শিরোনাম

পুলিশ-বিজেপি সংঘর্ষে রণক্ষেত্র কলকাতা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক   |  ০৯:৪৫, জুন ১২, ২০১৯

রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি অবনতির অভিযোগ তুলে কলকাতায় বিক্ষোভ মিছিলে নেমেছে বিজেপি। মিছিল ঘিরে পরিস্থিতি রণক্ষেত্রের চেহারা নিয়েছে।

বুধবার (১২ জুন) কলকাতা পুলিশ সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউতে বিজেপিকর্মীদের মিছিল আটকালে পাল্টা ইট ছোঁড়ে বিজেপি কর্মীরা। এসময় পুলিশ বিক্ষোভকারীদের লাঠিচার্জ ও জলকামান দিয়ে পেছনে ধাওয়া করার চেষ্টা করে।

পুলিশি আচরণের প্রতিবাদে রাস্তাতেই বসে পড়েন বিজেপি কর্মীরা। বিজেপি এবং পুলিশের সংঘর্ষে গোটা সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউ অচল হয়ে গেছে। বিজেপির দাবি, তারা লালবাজার পর্যন্ত যাবেই। পুলিশ ঠিক করেছে কোনও ভাবেই বিজেপিকে এগোতে দেওয়া হবে না।

রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, আমরা পুলিশের সঙ্গে লড়তে আসিনি। পুলিশ বাধ্য হয়ে আমাদের উপর অত্যাচার করছে। শাজাহান সন্দেশখালিতে খুন করেছে। আর সেই শাজাহান তৃণমূলের দেহরক্ষী।

তিনি বলেন, মান-সম্মান থাকলে এই সরকারের পদত্যাগ করা উচিত। এখন প্রতিদিন আমাদের কর্মীদের হত্যা করা হচ্ছে। রোজ কর্মীর দেহে মালা দিতে হচ্ছে। এটা আমার জীবনের সবথেকে কঠিন সময়।

এদিনের মিছিলের একেবারে গোড়ার দিকে ছিলেন বিজেপির মহিলা কর্মীরা। আর তাই প্রচুর পরিমাণে মহিলা পুলিশও নিয়ে আসা হয়েছিল। বিজেপির সাংসদ থেকে শুরু করে কেন্দ্রীয় নেতারা মিছিলে পা মেলান। দিলীপের দাবি তাঁদের উপরও আক্রমণ নেমে এসেছে।

রাজ্যে রাজনৈতিক সন্ত্রাসের প্রশ্নে আরও একবার মুখ্যমন্ত্রীর সমালোচনায় সরব হলেন কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। আসানসোলের এ সাংসদ বলেন, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজে সন্ত্রাসে মদত দিচ্ছেন। শুধু তাই নয় দলীয় কর্মী এবং পুলিশকে দিয়েও একই কাজ করাচ্ছেন তিনি। ক্ষমতায় থাকার সমস্ত নৈতিক অধিকার হারিয়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার।

এসএস

 

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত