শিরোনাম

ভণ্ড নয়ন বন্ড একজন ‘এন্টিভাইটিক’

প্রিন্ট সংস্করণ   |  ০৪:৫৩, জুলাই ০৪, ২০১৯

পুরো জাতিকে বাঁচিয়ে গেলো এক ভণ্ড বন্ড! মনের রোগ, সমাজের রোগ,পরিবারে রোগ! ছোঁয়াছে এক ভাইরাসে বিপর্যস্ত ছিলো পুরো রাষ্ট্র! বিশেষজ্ঞ মনোবিজ্ঞানীরা দীর্ঘদিন ধরে সমাজ নিরাময়ের জন্য বিশেষ এন্টিভাইটিক আবিষ্কারের অক্লান্ত পরিশ্রমেও পাচ্ছিলেন না সূর্যের দেখা।

দিনের আলোতেও ছিলো মেঘছায়া। অবশেষে যেন স্বয়ং ঈশ্বরের আশীর্বাদ হয়ে মুখ দেখালো একজন নয়ন বন্ড! তার ভণ্ডামির চক্ষু দর্শনে পাওয়া গেল চিকিৎসা। এক ফাইলে মিলে যাচ্ছে ঘরে-বাইরে আলোর দেখা। ‘ভণ্ড বন্ডের এন্টিভাইটিক সমাধান’ নিয়ে লিখেছেন আবদুর রহিম

ভণ্ড বন্ড একজন এন্টিভাইটিক
পুরো জাতিকে বাঁচিয়ে গেলো এক ভণ্ড বন্ড! মনের রোগ, সমাজের রোগ,পরিবারে রোগ! ছোয়াছে এক ভাইরাসে বিপর্যস্ত ছিলো পুরো রাষ্ট্র! বিশেষজ্ঞ মনোবিজ্ঞানিরা দীর্ঘদিন ধরে সমাজ নিরাময়ের জন্য বিশেষ এন্টিভাইটিক আবিস্কারের অক্লান্ত পরিশ্রমেও পাচ্ছিলেন না সূর্যের দেখা।

দিন আলোতেও ছিলো মেঘছায়া। অবশেষে যেন স্বয়ং ঈশ্বরের আশীর্বাদ হয়ে মুখ দেখালো একজন নয়ন বন্ড! তাঁর ভণ্ডামির চক্ষু দর্শনে পাওয়া গেল চিকিৎসা। এক ফাইলে মিলে যাচ্ছে ঘরে বাইরে আলোর দেখা। ভণ্ড বন্ডের এন্টিভাইটিক সমাধান নিয়ে লিখেছেন আবদুর রহিম
আই লাভ ইউতে সতর্ক!

ছেলেরা এখন আর নাকি মেয়েদেরকে আই লাভ ইউ বলছেন না। বলছেন, তোমার কি কোনো বন্ড আছে? আছে বললে ছেলেরা স্বাভাবিক ভাবে হেঁটে চলে যাচ্ছেন। আর ছিল বললে তারা দৌড়ে পালাচ্ছেন। এ নিয়ে প্রেমিকা কল্যাণ সমিতি খুব উদ্বিগ্নতা প্রকাশ করেছেন। এর সমাধান না হলে আমরণ অনশন করবেন বলেও তারা হুমকি দিচ্ছেন।

মাথায় হেলমেট হাতে ঢাল!
মফিজের প্রেমিকা খুব উদ্বিগ্ন। কারণ বন্ডের খবরের পর থেকেই মফিজ আর তার সাথে দেখা করছেন না। ফেসবুক, ইমো, হোয়াটস অ্যাপ কিংবা অফলাইন সব মাধ্যম থেকেই ব্লক করে রেখেছেন প্রেমিকাকে! মফিজ বাসা থেকেও বের হচ্ছেন না।

এদিক সেদিক তাকিয়ে বের হলেও মাথায় হেলমেট আর হাতে ঢাল থাকছে তার। মফিজ জানান, তার প্রেমিকার প্রাক্তন একজন ছিলেন। বন্ডের ঘটনার পর তিনি খুব আতঙ্কিত। বলেন, আমি প্রেমিকা ছাড়তে রাজি, তয় জীবনডা না। আমারে বাঁচান।

পার্কে পার্কে হূষ্টপুষ্টতা!
স্কুল-কলেজে পড়ুয়া জোড়া পাখিদের পার্ক দখলে বিব্রত ছিলো রাষ্ট্র! মাঝে মধ্যে অভিযান চালিয়েও তাদের উৎখাত করা সম্ভব হচ্ছিলো না। অবশেষে মেঘ না চাইতেই বৃষ্টি হয়ে আসলো এক ভণ্ড বন্ড। সব আবর্জনা ধুঁয়ে মুছে নিয়ে গেল!

খবর হলো এমন...এখন আর জোড়া পাখিদের কেউ পার্কে এসে অযথা সময় নষ্ট করছেন না। এই শহরে রক্ত বৃষ্টির শঙ্কায় সবাই নাকি নিরাপত্তার ছায়ায় আশ্রয় নিচ্ছেন। আর এই মহান সুযোগে শিশুদের পার্ক শিশুরাই দখলে রাখছেন। পার্কের এতদিনের আর্তনাদ সবুজে ফিরছে।

সঞ্চয় বেড়ে যাচ্ছে
প্রাপ্ত বয়স্ক যুবক যুবতিদের মাঝে গত এক সপ্তাহে এক সমীকরণে দেখা গেছে হঠাৎ করে সঞ্চয়ের প্রবণতা দেখা দিয়েছে। কেউ আর অপচয় করছেন না। মোবাইলে লোড কিংবা এমবি কিনে অতিরিক্ত টাকা নষ্ট করছেন না।

অতিরঞ্জিত গিফটের সংখ্যাও কমেছে। নামি দামি রেস্টুরেন্টে পকেট হামলার শিকারও হতে হচ্ছ না। সবাই এখন হিসাবের খাতা মজবুতিকরণে ব্যস্ত। গবেষণা সংস্থাটির দাবি এটি শুধু মাত্র একজন বন্ডের কারণেই সম্ভব হয়েছে।

ছোঁয়া থেকে বাঁচার লড়াই
নরম ছোয়া অনেককেই কাছে টানছে না আর! ভণ্ড প্রেমিকারা বন্ডের ঘটনার পর যার তার সাথে লাইন মারছেন না। লাইন মারার আগে প্রেমিকার সম্পর্কে ভাল করে জেনে নিচ্ছেন। একজন ভণ্ড প্রেমিক জানান, তিনি এখন প্রেম সংকটে ভুগছেন। প্রেমের অভাবে তার প্রেমিক মন এখন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে। প্রাক্তন প্রেমিকাদের হাত থেকে বাঁচতে তিনি এখন বাসা ছেড়ে সুন্দরবনের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছেন।

ফাস্টফুডের ব্যবসায় ভাটা
গত এক সপ্তাহে ফাস্টফুডের ব্যবসায় চরম ধস নেমেছে বলে গণমাধ্যমে খবর এসেছে। চিকিৎসকরা দীর্ঘদিন ধরে স্বাস্থ্য সচেতনতায় ফাস্টফুড বর্জনের অনুরুধ করলেও কেউ এতদিন কানে দেয়নি। হঠাৎ বন্ডের ঘটনায় এখন আর কেউ ফাস্টফুডের দোকানে আসছে না। ওসুস্থ প্রেমিক প্রেমিকারা সুস্থতার পথে বলে চিকিৎসকদের। যদিও একটু ধসে আছে ব্যবসায়ীরা।

মফিজ বাবাদের শক্তসুর
মাস গেলো বছর গেলো তবুও সন্তানদের সুন্দরে ফেরাতে পারেননি মফিজের বাবারা। কারন এতদিন কোনো শক্ত সুর ছিলো না। অবশেষে “ভণ্ড বন্ড” সব বাবাদের এনে দিলো শক্ত সুর। এখন বাবাদের অনুগত সব সন্তানেরা...

বিয়ের আগে তথ্য সংগ্রহ
নয়ন বন্ডের আবির্ভাবের পর যারা নতুন বিয়ে করবেন বলে ভেবেছেন বা পাত্র দেখছেন তারা আছেন এক প্রকার আতঙ্কে। না জানি হবু বউয়ের সাবেক প্রেমিক আবার কোপা সামছু হয়! কারণ নয়ন বন্ডের মতো সাবেক দু-চারটা প্রেমিক থাকলে বিয়ের পর আর নিস্তার নাই যে!

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত