সোমবার ১০ আগস্ট ২০২০

২৬ শ্রাবণ ১৪২৭

ই-পেপার

প্রিন্ট সংস্করণ॥বিনোদন প্রতিবেদক

ডিসেম্বর ১১,২০১৯, ০২:০১

ফেব্রুয়ারি ০৯,২০২০, ১০:০৯

লুইপার কণ্ঠে চিত্রা সিং’র গান

জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী জিনিয়া জাফরিন লুইপা খুব ছোটবেলা থেকেই বাংলাদেশের প্রতিথযশা সঙ্গীতশিল্পীসহ ভারতের বিখ্যাত শিল্পীদের গানও নিয়মিত শুনতেন। তাদের সেই গান শুনতে শুনতেই তাদের গানের প্রতি এক ধরনের ভালোলাগা ভালোবাসা তৈরি হয়ে যায়। ঠিক তেমনি একজন শিল্পী চিত্রা সিং। প্রখ্যাত এই শিল্পীর গান এবার নিজের কণ্ঠে তুলে শ্রোতা দর্শককে উপহার দিলেন লুইপা। চিত্রা সিং এর বহুল জনপ্রিয় ‘আমার চোখের জলের মাঝে’ গানটি সেলন মিউজিক লাউঞ্জের ইউটিউব চ্যানেলে গত রোববার প্রকাশিত হয়েছে। এটি প্রকাশের পরপরই লুইপা তার অনবদ্য গায়কীর জন্য প্রশংসায় ভাসছেন। লুইপার গায়কী সবসময়ই শ্রোতা দর্শককে মুগ্ধ করে। এই গানে তার গায়কীর মুগ্ধতা যেনও আরও বেশি ভালোলাগায় রূপান্তরিত করেছে দর্শক শ্রোতাদের। গানটি লিখেছেন পুলক ব্যানার্জি, সুর জগজিৎ সিং। গানটির রি-অ্যারেঞ্জম্যান্ট করেছেন পার্থ বড়ুয়া। লুইপা বলেন, ‘গানটি গাওয়ার জন্য শ্রদ্ধেয় পার্থ বুড়য়া দাদা যখন আমাকে প্রস্তাব দিয়েছিলেন তখন গানটি গাওয়াতে কোনো দ্বিমত ছিল না। আমি শুরু থেকেই সেলন মিউজিক লাউঞ্জের গানগুলো নিয়মিত শুনি। ভীষণ ভালোলাগে। তাই এই আয়োজনে গান গাওয়ার প্রস্তাবটা সানন্দে লুফে নেই। যদিও শ্রদ্ধেয় চিত্রা সিং’র এই গানটি কখনোই গাওয়া হয়ে উঠেনি। কিন্তু যতটুকু গাইতে পেরেছি ততটুকুও হয়তো গাওয়া হয়ে উঠতোনা যদি পার্থ দাদা সহযোগিতা না করতেন, অনুপ্রেরণা না দিতেন। দাদার প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করছি। সেই সাথে শ্রোতা-দর্শকের প্রতিও, কারণ তারা গানটি পছন্দ করছেন।’ লুইপা জানান, গানটি প্রকাশের প্রথম দিন থেকেই তিনি বেশ সাড়া পাচ্ছেন। এর আগে বেগম আখতার, কনকচাঁপার গান কাভার সং হিসেবে গেয়েছিলেন। বড় বড় শিল্পীদের গান গাইতে এই প্রজন্মের শিল্পীদের ভীষণ সাহসের প্রয়োজন হয়। এই সাহসটা বা আত্মবিশ্বাসটা কোত্থেকে আসে? জবাবে লুইপা বলেন, ‘সত্যি বলতে কী গুণী শিল্পীদের গান ছোটবেলা থেকে এত বেশি শুনেছি সেসব গানের প্রতি এক ধরনের ভালোলাগা ভালোবাসা তৈরি হয়ে যায়। তাই যখন তাদের গান করি তাদের প্রতি শ্রদ্ধা ভালোবাসা রেখে আমি আমার মতো গাওয়ার চেষ্টা করি।’ উল্লেখ্য লুইপা বর্তমানে স্টেজ শো নিয়ে ব্যস্ত রয়েছেন। আজ তিনি ময়মনসিংহে একটি স্টেজ শো’তে অংশ নেবেন। আগামী ১২ ডিসেম্বর টাঙ্গাইল শহরে, ১৩ ডিসেম্বর ঢাকাতে, ১৪ ডিসেম্বর কুয়াকাটায়, ১৬ ডিসেম্বর টাঙ্গাইলের সখিপুরে, ১৯ ডিসেম্বর রাজশাহীতে এবং ২১ ডিসেম্বর ঢাকাতে স্টেজ শো নিয়ে ব্যস্ত থাকবেন। এসটিএমএ