শুক্রবার ০৫ জুন ২০২০

২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

ই-পেপার

আমার সংবাদ ডেস্ক

এপ্রিল ২৮,২০২০, ০৪:২১

এপ্রিল ২৮,২০২০, ০৪:২১

ধূমপায়ীদের করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি কম না বেশি?

 

নভেল করোনা ভাইরাস সংক্রমণের ক্ষেত্রে ধূমপায়ীরা বড় ধরনের ঝুঁকির মুখে রয়েছেন বলে সাধারণভাবে ধারণা করা হতো। চাইনিজ মেডিকেল জার্নালে প্রকাশিত এক গবেষণা এ কথা জানিয়ে বলেছে, অধূমপায়ীদের তুলনায় ধূমপায়ীদের করোনা সংক্রমণে মৃত্যু ঝুঁকি বেশি।

অন্যদিকে, পাস্তুর ইনস্টিটিউটের ফরাসি স্নায়ুতত্ত্ববিদ জ্যঁ পিয়েরে শনগ্য-এর নেতৃত্বে একটি গবেষণা দল মনে করছে, নিকোটিন করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধ করে। একটি বিজ্ঞান বিষয়ক পোর্টালে তারা এ সংক্রান্ত একটি হাইপোথিসিস প্রকাশ করেছেন। গবেষণা দলটি চীনা ঐ গবেষণার বিরোধিতা এজন্য করছে, তাদের প্রাপ্ত তথ্যে দেখা যাচ্ছে, করোনা রোগীদের মধ্যে ধূমপায়ীদের সংখ্যা খুবই কম।

তারা পাঁচশ করোনা রোগীর উপর গবেষণা করেছেন, যাদের মধ্যে সাড়ে তিনশ জন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন এবং দেড়শ জন সামান্য উপসর্গ নিয়ে বাসায় চিকিৎসা নিচ্ছেন। তাদের মধ্যে মাত্র পাঁচ ভাগ ধূমপায়ী।

এর আগে ইটালির ভেরোনায় গবেষকরা ইউরোপিয়ান জার্নাল অব ইন্টারনাল মেডিসিন-এ গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশ করে, যেখানে তারা একই ধরনের সিদ্ধান্ত জানিয়েছে।

ফরাসি গবেষকরা বলছেন, সাধারণত করোনা ভাইরাস ‘সেল রিসেপ্টর’ কে সংক্রমণের জায়গা হিসেবে ব্যবহার করে। আর নিকোটিন এই ‘সেল রিসেপ্টর বা এসিইটু’-এর সাথে যুক্ত থাকে। ফলে এটি সংক্রমিত হতে বাধা দেয়। প্যারিসের একটি হাসপাতাল এই গবেষণার বিষয়টি খতিয়ে দেখছে।

যুক্তরাষ্ট্রের ভার্জিনিয়ার দুই স্নায়ুতত্ত্ববিদ জে এস এল ওল্ডস এবং নাদিন কাব্বানি একই বিষয়ে গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশ করেছেন মার্চের ১৮ তারিখে, এফইবিএস জার্নালে। সেই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নিকোটিন ‘সেল রিসেপটর’ গুলোকে বরং উদ্দীপিত করে। ফলে ভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি এক্ষেত্রে অনেক বেশি।

এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে যে আরো গবেষণা ও পরীক্ষার প্রয়োজন তা স্বীকার করছেন গবেষকরা। তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, তার আগেই এই গবেষণার বিষয়টি জানাজানি হলে ধূমপায়ীরা করোনা সংক্রমণের বিষয়টি হালকাভাবে নিয়ে সবার সঙ্গে মেলামেশা শুরু করে দিলে তার পরিণতি হবে ভয়াবহ। আর তাছাড়া নিকোটিন একটি বিষাক্ত পদার্থ, ফলে এটি কাউকে গ্রহণের পরামর্শ না দেয়া ভালো বলে মনে করেন তারা।

আমারসংবাদ/জেআই