শিরোনাম

‘প্লিজ, আমাদের বাঁচার ব্যবস্থা ক‌রে দিন’

নিজস্ব প্রতিবেদক  |  ১৩:০১, জুন ১৬, ২০১৯

তারা স্বামী-স্ত্রী। দুজ‌নেই অন্ধ। স্বামী র‌ফিকুল ইসলাম চট্টগ্রাম বিশ্ব‌বিদ্যালয় থে‌কে লেখাপড়া ক‌রে‌ছেন। স্ত্রী শা‌হিদা আফ‌রোজ মিম পড়া‌লেখা ক‌রে‌ছেন ঢাকা বিশ্ব‌বিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গ‌বেষণা বিভাগ থে‌কে।

পড়া‌লেখা চলাকালীন অবস্থায় মি‌মের এক বন্ধুর মাধ্য‌মে প‌রিচয় হয় র‌ফিকু‌লের। সেই প‌রিচ‌য়ের সূত্র ধ‌রে মোবাইল নম্বর আদান প্রদান হয় একে অপ‌রের স‌ঙ্গে। কথা বল‌তে বল‌তে একে অপ‌রের স‌ঙ্গে প্রেম শুরু হয় তা‌দের।

এরপর ২০১১ সা‌লে পা‌রিবা‌রিক সম্ম‌তি‌তে বি‌য়ে ক‌রেন তারা। বি‌য়ের পর দু’জ‌নেই বি‌ভিন্ন প্র‌তিষ্ঠা‌নে চাক‌রির জন্য ছুট‌তে থা‌কেন। কিন্তু চাক‌রি ধরা দেয় না তা‌দের। এরই মা‌ঝে তা‌দের ঘর আলো করে জন্ম নেয় ছে‌লে সিয়াম। ছে‌লের বয়স এখন ৪ বছর। সিয়াম বাবা মা‌কে প্র‌তি‌নিয়ত দেখ‌তে পার‌লেও ছে‌লের চেহারা দেখার‌ সৌভাগ্য হয়‌নি তার বাবা মায়ের।

২০১১ সা‌লের পর থে‌কেই তা‌দের সংসার চল‌ছে আত্মীয় স্বজন ও প্র‌তি‌বেশী‌দের সহ‌যো‌গিতায়। প্র‌তি‌নিয়ত সহ‌যো‌গিতার জন্য হাত পাত‌তে লজ্জা কর‌ছে তা‌দের। এজন্য তারা যোগ্যতা অনুযায়ী সরকা‌রের কা‌ছে চাক‌রি চায়।

তারা এও ব‌লে‌ছেন, সরকারি চাক‌রি দি‌তে না পার‌লে কোনো ব্য‌ক্তি য‌দি আমাদের এক‌টি ছোট ব্যবসা প্র‌তিষ্ঠান গ‌ড়ে দেয় আমরা সেখান থে‌কে আমাদের সংসার চা‌লি‌য়ে নেব।

তারা ব‌লে‌ছেন, আমরা আমাদের সন্তান‌কে মানুষ কর‌তে চাই। দেশের শ্রেষ্ঠ বিদ্যাপী‌ঠে লেখাপড়া ক‌রে আমরা মানু‌ষের কা‌ছে হাত পাত‌তে চাই না। আমরা কর্ম ক‌রে খে‌তে চাই। আমাদের পিঠ দেয়া‌লে ঠে‌কে গে‌ছে। প্লিজ আমাদের দু’বেলা খে‌য়ে বেঁচে থাকার ব্যবস্থা ক‌রে দিন। ‌

মো: মানসুর আলম এর ফেসবুক থেকে

আরএ/আরআর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ


সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত