শনিবার ২৮ মার্চ ২০২০

১৪ চৈত্র ১৪২৬

ই-পেপার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

মার্চ ২৫,২০২০, ০৭:৫০

মার্চ ২৫,২০২০, ০৭:৫০

স্পেনে ২৪ ঘণ্টায় ৭৩৮ জনের মৃত্যু

 

নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর মিছিলে চীনকেও ছাড়িয়ে গেছে স্পেন। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে ৭৩৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। ইউরোপে ইতালির পরই স্পেনে মৃতের সংখ্যা এখন সবচেয়ে বেশি।

স্পেনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের প্রকাশিত সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী, দেশটিতে বুধবার (২৫ মার্চ) সকাল নাগাদ সব মিলে করোনাভাইরাসে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ৪৩৪ জনে। আক্রান্তের সংখ্যা ৪৭ হাজার ৬১০।

ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে চিকিৎসা দরকার এমন মারাত্মক রোগী আছে ৩ হাজার ১৬৬ জন। আর সুস্থ হয়েছে ৫ হাজার ৩৬৭ জন।

করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে স্পেনে চলমান নজিরবিহীন লকডাউন ১১ দিনে পড়েছে। তারপরও চক্রবৃদ্ধি হারে মৃতের সংখ্যা বাড়ছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

দেশটিতে কভিড-১৯ এ অর্ধেকের বেশি মানুষের মৃত্যুই রেকর্ড করা হয়েছে মাদ্রিদে। করোনাভাইরাস সংক্রমণের শুরু থেকে সেখানে ১ হাজার ৮২৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। মাদ্রিদের বৃদ্ধ নিবাসগুলোতেই করোনাভাইরাস ভয়াল থাবা বসিয়েছে।

মাদ্রিদ্র এবং বাস্ক কাউন্টিতে প্রথমদিকে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঘটেছিল এবং এ জায়গাতেই ভাইরাসটি দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। এর কিছুদিনের মধ্যেই মাদ্রিদের স্কুলগুলো বন্ধ করা হয়।

তবে দেশজুড়ে লকডাউনের পদক্ষেপ তখনও নেওয়া হয়নি। আর এতেই ভাইরাসটি ছড়িয়ে গেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। দেশজুড়ে লকডাউনের পদক্ষেপ নেওয়ার আগেই স্পেনের ১৭ টি অঞ্চলে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে গিয়েছিল।

১৪ মার্চে স্পেনজুড়ে লকডাউনের ঘোষণা দেওয়া হয়। তা এখন ১১ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানো হচ্ছে। কিন্তু এ অবরুদ্ধ অবস্থাতেও থামছে না মৃত্যু। ঠেকানো যাচ্ছে না সংক্রমণ।

কর্তৃপক্ষ আরো বেশি মানুষকে করোনাভাইরাস পরীক্ষার আওতায় এনেছে। এতে করে নতুন আক্রান্ত ধরা পড়ছে। গত মঙ্গলবার আক্রান্তের হার ২০ শতাংশ বেড়েছে। আর একই সময়ে মৃত্যুর হার বেড়ে গেছে ২৭ শতাংশ।

বিশ্বজুড়ে এখন কেবল ইতালিতেই করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা (৬,৮২০ জন) স্পেনের তুলনায় বেশি। আর চীনে গত বছর করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের পর সেখানে মৃত্যু হয়েছিল ৩ হাজার ২৮১ জনের।

এদিকে বাংলাদেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরো একজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাড়িয়েছে ৫ জনে। আক্রান্তের সংখ্যা ৩৯ জন।

সারাবিশ্বে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ১৯ হাজার ৬৩০ জনের। সংক্রমিত হয়েছেন ৪ লাখ ৩৬ হাজার ২৪ জন মানুষ। মৃত্যু হয়েছে ১৯ হাজার ৬৩০ জনের।

আমারসংবাদ/জেআই