শিরোনাম

চুইংগাম গিলে ফেললে আসলেই কি কোনো বিপত্তি ঘটে?

আমার সংবাদ ডেস্ক  |  ১৬:১১, জুন ১৯, ২০১৯

চুইংগাম গিলে ফেলা শিশুদেরই সমস্যা নয়; অনেক সময় বড়রাও চিবাতে চিবাতে চুইংগাম গিলে ফেলে। চুইংগাম গেলার বিপত্তি নিয়ে অনেক অপকথাও চালু আছে সমাজে।

মানুষের দেহ সম্পর্কে বলা হয়, এটি পৃথিবীর সবচেয়ে অলৌকিক মেশিন। মানুষের দেহ মাত্র ৬০ সেকেন্টে লাখ লাখ রক্তকণিকা তৈরি করে ফেলতে পারে।

এমন আশ্চর্য দেহের অধিকারী কোনো মানুষ যখন চুইংগাম গিলে ফেলে তখন ভেতরে গিয়ে সে কি ধরনের গোল পাকাতে বারে?

এমন অপকথাও শোনা যায়, মানুষের দেহের ভেতরে একবার এ রাবার লজেন্সটি ঢুকতে পারলে ৭ বছর পর্যন্ত আর বের হওয়ার পথ খুঁজে পায় না। কেউ কেউ বলেন, মানুষের দেহের ভেতরে প্রবেশ করে আঠাদার চকলেটটি এক কোণায় চামড়ার সঙ্গে সেঁটে যায়।

কিন্তু মজার বিষয় হলো, এগুলো কেবলই অপকথা। চুইংগামের কৃত্রিম অংশটি হজম হয় না সত্যি, তবে এটা সত্যি নয়, হজম না হওয়া চুইংগামের ওই অংশটি দেহ থেকে বেরই হয় না।

বিশেষজ্ঞ ডাক্তারদের মতে চুইংগামের কৃত্রিম ওই অংশটি দেহে বেশি থেকে বেশি এক সপ্তাহ থেকে যায়। এরপর মানববর্জ্যের সঙ্গে সেটা বের হয়ে যায় ধীরে ধীরে।

বিশেষজ্ঞরা জানান, একদুবার এভাবে আটকে যেতে পারে। কিন্তু বারবার এরকম হলে অবশ্য যে কোনো ছোট বা বড় আঁতে ঠেকে গেলেও সেটা বেরিয়ে আসবে।

তবে একদম ছোট শিশুদের চুইংগাম একদম না খেতে দেয়াই ভালো। কোনো শিশু এটি খেতে চাইলেও খেয়াল রাখতে হবে বারবার তার প্রতি। অল্প কিছুক্ষণ পরেই সেটি শিশুটির মুখ থেকে বের করে নিতে হবে।

এসএস

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত