শিরোনাম

‘কাজী নজরুল ইসলাম হল হবে একটি মডেল হল’

শেকৃবি প্রতিনিধি   |  ০৬:১১, সেপ্টেম্বর ১০, ২০১৯

শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দিন আহমদ হল প্রভোস্টের কার্যক্রমের প্রশংসা করে বলেছেন, এভাবে উন্নয়নমূলক কার্যক্রম অব্যাহত থাকলে কবি কাজী নজরুল ইসলাম হল একটি মডেল হল হবে। এ জন্য সবাইকে সহযোগিতা করতে হবে।

সোমবার বিকাল ৪ টায় কবি কাজী নজরুল ইসলাম হল কর্তৃক আয়োজিত ‘কাজী নজরুল ইসলামের ম্যুরাল চিত্র স্থাপন, বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি, অন্তঃহল ক্রীড়া প্রতিযোগিতা’ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

উপাচার্য বলেন, কাজী নজরুল ইসলাম হল ঐতিহ্যগত দিক থেকেও এগিয়ে। এ হলের বিভিন্ন ছাত্র দেশ-বিদেশের বিভিন্ন জায়গায় কর্মরত আছে। হলকে সুন্দর করতে, হলের পরিবেশ সুশৃঙ্খল রাখতে ছাত্রদেরও ভূমিকা রাখতে হবে।

তিনি আরো বলেন, আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ে মেধাবীরা ভর্তি হয়। মেধাবীদের ভালো পরিবেশ তৈরির জন্য হলের পরিবেশ সুন্দর করতে হবে। মাদকের ছোবল থেকে শিক্ষার্থীদের দূরে রাখতে আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি। এ জন্য সবার সম্মিলিত প্রয়াস প্রয়োজন।

অনুষ্ঠানে কবি কাজী নজরুল ইসলাম হল প্রভোস্ট ড. সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. সেকেন্দার আলী, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ারুল হক বেগ, ছাত্র উপদেষ্টা ও নির্দেশনা পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. মিজানুর রহমান এবং প্রক্টর অধ্যাপক ড. ফরহাদ হোসেন।

এ ছাড়া সহকারী প্রভোস্ট ড. আনিসুর রহমানসহ হলের আবাসিক ছাত্ররা উপস্থিত ছিলেন। এ সময় হল প্রাঙ্গণে সৌন্দর্য বর্ধনে বৃক্ষরোপণ করা হয়। প্রথম হল হিসেবে ম্যুরাল চিত্র স্থাপন করা হয়। ছাত্রদের কষ্ট লাঘবে চতুর্থ তলায় সুপেয় পানির ব্যাবস্থা, ছাত্রদের মননশীল করতে ক্যারাম, টেবিল টেনিস ইত্যাদি খেলার অন্তঃহল প্রতিযোগিতা-২০১৯ উদ্বোধন করা হয়।

এ ছাড়া হলের সৌন্দর্য বৃদ্ধির লক্ষ্যে হাইলাইটার সংযুক্ত হলের নামফলক স্থাপন করা হয়েছে। হলের পড়ার পরিবেশ তৈরিতে অতি শিগগির রিডিং রুম উদ্বোধন করা হবে বলে জানান প্রভোস্ট ড. সাইফুল ইসলাম।

নজরুল হলের আবাসিক ছাত্র ও মাস্টার্সের শিক্ষার্থী মহিবুল আলম সবুজ বলেন, আমরা প্রভোস্ট স্যারের কার্যক্রমে মুগ্ধ। আশা করি এ ধরনের কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। তবে হলের খাবারের মান বাড়ানো দরকার। আশা করি এ বিষয়ে পদক্ষেপ নিবেন।

কবি কাজী নজরুল ইসলাম হলের প্রাক্তন ছাত্র ও বর্তমানে কৃষি কর্মকর্তা মনিরুজ্জামান মজুমদার বলেন, প্রথম এই হলে ম্যুরাল স্থাপনের মধ্য দিয়ে নজরুল হল পূর্ণতা পেল। আমি অত্যন্ত আনন্দিত ও গর্বিত। হলের ম্যুরাল স্থাপনে আমি সহযোগিতা করতে পেরেছি। শিক্ষকদের জন্যই আজ এতদূর আসতে পেরেছি। আমাদের সবার ভাবা দরকার আমরা ক্যাম্পাসকে কি দিতে পেরেছি। সুন্দর ক্যাম্পাস গড়তে সবাইকে সহযোগিতা করতে হবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. সেকেন্দার আলী বলেন, আমরা মাদকমুক্ত, ইভটিজিংমুক্ত, সন্ত্রাসমুক্ত ক্যাম্পাস গড়তে বদ্ধ পরিকর। আমরা একটি সুন্দর ক্যাম্পাস গড়তে চাই।

হল প্রভোস্টের উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, এই প্রথম কোন হলে ম্যুরাল স্থাপন করা হলো। হলকে পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে ছাত্রদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানের সভাপতির বক্তব্যে প্রভোস্ট ড. সাইফুল ইসলাম বলেন, আমরা একটি সুন্দর হল চাই। এজন্য ছাত্রদের সহযোগিতা করতে হবে। হলের বাহ্যিক সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে রং করাসহ আরো বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

আরআর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত