শিরোনাম

প্রকল্পে দুর্নীতি হলে দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থার নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক  |  ১৭:৫৪, আগস্ট ২০, ২০১৯

উন্নয়ন প্রকল্পে দুর্নীতি হলে দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মঙ্গলবার (২০ আগস্ট) ‘মেঘনা নদীর ভাঙ্গন হতে ভোলা জেলার চরফ্যাশন পৌর শহর সংরক্ষণ’ প্রকল্পের সংশোধনী প্রস্তাব অনুমোদন দিতে গিয়ে এ কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। এ প্রকল্পের মোট ব্যয় ২৭৭ কোটি ৯৮ লাখ টাকা।

এ প্রকল্পের এক কর্মকর্তা গাফিলতি করেছিলেন উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, প্রকল্পের ভুল অ্যাসেসমেন্টের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাকে শাস্তির আওতায় আনতে হবে। সড়ক নির্মাণের সময় খেয়াল রাখতে হবে যাতে, বর্ষার সময় পানির প্রবাহ আটকে না থাকে।

এ প্রকল্পে যাকে প্রকৌশলী নিয়োগ করা হয়েছে, তিনি সেখানকারই আরেকটি প্রকল্পের প্রকৌশলী ছিলেন। তার গাফিলতির কারণে সরকারকে প্রচুর অর্থ গচ্চা দিতে হয়েছিল। যার কারণে সরকারের ক্ষতি হয়েছিল। তাহলে তার তখনকার ভুলের জন্য কি শাস্তি দেয়া হয়েছে? সেই প্রকৌশলী কীভাবে আবার চরফ্যাশন পৌর শহর সংরক্ষণ প্রকল্পের পরিচালক হলেন, তাতে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন একনেক চেয়ারপারসন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এ সময় পানিসম্পদমন্ত্রী এবং সচিব কোনো সদুত্তর দিতে না পারলে প্রধানমন্ত্রী শাস্তি নিশ্চিত করার কথা বলেন। এ পরিপ্রেক্ষিতে মন্ত্রী ও সচিব বলেন, ‘একনেক থেকে ফিরে গিয়েই তারা ওই ইঞ্জিনিয়ারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে আইনী ও বিধিবিধানগত ব্যবস্থা শুরু করবেন।’

একনেক বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার বিষয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, সবজি রফতানি বেড়ে যাওয়ায় বাংলাদেশ বিমানকে দুটি কার্গো বিমান কেনার বিষয়ে চিন্তা করতে বলেছেন। কারণ, কৃষিপণ্য রফতানি বেড়েছে। অন্য বিমানে বেশি ভাড়া নিয়ে পাঠাতে হচ্ছে বলে অনেক টাকা খরচ হচ্ছে। দুটি কার্গো বিমান কিনলে অনেক কম খরচেই রফতানি করা যাবে। এছাড়া নভেম্বর মাসে আরও একটি ড্রিমলাইনার বিমান আসছে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা পর্যায়ক্রমে সব বৈদ্যুতিক লাইন মাটির নিচ দিয়ে নিব। এর কাজ চলছে। এটা আজকের সভায় প্রধানমন্ত্রী আবার বলেছেন। মানে সিরিয়াস।'

একনেক সভা শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান জানান, ২০১৯-২০ অর্থবছরে প্রথম মাসে এডিপি বাস্তবায়নের হার ১ দশমিক ৮৪ শতাংশ যা গত বছরের (২০১৮-২০১৯) একই সময়ের তুলনায় শুন্য দশমিক ৫৭ শতাংশ।

সভায় ৩ হাজার ৪শ ৭০ কোটি ২০ লাখ টাকা ব্যয়ে ১২ টি নতুন ও সংশোধিত প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি একনেক।

এর মধ্যে সরকারি তহবিল থেকে ৩ হাজার ১শ ৬৩ কোটি ৫০ লাখ এবং বৈদেশিক সহায়তা থেকে ৩শ ৬ কোটি ৭০ লাখ টাকা ব্যয় করা হবে।

১২ টি প্রকল্পের মধ্যে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রলালয়ের ৩টি প্রকল্প, পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের ৩ টি প্রকল্প রয়েছে।

এমএআই

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ


সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত