শিরোনাম

আবরার হত্যার বিচার চেয়ে রাস্তায় নটরডেমের শিক্ষার্থীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক   |  ০৯:২৩, অক্টোবর ১৪, ২০১৯

গেলো ৬ অক্টোবর রাতে ছাত্রলীগ নেতাদের নির্যাতনে বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ মৃত্যুর ঘটনায় দোষীদের বিচার চেয়ে রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ করেছেন নটরডেম স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থীরা।

সোমবার (১৪ অক্টোবর) দুপুর ১টার দিকে শিক্ষার্থীরা প্রথমে শাপলা চত্বর এলাকায় অবস্থান নিয়ে রাস্তায় বসে তারা উই ওয়ান্ট জাস্টিসসহ বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকেন। তাদের অবস্থানের কারণে রাস্তায় যানচলাচল বন্ধ হয়ে পড়ে। পরে পুলিশ এসে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীদের বুঝিয়ে রাস্তা থেকে সরিয়ে দেয়।রাস্তা ছেড়ে দেয়ার পর ছাত্ররা কলেজ গেটে জড়ো হয়ে আবার বিক্ষোভ শুরু করেন।

সেখানে উপস্থিত হন নটর ডেম কলেজের রসায়ন বিভাগের শিক্ষক সঞ্জিত কুমার ‍গুহ। ছাত্রদের দাবির বিষয়ে সঞ্জিত কুমার গুহ গণমাধ্যমকে বলেন, ছাত্রদের দাবির সঙ্গে আমরা একমত। আমরা দোষীদের সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করছি।

নটর ডেম কলেজের প্রশাসনিক কর্মকর্তা ব্রায়ন রোজারিও বলেন, আবরার ফাহাদ নটরডেম কলেজের প্রাক্তন ছাত্র। এই অনুভূতির জায়গা থেকে শিক্ষার্থীরা হয়ত রাস্তায় নেমেছে। বুয়েটে যে ঘটনা ঘটেছে তাতে আমরা মর্মাহত, আমরাও এর বিচার দাবি করছি।

৭ অক্টোবর সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের শেরে বাংলা হলের সিঁড়ি থেকে তড়িৎ কৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র আবরার ফাহাদের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র আবরারকে ৬ অক্টোবর সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে তার ১০১১ নম্বর কক্ষ থেকে ডেকে নিয়ে যায় কয়েকজন। পরে শিক্ষার্থীরা রাত ২টার দিকে হলের দ্বিতীয়তলার সিঁড়িতে তার লাশ পায়।

গত ৫ অক্টোবর ফেইসবুকে দেওয়া সর্বশেষ পোস্টে তিনি ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে সাম্প্রতিক কয়েকটি চুক্তির সমলোচনা করেন। এর আগেও ফেইসবুকে তার বিভিন্ন পোস্টের কারণেই তাকে শিবির বলে সন্দেহ করা হয় এবং সে কারণেই তাকে ২০১১ নম্বর কক্ষে ডেকে নিয়ে ‘জিজ্ঞাসাবাদ’ করা হয় বলে ছাত্রলীগ সংশ্লিষ্টদের ভাষ্য।

অবসরপ্রাপ্ত ব্র্যাককর্মী বরকত উল্লাহ-রোকেয়া দম্পতির বড় ছেলে আবরার ২০১৫ সালে কুষ্টিয়া জেলা স্কুল থেকে এসএসসি এবং ২০১৭ সালে ঢাকা নটরডেম কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন। ২০১৭-২০১৮ শিক্ষাবর্ষে তিনি বুয়েটের তড়িৎ কৌশল বিভাগে ভর্তি হন।

এমএআই

 

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত