শিরোনাম

চলন্তবাসে নার্সকে ধর্ষণের পর হত্যা, ৯ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি  |  ১৭:২২, আগস্ট ০৮, ২০১৯

কিশোরগঞ্জে নার্স শাহীনুর আক্তার তানিয়া ধর্ষণ ও হত্যা মামলায় অভিযুক্ত মামলায় নয়জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (০৮ আগস্ট) দুপুরে প্রেস বিফ্রিং এর মাধ্যমে পুলিশ জানান, তাদের মধ্যে ছয়জন গ্রেপ্তার ও তিনজন পলাতক রয়েছে।

আসামিরা হলেন-বাসচালক নূরুজ্জামান নূরু, হেলপার লালন মিয়া, আল-আমিন, রফিকুল ইসলাম রফিক, খোকন মিয়া, বকুল মিয়া উরফে ল্যাংরা বকুল, বাস মালিক মো. আল মামুন, বোরহান এবং স্বর্ণলতা পরিবহনের এমডি পারভেজ সরকার পাভেল।

এদের মধ্যে তিনজন ১৬৪ ধারায় আদালতে স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দী দিয়েছেন। চার্জশিটে ধর্ষণ ও হত্যায় বাসচালক নূরুজ্জামান নূরু, হেলপার লালন মিয়া এবং বাসচালকের খালাতো ভাই বোরহান সরাসরি জড়িত ছিল বলে উল্লেখ করা হয়েছে। বাকি আসামিরা ধর্ষণ পরবর্তী সময়ে হত্যায় জড়িত ছিল।

উল্লেখ্য, গত ৬ মে রাতে ঢাকার মহাখালী থেকে কিশোরগঞ্জের বাজিতপুরের পিরিজপুর রুটে চলাচলকারী ‘স্বর্ণলতা’ নামক বাসে নার্স শাহীনুর আক্তার তানিয়াকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়। তিনি কটিয়াদী উপজেলার লোহাজুরি ইউনিয়নের বাহেরচর গ্রামের মো. গিয়াসউদ্দিনের মেয়ে। তানিয়া ইবনে সিনা হাসপাতালের কল্যাণপুর ক্যাম্পাসে সেবিকা পদে কর্মরত ছিলেন।

কিশোরগঞ্জের বাজিতপুর উপজেলায় কিশোরগঞ্জ-ভৈরব আঞ্চলিক মহাসড়কের বিলপাড় গজারিয়া নামক স্থানে এ ঘটনাটি ঘটে।

এ ব্যাপারে গত ৭ মে তানিয়ার বাবা মো. গিয়াস উদ্দিন বাদী হয়ে বাজিতপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ (সংশোধনী/০৩) এর ৯(৩) ধারায় একটি মামলা দায়ের করেন।

এমএআই

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ


সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত