বুধবার ০৮ জুলাই ২০২০

২৪ আষাঢ় ১৪২৭

ই-পেপার

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি

মে ৩০,২০২০, ১০:০৬

মে ৩০,২০২০, ১০:০৬

শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের মামলায় শিক্ষক কারাগারে

সিরাজগঞ্জ চৌহালীর এনায়েতপুরে শিশু শিক্ষার্থীকে নির্যাতন ও ধর্ষণের অভিযোগে স্কুল শিক্ষক নুরুজ্জামানের নামে মামলা দায়ের করা হয়েছে। পরে তাকে গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। ভুক্তভোগী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়ুয়া ওই শিক্ষার্থী এখন সন্তানসম্ভবা।

এনায়েতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোল্লা মাসুদ পারভেজ জানান, প্রায় ৬ মাস আগে স্কুল ছুটির পর ওই শিক্ষক শিশুটিকে নানা কায়দায় আটকে রেখে ধর্ষণ ও নির্যাতন করেন। কিছুদিন পর ভুক্তভোগী শিশুটি সন্তানসম্ভবা হয় বলে জানা যায়। ভুক্তভোগীর পরিবারের সদস্যরা এ বিষয়ে জানালে উল্টে তাদেরই ভয়ভীতি দেখান চার সন্তানের জনক শিক্ষক নুরুজ্জামান। এক পর্যায়ে শনিবার ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর মা নিজে বাদী হয়ে এনায়েতপুর থানায় ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা দায়ের করেন। পরে ওই শিক্ষককে গ্রেপ্তার করে জেলা কারাগারে প্রেরণ করে পুলিশ।

ওসি মোল্লা মাসুদ পারভেজ বলেন, বর্তমানে শিশুটি পাঁচ মাসের সন্তানসম্ভবা। ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য রবিবার ভুক্তভোগী শিশুকে সিভিল সার্জন অফিসে পাঠানো হবে।

স্কুল ছাত্রীর বাবা জানান, দিনমুজুরি করে খাই। আমাদের কোন লোকজন নাই। শিক্ষক প্রভাবশালি হওয়ায় অনেকেই বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করেছে। আমি প্রশাসনের কাছে এ ঘটনার ন্যায় বিচার চাই।

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন সিরাজগঞ্জ জেলা শাখার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রুখছানা ইসলাম জয়া বলেছেন, এ ঘটনার সুষ্ঠ ও ন্যায় বিচার নিশ্চিতে নির্যাতিতা ওই স্কুল ছাত্রীকে আমাদের পক্ষ থেকে সকল প্রকার আইনি সহায়তা দেয়া হবে।

চৌহালী উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর ফিরোজ জানিয়েছেন, একজন শিক্ষকের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ উদ্বোগ ও দুখঃজনক। দোষী প্রমাণিত হলে বিভাগীয় ও আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আমারসংবাদ/কেএস