শনিবার ০৮ আগস্ট ২০২০

২৪ শ্রাবণ ১৪২৭

ই-পেপার

বশেমুরবিপ্রবি প্রতিনিধি

ডিসেম্বর ১৪,২০১৯, ০২:২২

ফেব্রুয়ারি ০৯,২০২০, ১০:০৯

অবশেষে কংক্রিটের শহীদ মিনার পেল বশেমুরবিপ্রবি

অবশেষে কংক্রিটের শহীদ মিনার নির্মাণ হলো গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বশেমুরবিপ্রবি)। দীর্ঘ নয় বছর যাবত কাঠের একটি অস্থায়ী শহীদ মিনারেই জাতীর শ্রেষ্ঠ সন্তানদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতো বশেমুরবিপ্রবি। গেল ১১ নভেম্বর ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের আঘাতে ভেঙে পড়ে কাঠনির্মিত শহীদ মিনারটি। এরপর শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস এবং বিজয় দিবসকে সামনে রেখে মাত্র সাত দিনে শহীদ মিনারটির নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করে বর্তমান বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। শহীদ মিনার নির্মাণের বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের চলতি উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. শাহজাহান বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টার প্লানে যে শহীদ মিনারটির নকশা রয়েছে সেটির নির্মাণ কাজ আরো পরে শুরু হবে। আপাতত শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের উদ্দেশ্যে স্বল্প সময়ে এই অস্থায়ী শহীদ মিনারটি নির্মাণ করা হয়েছে।’ তিনি আরো বলেন, মূলত চলতি উপাচার্যের টেন্ডার প্রদানের ক্ষমতা না থাকায় এবং বিশ্ববিদ্যালয়ে শহীদ মিনার জাতীয় চেতনার অংশ হওয়ায়ই স্বল্প সময়ে এই শহীদ মিনারটি নির্মাণ করা হয়েছে। এদিকে দীর্ঘ নয় বছর পরে শহীদ মিনার নির্মাণে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা। আইন তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ইজাজুর রহমান জানিয়েছেন, ‘জাতির পিতার নামে নামাঙ্কিত ক্যাম্পাসে এতদিন স্থায়ী শহীদ মিনার ছিল না। বিষয়টা আমাদের জন্য ছিল অত্যন্ত লজ্জার। মাত্র সাতদিনেই তড়িৎ গতিতে শহীদ মিনার নির্মাণ হল, আমরা অবাক হয়েছি, খুশি হয়েছি তার চেয়েও বেশি৷ প্রশাসনকে ধন্যবাদ৷ পাশাপাশি সামনের দিনগুলোতেও এভাবে শিক্ষার্থীবান্ধব প্রশাসনকেই দেখতে চাই৷’ প্রসঙ্গত, এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়টির সাবেক উপাচার্য খোন্দকার নাসিরউদ্দিনের সময়ে শহীদ মিনারের নির্মাণ কাজ শুরু না করেই ২০১৫ সাল থেকে শহীদ মিনারকে নির্মাণাধীন দেখানো হয়ে আসছিলো এবং টেন্ডার প্রদানের পূর্বেই ২০১৮ সাল পর্যন্ত প্রায় ১ কোটি ৬৩ লক্ষ টাকা ব্যয় দেখানো হয়েছিলো শহীদ মিনার নির্মাণ প্রকল্পে। কেএস