শিরোনাম

অনিককে বেধরক পেটাল কয়েদিরা

নিজস্ব প্রতিবেদক   |  ০৭:২৪, অক্টোবর ১৩, ২০১৯

আবরার ফাহাদ হত্যার আসামি অনিক সরকারকে কারাগারে বেধরক পিটিয়েছে অন্য কয়েদিরা। ডিবির হাতে গ্রেপ্তার রিমান্ড শেষে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়ার পর কারাগারে নেয়া হলে অন্য কয়েদিরা ক্ষুব্ধ হয়ে তাকে পেটায়।

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিবি) আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল শনিবার ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালত এ আসামির জবানবন্দি রেকর্ড করেন। পরে অনিক সরকারকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত।

কারাগার সূত্রে জানা গেছে, আবরারকে নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যার ঘটনা জানার পর সারাদেশে তোলপাড় সৃষ্টি হয়। কারাগারেও বিষয়টি ব্যাপক নাড়া দেয়। যে কারণে কয়েদিরা ক্ষুব্ধ ছিলেন আবরার হত্যার আসামিদের প্রতি।

সূত্র জানায়, শনিবার অনিককে কারাগারে আনার পরপরই ক্ষুব্ধ হয়ে উঠে কয়েদিরা। এ সময় তার উপর হামলে পড়ে সবাই। অনিককে কারাগারের সেলে পাওয়া মাত্রই পিটুনি শুরু করেন।

তবে অল্পের জন্য রেহাই পায় আবরার হত্যার ওই আসামি। কারারক্ষীরা অনেক চেষ্টার পর তাকে ক্ষুব্ধ কয়েদিদের কাছ থেকে রক্ষা করেন।

অনিক সরকারের বাড়ি রাজশাহীর মোহনপুর উপজেলার বড়ইকুড়ি গ্রামে। অনিক ওই গ্রামের বাসিন্দা ও কাপড় ব্যবসায়ী আনোয়ার হোসেনের ছেলে। তাদের গ্রামের বাড়ি উপজেলার কৃষ্ণপুরে হলেও ব্যবসায়িক কাজে পুরো পরিবার মোহনপুর উপজেলা সদরের বড়ইকুড়ি গ্রামে বসবাস করে।

গত ৭ অক্টোবর বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে ভারত বিরোধী একটি ফেসবুক স্ট্যাটাসের জেরে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। হত্যাকারীদের মধ্যে অনিকই সবচেয়ে বেশি পিটিয়েছেন বলে জানা যায়।

তবে বিষয়টি অস্বীকার করে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার মাহবুবুল ইসলাম বলেন, এমন ঘটনা ঘটেনি।

আরআর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত