শিরোনাম

'দেশের উন্নয়নে ছাত্রসমাজকে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে'

অনিক আহমেদ, গবি  |  ১৫:০২, সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৯

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ. ক. ম. মোজাম্মেল হক বলেছেন, একটি দেশের অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক ও সামাজিক উন্নয়নে ছাত্রসমাজের ভূমিকা অনস্বীকার্য। ইতিহাস স্বাক্ষী, বাংলাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের নায্য দাবির আন্দোলনে ছাত্রসমাজের নেতৃত্বে সফলতা এসেছে।

বর্তমানে বাংলাদেশের উন্নয়নকে ব্যাহত করতে নগণ্য সংখ্যক কিছু দুষ্কৃতিকারী এখনো সক্রিয়। তাদের রুখতে এদেশের ছাত্রসমাজকে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে।

বৃহস্পতিবার (১২ সেপ্টেম্বর) সাভারের গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের পিএইচএ মিলনাতয়নে গণ বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (গাকসু) এর অভিষেক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

গাকসুর সভাপতি অধ্যাপক ডা: লায়লা পারভীন বানুর সভাপতিত্বে উক্ত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, ঢাকা-২০ (ধামরাই) আসনের সংসদ সদস্য, বীর মুক্তিযোদ্ধা জনাব বেনজীর আহমেদ।

এছাড়া উদ্বোধক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় এমপি (ঢাকা-১৯), দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী ডা: মো. এনামুর রহমান।

অনুষ্ঠানের শুরুতে উপস্থিত সকলে দাড়িয়ে জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করেন। এরপর গাকসু নেতৃবৃন্দকে শপথ পাঠ করান অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি। তাদের উদ্দেশ্যে মন্ত্রী বলেন, শপথ বাক্যের কথাগুলোকে নিজের অন্তরে গভীরভাবে ধারণ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়নে তোমাদেরকে কাজ করে যেতে হবে। ভবিষ্যতে তোমরা দেশকে এগিয়ে নিতে নিজেদের স্বকীয়তা বজায় রেখে এবং দলমতের উর্ধ্বে উঠে ভূমিকা পালন পালন করবে বলে আমি আশা করি। অন্যথায় এ জাতি পথ হারাবে, পিছিয়ে যাবে বাংলাদেশ।

গাকসুর সাধারণ সম্পাদক মো. নজরুল ইসলাম রলিফের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন গাকসুর সহ-সভাপতি (ভিপি) মো. জুয়েল রানা। বক্তব্যে তিনি দীর্ঘ সময় পর হলেও শপথ গ্রহণের মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ের সুনাম অর্জন ও শিক্ষার্থীদের সকল নায্য দাবি আদায়ে সরাসরি তাদের পাশে থেকে কাজ করার অঙ্গীকার করেন।

এছাড়া অনুষ্ঠানে উপস্থিত হওয়ার জন্য সকল অতিথিবৃন্দকে তিনি আন্তরিক ধন্যবাদ জানান এবং অনুষ্ঠানকে সফল করতে সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন।

উল্লেখ্য, দেশের প্রথম ও একমাত্র বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে গণ বিশ্ববিদ্যালয়েই রয়েছে নির্বাচিত ছাত্র সংসদ। ২০১৮ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি গাকসুর তৃতীয় কমিটির ৬ টি পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

এতে শিক্ষার্থীদের সরাসরি ভোটে দুই বছরের জন্য সহ-সভাপতি (ভিপি) হিসেবে মো. জুয়েল রানা ও সাধারণ সম্পাদক (জিএস) মো. নজরুল ইসলাম রলিফ নির্বাচিত হন।

নির্বাচিত অন্য সদস্যরা হলেন- কোষাধ্যক্ষ খাদিজা আক্তার সেতু, ক্রীড়া সম্পাদক মাহতাবুর রহমান সবুজ, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক রকিবুল হাসান শিপন এবং প্রচার ও সমাজসেবা সম্পাদক অর্জুন রাজ বংশী।

এমআর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ


সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত