শিরোনাম

হ্যাঁ, এই মানুষটা ভয়ংকর : গেইল

স্পোর্টস ডেস্ক  |  ২৩:৩৬, মে ২৩, ২০১৯

বয়স আর কিছুদিন পরেই ৪০-এ পড়বে। ক্যারিয়ারের পঞ্চম এবং একরকম নিশ্চিতভাবেই শেষ বিশ্বকাপ খেলতে ইংল্যান্ডের মাটিতে পা রেখেছেন বিধ্বংসী ক্যারিবিয়ান ব্যাটসম্যান ক্রিস গেইল।

বিশ্বকাপের পর অবসরে যাবেন এমন একটা সিদ্ধান্তের কথা জানালেও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজে দারুণ পারফরম্যান্স করার পর সেই সিদ্ধান্ত নিয়ে নতুন করে ভাবার ব্যাপারে জানিয়েছেন পরবর্তী সময়ে।

এবারের আইপিএলটাও তার কেটেছে বেশ ভালো। সব মিলিয়েই গেইলের অনুভূতি, বোলাররা এখনও তাকে যথেষ্টই ভয় পায়।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচ সিরিজের চার ম্যাচে ১০৬ গড়ে করেছিলেন ৪২৪ রান। সিরিজে তার ব্যাট থেকে এসেছিল রেকর্ড সর্বোচ্চ ৩৯টি ছক্কা।

আইপিএলে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের হয়ে ৪০.৮৩ গড়ে করেছেন ৪৯০ রান। 'বুড়ো' গেইলও যে বেশ ভয়ঙ্কর, সেটা বোলারদের না জানার কারণ নেই। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার অফিসিয়াল ওয়েবসাইটকে দেওয়া

এক সাক্ষাৎকারে গেইল বলেন, 'প্রতিপক্ষ বোলাররা আমাকে ভয় পায় কি-না, সেটা আপনারা তাদেরই জিজ্ঞেস করতে পারেন। ক্যামেরার সামনে তাদের জিজ্ঞেস করলে তারা বলবে, আমাকে ভয় পায় না।

কিন্তু ক্যামেরার আড়ালে জিজ্ঞেস করলে তারা বলবে- হ্যাঁ, এই মানুষটা ভয়ংকর। এটা আমি উপভোগ করি। ফাস্ট বোলাদের বিপক্ষে লড়াইটা সবসময়ই উপভোগ্য। মাঝে মাঝে একজন ব্যাটসম্যানকে এটা আরও ভালো করার তাগিদ দেয়।'

বয়সের কিছুটা প্রভাব তার ব্যাটিংয়ে পড়েছে স্বীকার করে নিয়েও স্বঘোষিত ইউনিভার্স বস বললেন, তাকে নিয়ে দুশ্চিন্তায় থাকবে প্রতিপক্ষের সব বোলারই, 'এখন হয়তো আগের মতো সবকিছু সহজ নয়।

তবে প্রতিপক্ষ অবশ্যই চিন্তিত থাকবে, তারা জানে ইউনিভার্স কী করতে পারে। আমি নিশ্চিত, তাদের মনের মধ্যে এই ব্যাপারটা কাজ করবে।'

সামনের সেপ্টেম্বরে বয়স ৪০ স্পর্শ করবে। একই সময়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের বয়সটাও হয়ে যাবে ২০ বছর। এত বছর খেলার পরে এখনও কীভাবে আরও ভালো করার তাড়না আসে?

গেইল এ ব্যাপারে কৃতিত্ব দিচ্ছেন দর্শক-সমর্থকদের, 'সত্যি বলতে, সমর্থকদের ভালোবাসা এবং খেলাটার প্রতি আমার ভালোবাসাই এখনো আমাকে ভালো করার প্রেরণা জোগায়।

একটা সময় আপনাকে খেলাটা ছেড়ে দিতেই হবে। তবে যতক্ষণ আপনি উপভোগ করছেন, ততক্ষণ চালিয়ে যাওয়া সহজ। দর্শকরা আমার কাছ থেকে অনেক ছক্কা দেখতে চায়, এটা আমার ভালো করার জন্য একটা তাগিদ।'

আগামী ৩১ মে ট্রেন্টব্রিজে পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে নিজেদের বিশ্বকাপ মিশন শুরু করবে দু'বারের বিশ্ব চ্যাল্ফিপয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

বোর্ড পরীক্ষার খাতা পুনর্মূল্যায়েনের বিধান প্রণয়নে রুল

পরীক্ষা পরিচালনা সংক্রান্ত বোর্ডের প্রণীত রেগুলেশনের প্রবিধান অনুযায়ী উত্তরপত্র পুনর্মূল্যায়নের সুযোগ না রাখার বিধানটি কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না- তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছে হাইকোর্ট।

বৃহস্পতিবার (২৩মে) বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রুল জারি করে।

একই সঙ্গে খাতা পুনর্মূল্যায়নের প্রয়োজনীয় বিধান কেন প্রণয়ন করা হবে না- রুলে তাও জানতে চেয়েছে আদালত। দুই সপ্তাহের মধ্যে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব, আইন মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং সকল বোর্ডের চেয়ারম্যান ও পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকদের রুলে জবাব দিতে বলা হয়েছে।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন-ব্যারিস্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া। সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী শিকদার মাহমুদুর রাজী। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ বি এম আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার।

আইনজীবী শিকদার মাহমুদুর রাজী বলেন, ‘বোর্ডের আইন অনুযায়ী খাতা পুনর্মূল্যায়নের কোনো সুযোগ নেই। যা করা যায় তা হলো পুননিরীক্ষা। এর ফলে খাতার মার্কের বিষয়টি চ্যালেঞ্জ করার সুযোগ থাকলেও খাতার মূল্যায়ন করার সুযোগ নেই। তাই সে সুযোগ চেয়ে রিটটি দায়ের করা হয়।

এর আগে এসএসসি ও এইচএসসিসহ সমমানের বোর্ড পরীক্ষায় উত্তরপত্র পুনর্মূল্যায়নের সুযোগ চেয়ে রিটটি দায়ের করা হয়। গত ১৪ মে আইনজীবী শিকদার মাহমুদুর রাজী ও আইনুন নাহার সিদ্দিকা এ রিট দায়ের করেন।

এমএআই

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ


সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত