শিরোনাম
আদর্শ গ্রাম প্রকল্প বাস্তবায়ন

স্বপ্ন পূরণ হতে চলেছে আনন্দপুরবাসীর

মুহাম্মদ মিজানুর রহমান, ফেনী  |  ২৩:৩৩, আগস্ট ১৮, ২০১৯

ফেনীর ফুলগাজী উপজেলার আনন্দপুর গ্রামবাসীর দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্ন পূরণ হতে চলেছে আদর্শ গ্রাম প্রকল্প বাস্তবায়নের মধ্য দিয়ে। এ গ্রামের ১১৪ একর ভূমির উপর গড়ে তোলা হচ্ছে হাসপাতাল, বৃদ্ধ ও অনাথদের বাসস্থান এবং কারিগরী শিক্ষা কার্যক্রম।

এসব প্রকল্প বাস্তবায়নে এগিয়ে এসেছেন সাবেক সচিব ড. কামাল উদ্দিন আহমেদ। নিজ এলাকাকে আদর্শ গ্রামে রূপান্তরিত করতে দাদা আলহাজ্ব আহম্মদ উল্যাহ ও বাবা আলহাজ্ব সালেহ আহম্মদের নামে গড়ে তুলেছেন আর্থসামাজিক উন্নয়ন সংস্থা। ওই সংস্থার উদ্যোগে হাসপাতাল, বৃদ্ধাশ্রম-এতিমখানা ও কারিগরি শিক্ষাকেন্দ্র নির্মাণ করছে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়।

প্রকল্পের উন্নয়নে হাত বাড়িয়েছেন ফেনী-২ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী। সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, ফেনী শহর থেকে ছয় কিলোমিটার উত্তরে কালিরহাট বাজার থেকে দেড় কিলোমিটার দূরত্বে চন্দনবিয়া বাজার। সেখানে রয়েছে একটি বিদ্যালয় ও ঈদগাহ।

ওই গ্রামের নামই আনন্দপুর। চন্দনবিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে প্রায় ৩০০ গজ দক্ষিণে গড়ে তোলা হচ্ছে আলহাজ আহম্মদ উল্যাহ-আলহাজ সালেহ আহমেদ আদর্শ গ্রাম প্রকল্প।

সচিব ড. কামাল উদ্দিন আহমেদের ১১৪ একর পৈত্রিক সম্পত্তিতে নির্মিত হচ্ছে তিনটি বহুতল ভবন। প্রতিটি পাঁচতলা ভবনের দু’টিতে থাকবে ডায়াবেটিক হাসপাতাল ও বৃদ্ধ-অনাথদের বাসস্থান।

অপরটিতে চালু করা হবে কারিগরি শিক্ষা কার্যক্রম। জানা গেছে, ২০১৮ সালে আলহাজ আহম্মদ উল্যাহ-আলহাজ সালেহ আহমেদের নামে পারিবারিকভাবে আর্থসামাজিক উন্নয়ন সংস্থা প্রতিষ্ঠা করা হয়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. শহীদ উদ্দিন আহমেদ সংস্থার সভাপতি ও সচিব ড. কামাল উদ্দিন আহমেদ সাধারণ সম্পাদক হন।

ওই বছরের শেষের দিকে দেশে ছয়টি আদর্শ গ্রাম তৈরির উদ্যোগ নেয় সরকার। প্রকল্পগুলো বাস্তবায়ন করছে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়। ২০২০ সালে প্রকল্পগুলোর কাজ শেষ হবে বলে জানিয়েছেন প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা।

১৩ আগস্ট বাস্তবায়নাধীন প্রকল্প পরিদর্শন করেছেন ড. কামাল উদ্দিন আহমেদ। এ সময় ফেনী-২ আসনের সংসদ সদস্য নিজাম উদ্দিন হাজারী, জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুজজামান, জেলা আ.লীগ সভাপতি ও সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবদুর রহমান বিকম উপস্থিত ছিলেন। প্রকল্পের উন্নয়নে নিজাম উদ্দিন হাজারী এমপি ব্যক্তিগত তহবিল থেকে ৩০ লাখ টাকা অনুদান ঘোষণা করেন।

সংস্থার কোষাধ্যক্ষ জসিম উদ্দিন আহমেদ জানান, এলাকার অসহায় বৃদ্ধ ও অনাথ শিশুদের কথা বিবেচনা করে হাসপাতাল ও বৃদ্ধাশ্রম-অনাশ্রম তৈরি হচ্ছে। আগামী প্রজন্মকে দক্ষ করে গড়ে তুলতে এখানে একটি কারিগরি শিক্ষাকেন্দ্রও প্রতিষ্ঠা করা হচ্ছে।

চন্দনবিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক শাহজাহান ভূঞা জানান, সচিব ড. কামাল উদ্দিন আহমেদের একান্ত প্রচেষ্টায় আদর্শ গ্রাম প্রকল্প বাস্তবায়নের মধ্য দিয়ে দীর্ঘ দিনের স্বপ্ন পূরণ হতে চলেছে আনন্দপুরবাসীর।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ


সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত