শিরোনাম

গণমাধ্যমে পরিবর্তন আনবে তরুণরা

নিজস্ব প্রতিবেদক  |  ২১:০৫, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০১৯

গণমাধ্যম আজ গণমানুষের যায়গায় নেই, ব্যক্তি প্রচারের মাধ্যম হয়ে দাঁড়িয়েছে। দিনদিন গণমাধ্যমের সংখ্যা বাড়ছে কিন্তু সৎ সাংবাদিকতা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। তবে এমন হতাশা থাকলেও খুব শিগগির তরুণরা গণমাধ্যমে পরিবর্তন আনবে। কারণ তরুণরা এখন পরিবর্তনের চ্যালেঞ্জ নিয়ে এ পেশায় আসছেন।

রোববার (১৫ সেপ্টেম্বর) ঢাকা কলেজ সাংবাদিক সমিতির আয়োজনে দুইদিনব্যাপী কর্মশালার সমাপনী দিনে প্রধান অতিথির বক্তব্য এসব কথা বলেন জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি ও যুগান্তরের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক সাইফুল আলম।

তিনি আরো বলেন, এই সময় অনেক মানুষ সন্ত্রাসী হওয়ার খবর শুনি, কিন্তু আজ যারা তোমরা ঢাকা কলেজের এই প্রশিক্ষণে এসে মানুষ হিসেবে তৈরি হচ্ছো ,প্রশিক্ষণ নিচ্ছো, এটি খুবই গর্বের বিষয়। বর্তমানে প্রিন্ট, ইলেকট্রনিক্সসহ বহু গণমাধ্যম রয়েছে। সবাই যোগ্য লোক খুঁজছে। আমার দৃঢ়বিশ্বাস তোমরাই আগামীর গণমাধ্যমে গুরুত্বপূর্ণ যায়গাগুলো দখল করবে। তোমাদের হাত ধরেই উন্নত গণমাধ্যম ও সাংবাদিকতায় ঐক্যর সুর তৈরি হবে।

ঢাকা কলেজের অতীতের স্মৃতিচারণ করে তিনি আরো বলেন, এক সময় এই ক্যাম্পাসে (ঢাকা কলজে) শিল্পী আজম খানের গান শুনতাম। তখন আমার স্বপ্ন জাগতো আমিও একদিন ঢাকা কলেজের কোনো অনুষ্ঠানে এসে দাঁড়াবো। আজ ঢাকা কলেজ সাংবাদিক সমিতি আমার সেই স্বপ্নটা পূরণ করেছেন। এ জন্য আমি খুবই আবেগে আপ্লুত। ‘তুমি কি সেই আগের মতোই আছো’ এমন একটি গানের লাইনও পাঠ করেন তিনি।

তরুণ শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে সাইফুল আলম বলেন, আমি ক্যাম্পাসকে ভালোবাসি, আজকে যারা প্রশিক্ষণে এসেছে সবাইকে ভালোবাসি। গণমাধ্যমে তাদেরকে সহযোগিতার জন্য সব সময় পাশে থাকবেন বলেও আশ্বাস দেন।

ঢাকা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর নেহাল আহমেদ বলেন, ঢাকা কলেজ সাংবাদিক সমিতির সদস্যরা গণমাধ্যমের শীর্ষ পর্যায়ে ভূমিকা রাখছে। বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ তৈরিতে ঢাকা কলেজ সাংবাদিক সমিতি আরো বেশি ভূমিকা রাখবে বলে আশা প্রকাশ করেন।

ঢাকা কলেজের প্রাক্তন শিক্ষার্থী ও জাগো নিউজের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মহিউদ্দিন সরকার বলেন, ১৯ বছর আগে ঢাকা কলেজ থেকে মাস্টার্স শেষ করেছিলাম৷ আজ ১৯ বছর পর ক্যাম্পাসে এসে অনেক ভালো লাগছে৷ ঢাকার বাইরে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় বা ক্যাম্পাস সাংবাদিক সমিতি আছে যারা সাংবাদিকতায় শিক্ষার্থীদের তেমন উদ্ভুদ্ধ করতে চায় না৷ সাংবাদিক সমিতির সদস্য পদে চায় না৷ তবে ঢাকা কলেজ সাংবাদিক সমিতি এমন ব্যতিক্রমী আয়োজন করায় ধন্যবাদ জানান তিনি৷

সাংবাদিক সমিতির সভাপতি মাহমুদুল হাসানের সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক বিল্লাল হোসেন সাগরের সঞ্চালনায় দুইদিনের কর্মশালায় প্রশিক্ষণ দেন চ্যানেল আইয়ের বিশেষ প্রতিনিধি মোস্তফা মল্লিক, যমুনা টেলিভিশনের বিশেষ প্রতিনিধি মহসীন-উল হাকিম, চ্যানেল ২৪ এর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক মাকসুদ-উন নবী, স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক তপন মাহমুদসহ দেশের বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সিনিয়র সাংবাদিকরা।

কর্মশালায় আরো বক্তব্য দেন জেষ্ঠ্য সাংবাদিক মোজাম্মেল হক, মহিউদ্দিন সরকার ও স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি সাইফুল ইসলাম মাছুম প্রমুখ৷ এছাড়াও দুই দিনের কর্মশালায় সাংবাদিক সমিতির বর্তমান ও সাবেক সদস্যগণ উপস্থিত ছিলেন।

সমিতির সভাপতি মাহমুদুল হাসান বলেন, গতবার আমরা কর্মশালা কিছুটা ছোট আকারে করেছি। তবে শিক্ষার্থীদের সাংবাদিকতায় আগ্রহের কথা বিবেচনা করে এবার আরো বড় পরিসরে করার চেষ্টা করেছি। আশা রাখছি এখান থেকে অনেক বড় সাংবাদিক উঠে এসে তারা দেশের কল্যাণে কাজ করবে।

ঢাকা কলেজ সাংবাদিক সমিতি আগামীতেও এ ধরনের কর্মশালার আয়োজন অব্যাহত রাখবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যাক্ত করেন।

ঢাকা কলেজ সাংবাদিক সমিতি ঢাকা কলেজসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের তিনশ শিক্ষার্থী নিয়ে শনি ও রোববার দুইদিন ব্যাপী সাংবাদিকতায় প্রশিক্ষণ কর্মশালার আয়োজন করে৷ কর্মশালায় অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের সনদ প্রদান করা হয়।

আরআর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ


সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত