলতি বছরেই নতুন গ্রেডিং পদ্ধতি কার্যকর হচ্ছে

 

চলতি বছর গ্রেড পয়েন্ট অ্যাভারেজ বা জিপিএ-৫ এর পরিবর্তে জিপিএ-৪ কার্যকর করা হবে। এ লক্ষ্যে ফেব্রুয়ারিতেই নতুন গ্রেডিং পদ্ধতি বাস্তবায়ন করতে প্রজ্ঞাপন জারির কথা রয়েছে বলে জানিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্র।

ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক বলেন, নতুন গ্রেড পদ্ধতি চূড়ান্ত করা হয়েছে। চলতি বছর (২০২০ শিক্ষাবর্ষ) থেকে জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষার মাধ্যমে এটি বাস্তবায়ন করা হতে পারে। ২০২১ সাল থেকে এসএসসি-সমমান ও এইচএসসি-সমমান পরীক্ষায় জিপিএ-৪ কার্যকর করা হবে।

তিনি বলেন, গ্রেডিং পদ্ধতিতে শুধু জিপিএ-৫ এর স্থানে জিপিএ-৪ নির্ধারণ করা হয়েছে। এ ক্ষেত্রে পরীক্ষার প্রশ্নপত্রের কাঠিন্যের স্তর, মার্কিংয়ের গুণগত মান ইত্যাদি পরিবর্তন হচ্ছে না। আগের পদ্ধতিতে খাতা মূল্যায়ন ও নম্বর বণ্টন করা হবে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মাহাবুব হোসেন জাগো নিউজকে বলেন, নভেম্বরে আয়োজিত জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা থেকে নতুন পদ্ধতি কার্যকর হতে পারে। বিশ্ববিদ্যালয়ের সিজিপিএ-৪ এর সঙ্গে সমন্বয় করে নিচের স্তরের সব পাবলিক পরীক্ষার ফলাফলে জিপিএ-৪ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, সবার সম্মতিতে নতুন গ্রেডিং পদ্ধতি চূড়ান্ত করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। চলতি মাসে প্রজ্ঞাপন জারির মাধ্যমে এটি বাস্তবায়নের চেষ্টা চলছে।

নতুন গ্রেডিং পদ্ধতিতে জেএসসি-জেডিসি, এসএসসি-সমমান, এইচএসসি-সমমান পরীক্ষায় নম্বরের ভিত্তিতে সর্বোচ্চ জিপিএ-৪ করা হয়েছে।

সূত্র জানায়, ২০০১ সালে পাবলিক পরীক্ষায় গ্রেড পদ্ধতি চালু হয়। বহির্বিশ্বে জিপিএ ৫ না থাকায় এবং দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতেও সিজিপিএ ৪-এ ফল প্রকাশ করায় বিদেশে পড়াশোনা এবং চাকরির ক্ষেত্রে বাংলাদেশি ছাত্রছাত্রীদের নানা সমস্যায় পড়তে হচ্ছে। এটা নিরসনেই এ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

আমারসংবাদ/জেআই