শিরোনাম

বছর না যেতেই গৃহবধূ হলেন লাশ!

পাবনা প্রতিনিধি  |  ১৩:০৯, আগস্ট ১৯, ২০১৯

ঈশ্বরদীর দাশুড়িয়া মারমী গ্রামের সরদারপাড়ায় নিজ ঘরে ঝুলন্ত অবস্থায় আশা খাতুন (২৫) নামে এক গৃহবধূর মরদেহ পাওয়া গেছে। জানা গেছে, ২০১৮-তে বিয়ে করেছিলেন তিনি। মাত্র এক বছরের সংসার তার।

এদিকে, ঈশ্বরদী থানা পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে গেছে।

স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, রোববার বিকেলে ঘরের আড়ার সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে আশা আত্মহত্যা করেছেন বলে প্রচার করা হলেও এর পেছনে শ্বশুরবাড়ির লোকজনের নির্যাতনের ঘটনা রয়েছে।

আশার বাবা আটঘরিয়া নওদাপাড়ার আতিয়ার রহমান ঈশ্বরদী থানায় দায়েরকৃত মামলায় অভিযোগ করেন, যৌতুকের দাবিতে আশার স্বামী জহুরুল ইসলাম ও শাশুড়ি শুভুন বেগম প্রায়ই শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতো। ঘটনার দিনও সকালে মানসিক নির্যাতন করায় সইতে না পেরে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আশা আত্মহত্যা করেছে।

ঈশ্বরদী থানা পুলিশের ওসি বাহাউদ্দীন ফারুকী মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, মামলার আসামি জহুরুল ও শুভুন বেগমকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। লাশ ময়নাতদন্তের পর বাদীর কাছে হস্তান্তরও করা হয়েছে।

জেডআই

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ


সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত