রসায়নে ৯৮ শতাংশ ফেল: প্রতিবাদে বিভাগে তালা

নিজস্ব প্রতিবেদক  |  ১৭:৪৭, আগস্ট ২৪, ২০১৯

ঢাকা কলেজের রসায়ন বিভাগের স্নাতক ৪র্থ বর্ষের চূড়ান্ত ফলাফলে ৯৮ শতাংশ শিক্ষার্থী অকৃতকার্য হয়েছে। এই গণফেলকে অযৌক্তিক দাবি করে আজ শনিবার (২৪ আগস্ট) সকালে বিভাগটিতে তালা ঝুলিয়ে দিয়েছে সংক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা।

জানা গেছে, ঈদ পরবর্তী ছুটি শেষে আজ সকালে কলেজ খোলার পর ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা এতে তালা ঝুলিয়ে দেন। পরে কলেজ প্রশাসনের দীর্ঘ আলোচনার পর দুপুর দুইটার দিকে বিভাগটি খুলে দেয় আন্দোলনকারীরা।

তবে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে নিয়ে ফলাফল পুনঃমূল্যায়ণ করা না হলে আগামী বুধবার থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্লাস পরীক্ষা বর্জন ও বিভাগটিতে তালা ঝুলিয়ে দেয়ার হুমকিও দেয় তারা।

জানা গেছে, ২০১৩-১৪ সেশনের নিয়মিত ৬৪ জনের মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছে ২ জন এবং অনিয়মিত ৩৮ জনের মধ্যে মাত্র ৪ জন উত্তীর্ণ হয়েছে। ১০২ জনের মধ্যে মাত্র ৬ জন পাশ করেছে। সে হিসেবে ৯৮ শতাংশেরও বেশি অকৃতকার্য হয়েছে কলেজটির রসায়ন বিভাগে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক রসায়ন বিভাগের অকৃতকার্য এক শিক্ষার্থী আমার সংবাদকে বলেন, কলেজের উদাসীনতা আর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দায়িত্বহীনতার ফল আমাদের এই গণফেল। আমি এক সাবজেক্টে অনিয়মিত পরীক্ষা দিয়েছি। আবার ৪০ তম বিসিএসএ প্রিলিতে উত্তীর্ণ হয়েছি। এখন আমার এই ফল বিপর্যয়ে তো আমি বিসিএস এর লিখিত পরীক্ষা দিতে পারবো না। তাহলে আমার কী হবে?

তিনি বলেন, কলেজ প্রশাসন এসব বিষয়ে সবসময় উদাসীনতা দেখায়। তারা কার্যকর কোনো উদ্যোগ নেয় না। তাদের এই আচরণের জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সবসময় আমাদের সঙ্গে এমন ফল বিপর্যয় ঘটায়।

‘তবে শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক রফিক স্যারের আশ্বাসে আপাতত আন্দোলন স্থগিত করলেও কোন ইতিবাচক ফল পাওয়া না গেলে আগামী বুধবার থেকে লাগাতার ক্লাস পরীক্ষা বর্জন এবং বিভাগে তালা ঝুলিয়ে দেয়ার হুমকিও দেন এই শিক্ষার্থী।’

ঢাকা কলেজ শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক ড. মো. আব্দুল কুদ্দুস সিকদার বলেন, কলেজের রসায়ন বিভাগেরর অধিকাংশ শিক্ষার্থী ফেল করায় আন্দোলন করেছে। আমরা তাদের সঙ্গে কথা বলে সমাধানের আশ্বাস দিয়েছি। তারা তাদের সমস্যা নিয়ে লিখিত আবেদন জমা দিয়েছে।

আবেদন নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলার পর সমস্যার সমাধান হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন তিনি।

এমএইচ/আরআর