শনিবার ০৬ জুন ২০২০

২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

ই-পেপার

বিনোদন ডেস্ক

এপ্রিল ৩০,২০২০, ০১:০৯

এপ্রিল ৩০,২০২০, ০১:০৯

অর্থের অভাবে ক্রিকেটার হতে পারেননি ইরফান

অভিনয় দিয়ে উপমহাদেশ জয় করা ইরফান খান হতে পারতেন ক্রিকেটারও। বয়সভিত্তিক ক্রিকেটে দারুণ পারফরমার ছিলেন তিনি। ভারতের ঘরোয়া টুর্নামেন্ট সিকে নাইডু ট্রফিতে খেলার সুযোগ হয়েছিল প্রয়াত এই অভিনেতার।

ভারতীয় চলচ্চিত্রের অন্যতম নিখুত অভিনেতা ছিলেন ইরফান খান। বুধবার ৫৩ বছর বয়সী এই অভিনেতা পাড়ি জমিয়েছেন না ফেরার দেশে। তার মৃত্যুতে শোক নেমে এসেছে পুরো উপমহাদেশেজুড়ে। শচিন টেন্ডুলকার থেকে শুরু করে বীরেন্দর শেবাগ, বিরাট কোহলি, সুরেশ রায়না, শিখর ধাওয়ানরা গুণী এই অভিনেতার মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন।

ছোটবেলায় ক্রিকেটার হওয়ার স্বপ্নই দেখতেন তিনি। বয়সভিত্তিক ক্রিকেটে দারুণ পারফরমার ছিলেন ইরফান। সুযোগ হয়েছিল ভারতের ঘরোয়া ক্রিকেট টুর্নামেন্ট সিকে নাইডু ট্রফিতে খেলার। কিন্তু অর্থের অভাবে হতে পারেননি তিনি। মাত্র ২০০-২৫০ রুপি না থাকায় ক্রিকেটার হয়ে ওঠা হয়নি তার।

চলচ্চিত্রে আসার আগে তিনি যে ক্রিকেটার ছিলেন, সেই গল্প ইরফান নিজেই শুনিয়েছিলেন। ২০১৭ সালে একটি অনুষ্ঠানে ইরফান জানান, ক্রিকেটার হিসেবে তিনি ভালোই ছিলেন। কিন্তু আর্থিক অস্বচ্ছ্বলতার কারণে ক্রিকেটার হয়ে ওঠা হয়নি।

অলরাউন্ডার ছিলেন ইরফান। কিন্তু অধিনায়কের পরামর্শে নিজেকে বোলার হিসেবে গড়ে তোলার কাজে মন লাগান তিনি। কৌতুক অভিনেতা আভিশ ম্যাথিউয়ের অনুষ্ঠানে ইরফান বলেছিলেন, 'আমার অধিনায়ক আমার বোলিং পছন্দ করতেন। এ কারণে তিনি আমাকে বোলার বানান। সে বলতো, 'আমাকে একটি দারুণ ডেলিভারি দাও'। আমি কেবল বল ছুঁড়তাম এবং যে কোনোভাবেই হোক, উইকেট পেতাম।'

পারফরম্যান্স দেখিয়ে সিকে নাইডু টুর্নামেন্টে অনূর্ধ্ব-২৩ পর্যায়ে খেলার সুযোগ করে নেন ইরফান। এ টুর্নামেন্টে অংশ নিতে জয়পুর যেতে হতো তাকে। টিকেট কাটতে তার ২০০-২৫০ রুপির দরকার ছিল। যা ছিল না তরুণ ইরফানের কাছে। জয়পুর যাওয়া হয়নি তার, ক্রিকেটারও হয়ে ওঠা হয়নি।

ইরফান বলেছিলেন, 'আমি ক্রিকেট খেলতাম। ক্রিকেটারই হতে চেয়েছিলামা। আমি যখন নির্বাচিত হলাম, আমাদের দল জয়পুর থেকে আজমীর যাচ্ছিল। তখন আমার ২০০-২৫০ রুপি দরকার ছিল। আমি সেটা সংগ্রহ করতে পারিনি। ওই দিন আমি বুঝতে পারি, এই পথ আমি অনুসরণ করতে পারি না।'

সেই অনুষ্ঠানে ইরফান আরও বলেন, 'আমি সিকে নাইডু টুর্নামেন্টে খেলার জন্য নির্বাচিত হয়েছিলাম। আমার বাড়ির পরিস্থিতি এমন ছিল যে, খেলতে যেতে হলে আমাকে মিথ্যা বলতে হতো। কোথায় যাচ্ছি, এমন প্রশ্নের উত্তরে আমাকে অজুহাত বানাতে হতো। তো খেলাধুলাকে ক্যারিয়ার হিসেবে নেওয়ার পথে সেভাবে অনুপ্রেরণা পাইনি।'

অভিনয়ের প্রতিও আগ্রহ ছিল ইরফান খানের। ক্রিকেটের পথ কঠিন মনে হওয়ায় পরে অভিনয়কেই বেছে নেন শক্তিমান এই অভিনেতা। ভর্তি হন ন্যাশনাল স্কুল অব ড্রামায়। এই স্কুলে ভর্তির জন্য তাকে ৩০০ রুপি খরচ করতে হয়। ইরফান বলেন, 'ন্যাশনাল স্কুল অব ড্রামায় ভর্তির জন্য ৩০০ রুপি দরকার ছিল, যা দেওয়া্ আমার জন্য কঠিন ছিল। অবশেষে আমার বোন এটা আমাকে দেয়।'

আমারসংবাদ/এআই