রবিবার ০৭ জুন ২০২০

২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

ই-পেপার

বিনোদন ডেস্ক

ফেব্রুয়ারি ১৯,২০২০, ০৫:০৩

ফেব্রুয়ারি ১৯,২০২০, ০৫:০৩

আত্মহত্যা করলেন সুস্মিতা!

ভারতের কর্ণাটকের জনপ্রিয় প্লে ব্যাক সিঙ্গার সুস্মিতা আত্মহত্যা করেছেন।

২৭ বছরের এই গায়িকা দীর্ঘদিন ধরে শ্বশুরবাড়ির যৌতুকের অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে আত্মহত্যার পথ বেছে নেন তিনি।

মৃত্যুর আগে সুইসাইড নোটে শ্বশুরবাড়ির বিরুদ্ধেই এমন অভিযোগ করে গেছেন তিনি।

ভারতীয় পুলিশ জানাচ্ছে, গেলো রোববার রাত ১টায় ভাই শচিনকে হোয়াটসঅ্যাপ করেন সুস্মিতা। সেখানেই তিনি জানিয়েছেন স্বামী শরৎ কুমার, ননদ গীতা ও শাশুড়ি বৈদেহি তার উপরে অত্যাচার করে যাচ্ছেন।

কিন্তু শচিন মেসেজটি পড়েন ভোরে। তার আগেই সব শেষ। সুস্মিতার বাড়ি গিয়ে ভাই দেখেন গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছেন তিনি।

বেঙ্গালুরু পুলিশ জানিয়েছে, সুইসাইড নোটে স্বামী, ননদ ও শাশুড়ির অত্যাচারের কথা উল্লেখ করেছেন সুস্মিতা। যৌতুকের জন্য তার উপরে মানসিক ও শারীরিক অত্যাচার চলত বলে জানিয়েছেন তিনি।

সোমবার সকালে সুস্মিতার ভাই প্রথম তার ঝুলন্ত দেহ দেখে পুলিশকে খবর দেন। ওড়না দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি।

বছর দেড়েক আগে শরত কুমারের সঙ্গে বিয়ে হয় সুস্মিতা রাজের। বিয়ের কয়েক মাস পর থেকেই শরতের বাড়ির লোকজন যৌতুকের জন্য সুস্মিতার উপর অত্যাচার শুরু করেন বলে অভিযোগ।

একসময় শ্বশুরবাড়ি ছেড়ে মায়ের কাছে ফিরে যান তিনি৷ স্বামীকে বার বার বলেও কোনও কাজ হয়নি। নিজের সুইসাইড নোট যেটি লিখেছেন সেটি এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মিডিয়ায় ভাইরাল।

সুস্মিতার মা জানিয়েছেন, শরত আরও বেশি করে তাঁর উপর অত্যাচার চালাতেন। মারা যাওয়ার আগে তিনি মা’কেও একটি চিঠি লেখেন।

সুইসাইড নোটে তিনি সরাসরি শ্বশুরবাড়ির অত্যাচারের কথা উল্লেখ করে লেখেন, তাঁর শ্বশুরবাড়ির লোককে যেন উপযুক্ত শাস্তি দেওয়া হয়। গায়িকার অকাল মৃত্যুতে সব মহলে শোকের ছায়া। পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে।

আমারসংবাদ/এমএআই