শিরোনাম

উপাচার্যের নেতৃত্বে হল পরিদর্শনে চবি প্রশাসন

চবি প্রতিনিধি   |  ০২:২৫, অক্টোবর ১২, ২০১৯

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) আবাসিক হলসমূহে শিক্ষার্থীদের সার্বিক অবস্থা জানতে হল পরিদর্শন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

উপাচার্য (রুটিন দায়িত্বপ্রাপ্ত) প্রফেসর ড.শিরীণ আখতার এর নেতৃত্বে শনিবার (১২অক্টোবর) বিকাল সাড়ে চারটায় প্রীতিলতা হল থেকে শুরু করে সন্ধা সাড়ে ছয়টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের শামসুন্নাহার, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া এবং শহীদ আব্দুর রব চারটি হল পরিদর্শন করা হয়।

খালেদা জিয়া হলের পরিদর্শন শেষে প্রক্টরিয়াল বডি সাংবাদিকদের বলেন আজকের মত পরিদর্শন শেষ। পরে সাংবাদিকরা চলে গেলে মিডিয়ার অনুপস্থিতিতে সোহরাওয়ার্দী ও শাহজালাল হল পরিদর্শন করা হয়।

হল পরিদর্শনের পূর্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের রুটিন দায়িত্বপ্রাপ্ত উপাচার্য বলেন, এটি হল অভিযান নয়, এটি হচ্ছে পরিদর্শন। আমরা আমাদের ছেলে-মেয়েদের দেখতে এসেছি। তারা কেমন নিরাপদে আছে তা জানতে এসেছি। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশের অংশ হিসেবে এ পরিদর্শন। আমাদের শিক্ষার্থীরা কীভাবে থাকছে এবং সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা কতটুকু সেসব দেখতেই আমরা বের হয়েছি।

এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার, হলসমূহের প্রাধ্যক্ষ, প্রক্টরিয়াল বডির সদস্য, হলের আবাসিক শিক্ষক এবং নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

হল পরিদর্শন শেষে চট্টগ্রাম রুটিন দায়িত্বপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার বলেন, 'শিক্ষার্থীরা খুব ভাল আছে। এখানে খারাপ কিছু নাই। টর্চার সেলেরও কোনো অস্তিত্ব নেই এখানে। হলগুলো পরিদর্শনের কারণে সব জায়গায় গুণগত পরিবর্তন আসবে।'

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী হলগুলোতে প্রতিক্রিয়াশীল গোষ্ঠীর কোনো তৎপরতা নাই। এখানে প্রতিক্রিয়াশীল কেউ নাই। বুয়েটের মতো আমাদের এখানে কোন ঘটনা ঘটেনি।

তারপরও ভবিষ্যতে যাতে এমন ঘটনা না ঘটে সেজন্য আমরা শিক্ষার্থীদের দেখতে এসেছি। বুয়েটের ঘটনার পর আমরা প্রভোস্টবৃন্দ ও প্রক্টরিয়াল বডি, সিনিয়র শিক্ষকবৃন্দ ও আবাসিক শিক্ষকরাসহ বসে আমরা শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার জন্য হল পরিদর্শন করা সিদ্ধান্ত নিই।

তিনি আরও বলেন, সামনে আমাদের ভর্তি পরিক্ষা আমরা সেটা নিয়ে ব্যাস্ত। ভর্তি পরিক্ষার পর কারা হলে অবৈধভাবে থাকতেছে এবং অন্যান্য বিষয় নিয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

পরিদর্শন শেষে বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর (ভারপ্রাপ্ত) রেজাউল করিম বলেন, আমরা চারটি হল পরিদর্শন করেছি। কিছু অভিযোগ পেয়েছি। ভর্তি পরীক্ষার পরে সেগুলো সমাধানের চেষ্টা করবো। বাকি হলগুলোও পরিদর্শন করা হবে।

এমআর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত