শিরোনাম

গানই তার আরাধনা...

প্রিন্ট সংস্করণ॥বিনোদন প্রতিবেদক  |  ০১:১৬, আগস্ট ১৮, ২০১৯

এই সময়ে যারা সঙ্গীতকে পেশা হিসেবে নিয়ে এগিয়ে যান তাদের কারো কারো ক্ষেত্রে এমন শোনা যায় যে, গানেই তাদের চর্চা কম থাকে। চর্চার চেয়ে স্টেজ শো, টিভি শো এবং নতুন নতুন গান প্রকাশ নিয়েই বেশি ব্যস্ত থাকেন।

কিন্তু সঙ্গীতশিল্পী কাজী সোমার ক্ষেত্রে বিষয়টি আলাদা। তিনি একজন পেশাদার সঙ্গীতশিল্পী। গানই তার সাধনা, গানই তার আরাধনা।

যে কারণে প্রতিদিন নিয়ম করে কম করে হলেও ত্রিশ মিনিট গানের রেওয়াজ করেন তিনি। কারণ সোমা জানেন চর্চা ছাড়া কণ্ঠে সুরের খেলার স্থায়ীত্বটা দীর্ঘদিনের হয় না।

নতুন নতুন গান নাইবা প্রকাশ হোক, কিন্তু তিনি আজীবন ভালোভাবে গানটা গেয়ে যেতে চান। আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন সঙ্গীতশিল্পী রুনা লায়লার গানের প্রতি ভীষণ ভালোলাগা থেকেই গানের ভুবনে কাজী সোমার পদচারণা।

এমন একজন শিল্পীর প্রতি ভালোবাসা থেকেই আজ নিজের জগতটাকে তিনি সাজিয়েছেন গানে গানে। তাই জীবনের পথচলায় গানটাই যেন তার বেঁচে থাকার বড় সম্বল।

সম্প্রতি কমিটম্যান্ট কালচারাল একাডেমি আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে কাজী সোমার হাতে ‘পারসোনালিটি এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড’ তুলে দেয়া হয়। এদিকে আজ সোমার জন্মদিন। দিনটি একেবারেই নিজের মতো করে কাটাবেন তিনি।

স্টেজ শোতে কাজী সোমা নিয়মিত গান করছেন ২০০৭ সাল থেকে। ছোটবেলা থেকেই ক্ল্যাসিক্যাল ঘরানার সঙ্গীতের সাথে তার এগিয়ে চলা। ২০০৫ সাল থেকে ওস্তাদ সঞ্জীব দের কাছে উচ্চাঙ্গ সঙ্গীতে তালিম নিচ্ছেন নিয়মিত।

স্টেজ শো আর উচ্চাঙ্গ সঙ্গীতে নিজেকে অধ্যবসায়ে ব্যস্ত রেখে নিজেকে একজন যথাযথ সঙ্গীতশিল্পীতে পরিণত করেছেন কাজী সোমা। বিগত একযুগেরও বেশি সময় ধরে উচ্চাঙ্গ সঙ্গীতে নিয়মিত তালিম নিয়েই নিজেকে পরিণত করেছেন একজন শুদ্ধ সুরের সঙ্গীতশিল্পীতে।

আজ কাজী সোমার জন্মদিন। পরিবারের সঙ্গেই জন্মদিন কাটবে তার একান্তে। গান গাওয়া প্রসঙ্গে কাজী সোমা বলেন,‘ গান শুনে যেমন শান্তি পাই ঠিক তেমনি গান গেয়েও শান্তি পাই। একজন সঙ্গীতশিল্পী হিসেবে পরিচয় দিতে সবসময়ই আমি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি।’

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুরের মেয়ে কাজী সোমার একমাত্র সন্তান ফারহান রেজা স্বপ্ন। একমাত্র ছেলেই তার সুখের পৃথিবী। সোমার বাবা মরহুম কাজী আতাউর রহমান এবং মা হাসনা বেগম।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ


সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত