শিরোনাম

‘বঙ্গবন্ধু হত্যায় জড়িতদের শনাক্তে কমিশন গঠনের সিদ্ধান্ত’

নিজস্ব প্রতিবেদক  |  ১৭:২২, সেপ্টেম্বর ০৩, ২০১৯

আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক বলেছেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের খুনের নেপথ্যে যারা জড়িত ছিল, তাদের চিহ্নিত করতে একটি কমিশন গঠনের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। কমিশনে কারা থাকবেন, কার্যপরিধি কী হবে সেটা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মন্ত্রিপরিষদে এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবেন।

মঙ্গলবার (০৩ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ১৪ দল আয়োজিত বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলায় দণ্ডিত পালাতক খুনিদের দেশে ফিয়ে আনার পদক্ষেপ শীর্ষক এ মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, এই কমিশনের কাজ হবে ৭৫ এর ১৫ আগস্টের নেপথ্যে কারা জড়িত ছিল, তাদের খুঁজে বের করা। খুনিদের ফিরিয়ে আনা বা অন্য বিষয়ের সঙ্গে এই কমিশনকে যুক্ত করতে চাই না। এছাড়া বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার পদক্ষেপ নেয়া হবে।

মন্ত্রী বলেন, কানাডার আইনে মৃত্যুদণ্ড নেই। যদি কোনো দেশের কোনো মুত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি সেখানে গিয়ে আশ্রয় নেয়, তাহলে তারা তাকে রেখে দেয়। তবে নুর চৌধুরীকে রাজনৈতিক আশ্রয় দেয়নি কানাডা। আমরা তাকে ফিরিয়ে আনার জন্য দেশটির সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করছি।আইনি এবং কূটনৈতিক তৎপরতার মাধ্যমে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করছি। একটু সময় হয়তো লাগবে, তবে কানাডা সরকার তাকে ফেরত দেবে।

রাশেদ চৌধুরীকে ফিরিয়ে আনার ব্যপারে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আলোচনা চলছে। তাকে ফিরিয়ে দেয়ার ব্যাপারে আগের চেয়ে যুক্তরাষ্ট্রের আগ্রহ বেড়েছে। অন্য ৪ জন যাদের খবর পাওয়া যাচ্ছে না, আমরা কিন্তু তাদের খুঁজে বের করার ব্যাপারে সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। চেষ্টার কোনো ত্রুটি নেই। অনেক কথা এখন বলা যাবে না। তবে আমাদের কাজ যেভাবে চলছে আমরা তাদের খুঁজে বের করে ফিরিয়ে আনতে সফল হবো।

মতবিনিময় সভায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, বঙ্গবন্ধুর খুনি নুর চৌধুরী কানাডায় এবং রাশেদ চৌধুরী যুক্তরাষ্ট্রে আছেন। আমি যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কথা বলেছি। রাশেদ চৌধুরীকে ফিরিয়ে আনার ব্যাপারে তাদের সাহায্য চেয়েছি। তারা আমাকে বলেছে ওকি ওই নামে আছেন নাকি ডেভিড নামে আছেন। নুর চৌধুরী কানাডায় আছেন।

আমি কানাডার পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে বলেছি কোর্ট তো তাকে রাজনৈতিক আশ্রয় দেননি, তাকে ফিরিয়ে দিন। তিনি বলেছেন, আলাপ-আলোচনা চালিয়ে যান। আমাদের প্রধানমন্ত্রী এ ব্যাপারে চিঠি দিয়েছেন। আশা করি নুর চৌধুরীকে ফিরিয়ে আনতে পারবো।

বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সম্পত্তি ব্যবহার করে তাদের উত্তরাধিকাররা সরকারের বিরুদ্ধে চক্রান্ত-ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে বলে দাবি করে ১৪ দলের মুখপাত্র ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মোহাম্মদ নাসিম বলেন, খুনিদের উত্তরাধিকাররা আজ দেশে বিদেশে শেখ হাসিনা সরকারের বিরুদ্ধে চক্রান্ত-ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে।
এজন্য খুনির সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার ব্যবস্থা নিতে হবে।

তিনি বলেন, জিয়াউর রহমানসহ যাদের বিচার করা সম্ভব হয়নি তাদের চিহ্নিত করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে দ্রুত সময়ের মধ্যে একটি কমিশন গঠন করতে হবে। কমিশন গঠনের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর খুনিদের মুখোশ জাতির সামনে উন্মোচন করতে হবে।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিমের সঞ্চালনায় সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন,জাসদের সভাপতি হাসানুল হক ইনু, সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া, বাংলাদেশ জাসদের কার্যকরী সভাপতি মঈনুদ্দিন খান বাদল, সাংবাদিক নেতা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, সাংবাদিক আব্দুল কাউয়ুম মুকুল, আওয়ামী লীগ নেতা মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, মাহে আলম মুরাদ প্রমুখ।

আরআই/এমএআই

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ


সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত