মঙ্গলবার ১৪ জুলাই ২০২০

৩০ আষাঢ় ১৪২৭

ই-পেপার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

নভেম্বর ১৫,২০১৯, ০৩:০৭

ফেব্রুয়ারি ০৯,২০২০, ১০:০৯

কলকাতায় ২ বাংলাদেশির অপহরণ, গ্রেপ্তার ৩

ব্যবসায়িক কাজে কলকাতায় অবস্থানরত দুই বাঙালিকে অপহরণের দায়ে তিন ভারতীয় গ্রেপ্তার। ব্যবসায়িক সূত্রে বাংলাদেশের বশিরের সম্পর্ক হয় ভারতীয় সেলিমের সাথে। বন্ধুত্বের সুযোগ নিয়ে অপহরণ করে অর্থ লুটে নেয় ভারতীয় নাগরিক। পরে থানায় অভিযোগ করা হলে পুলিশ সেলিম ও তার দুই সহযোগিকে গ্রেপ্তার করে। ব্যবসায়িক কাজের সুবাদে প্রায়ই কলকাতায় যেতে হয় বশিরকে। এবার সাথে অপর এক বন্ধু ইলিয়াসকে নিয়ে কলকাতায় কেনাকাটা করতে যান তিনি। যথারীতি সেলিমকে নিয়েই কেনাকাটা করার কথা। শিয়ালদহের একটি আবাসিক হোটেলে ওঠেন বশির।সেলিম উত্তর চব্বিশ পরগনার হাবড়া এলাকার বাসিন্দা। ঘটনার দিন জরুরি কাজে বাড়ি যাওয়ার অযুহাত দেখিয়ে বশির ও ইলিয়াসকেও নিয়ে যায়। শিয়ালদহ রেল স্টেশন থেকে হাবড়ার উদ্দেশ্যে তারা একটি ট্রেনে চেপে বসে। ট্রেনটি হাবড়া স্টেশনে থামলে সেলিমের কয়েকজন বন্ধু সন্ত্রাসী কায়দায় সবাইকে ঘিরে ফেলে। তাদেরকে সিবিআইয়ের পরিচয় দিয়ে বলে আমরা যেখানে নিয়ে যাই সেখানে যেতে হবে। বাঁচার জন্য তারা সেলিমের বন্ধুদের কথামত রাজি হয়। তাদের একটি মোটর সাইকেলে করে হাবড়ায় সেলিমের এক বন্ধু সালাউদ্দিনের বাড়ি নিয়ে যায়। তাদের সেখানে জিম্মি করে ৫০ লাখ রুপি মুক্তিপণ দাবি করে সেলিম। তার জানা ছিল বশিরের কাছে ৭ হাজার মার্কিন ডলার ও নগদ ৪৫ হাজার রুপি ছিল। সাথে যা ছিল সবই দিল বশির। বাংলাদেশ থেকে আরো ৬ লাখ রুপি ব্যবস্থা করে দিল। এর বেশি অর্থ পাওয়া যাচ্ছিল না দেখে একজন সীমান্ত দালাল ডেকে বশির ও ইলিয়াসকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর ব্যবস্থা করে সেলিম। দালাল বশিরদের নিয়ে বেনাপোল সীমান্তের দিকে যাচ্ছিল। কাছাকাছি এসে বশির দালালকে ভয় দেখিয়ে বলে ছেড়ে না দিলে বিএসএফ কে সব বলে দেবে। দালাল ভয়ে তাদের ছেড়ে পালাল। বশির নিকটরর্তী এন্টালি থানায় ঘটনার বিবরণ জানিয়ে মামলা করেন। পুলিশ তদন্তে জানা গেছে, সেলিম একটি বড় প্রতারণা চক্রের সদস্য। প্রতারণা ও পাচারের ব্যবসা করে সে। কলকাতা শহরেই আস্তানা গেড়েছে তার গ্যাং। পুলিশ অভিযান চালিয়ে বাড়ি থেকে সালাউদ্দিন ও তার স্ত্রী নাসিমা বিবিকে গ্রেপ্তার। সেলিমকে গ্রেপ্তার করতে গেলে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সে পালিয়ে যায়। পরে বৃহস্পতিবার (১৪ নভেম্বর) কলকাতার পাটুলি এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। এসএ