মঙ্গলবার ২৬ মে ২০২০

১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

ই-পেপার

আমার সংবাদ ডেস্ক

এপ্রিল ২৫,২০২০, ০৩:৫৯

এপ্রিল ২৫,২০২০, ০৪:০০

বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘ সময় ও কম সময়ের রোজা কোন দেশে?

ত্যাগ ও সংযমের বার্তা নিয়ে হাজির হয়েছে পবিত্র মাহে রমজান। সূর্যের অবস্থানের ভিত্তিতে রোজা পালন হয়ে থাকে। সূর্যোদয়ের আগেই খেয়ে নিতে হবে সেহরি। আর ইফতার করতে হবে সূর্যাস্তের পর। এর মাঝে নেই কোনো খাদ্য গ্রহণের সুযোগ।

তার পরও মুসলমানরা আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনের নিমিত্তে রোজা পালন করে থাকেন। তবে লম্বা সময় উপোস থাকার কারণে কারো কারো জন্য রোজা অপেক্ষাকৃত কঠিন হয়ে ওঠে।

বিশ্বের কোনো কোনো দেশে ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের ইফতারের দু’ঘণ্টা পরই সেহরি খেতে হয়। অর্থাৎ তাদের জন্য রোজা ২২ ঘণ্টার।

এবার চলুন জেনে নেয়া যাক, বিশ্বের কোন দেশগুলোতে মুসলমানদের সবচেয়ে লম্বা সময়ের রোজা রাখতে হয়-

আইসল্যান্ড : ২২ ঘণ্টা
উত্তর ইউরোপের একটি দ্বীপরাষ্ট্র আইসল্যান্ড। দেশটি মোট জনসংখ্যা সাড়ে ৩ লাখের মতো। এর মধ্যে মুসলমান ১ হাজারের কিছু বেশি। এখানকার মুসলমানরা রোজা পালনের ক্ষেত্রে বিশ্বের সব ধর্মপ্রাণ মুসলমানকে ছাড়িয়ে যান। তারা সবচেয়ে বেশি লম্বা সময় রোজা রাখেন।

আইসল্যান্ডে এবার সেহরি খেতে হচ্ছে রাত দু’টো ৮ মিনিটে আর ইফতার হয় পরের দিন রাত পৌনে ১২ টায়। সেহরি থেকে ইফতার পর্যন্ত কত ঘণ্টা হলো? ২২ ঘণ্টার মাত্র বিশ মিনিট কম!

সুইডেন : ২০ ঘণ্টা
খুব গরমের মধ্যে রোজা হলে সুইডেনের মুসলমানদের কষ্টের সীমা থাকে না। দেশটির সাড়ে ৫ লাখ মুসলমানের মধ্যে যারা রোজা রাখেন, তাদের ইফতারের মাত্র চার ঘণ্টা পরই সেহরি খেতে হয়। উল্টো দিক থেকে ভাবলে কষ্টটা বুঝতে পারবেন।

সুইডেনের মুসলমানদের অনেক দিন সেহরির ২০ ঘণ্টা পর ইফতার খেতে হয়। সুইডেনবাসীর প্রথম সেহরির শেষ সময় রাত ১টা ৫৫ মিনিট। আর ইফতারের সময় পরের দিন রাত ৯টা ৫৯ মিনিট। সবমিলিয়ে তাদের রোজা রাখতে হচ্ছে ২০ ঘন্টা ৪ মিনিট।

আলাস্কা : ১৯ ঘণ্টা ৪১ মিনিট
যুক্তরাষ্ট্রের আলাস্কার মুসলমানের মধ্যে কেউ কেউ আজকাল সৌদি আরবের সঙ্গে মিলিয়ে সেহরি আর ইফতার করতে শুরু করেছেন। কারণ একেতো তীব্র গরম, তার ওপর অনেক লম্বা সময় ধরে রোজা রাখা!

যদিও তাদের এ পন্থা অবলম্বনকে ইসলামি স্কলাররা অনুমোদন দেননি বা ইসলামি শরিয়ত এটাকে অনুমোদন দেয় না। আলাস্কা ৩ হাজার মুসলমানকে রোজা পালনের জন্য রাত ৩টা ৫০ মিনিটে সেহরি খেয়ে পরের দিন রাত ১১ টা ৯ মিনিটে ইফতার করতে হয়। পুরো ১৯ ঘন্টা ৪১ মিনিটের রোজা রাখা কষ্টকর বিধায় তারা এমনটি করছেন।

জার্মানি : ১৮ ঘণ্টা ৫৩ মিনিট
রমজান মাসের সময় দিন খুব বড় হলে জার্মানির মুসলমানদেরও রোজা রাখতে ভীষণ কষ্ট হয়। এ বছর জার্মানিতে মুসলমানদের সেহরি খেতে হচ্ছে রাত ২টা ৩৩ মিনিটে আর ইফতার রাত ৯টা ২৬ মিনিটে। রোজার মোট সময় ১৮ ঘন্টা ৫৩ মিনিট।

ইংল্যান্ড : ১৮ ঘণ্টা ৪৫ মিনিট
যুক্তরাজ্যের মধ্যে সবচেয়ে দীর্ঘ সময় রোজা থাকতে হবে স্কটিশ হাইল্যান্ডস ও আয়ল্যান্ডের বাসিন্দাদের। এখানে সূর্য অস্ত যায় না বললেই চলে। যেটা হয় তা হলো গোধূলি। গড়ে তাদের রোজা রাখতে হয় ১৮ ঘন্টা ৪৫ মিনিট। প্রথম রোজার সেহরির শেষ সময় রাত আড়াইটায় আর ইফতার রাত সোয়া ৯টায়।

কানাডা : ১৭ ঘণ্টা ১০ মিনিট
সর্বশেষ ২০১১-এর জনসংখ্যা গণনায় দেখা যায়, কানাডায় মুসলিম অধিবাসীর সংখ্যা ১০ লাখের বেশি। যা কানাডার মোট জনসংখ্যার ৩ দশমিক ২ শতাংশ। মুসলিমরা কানাডায় খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীদের পরেই দ্বিতীয় বৃহত্তম ধর্মীয় সম্প্রদায়।

জরিপে বলা হয়েছে, কানাডায় মুসলিমদের সংখ্যা ক্রমবর্ধমান হারে বাড়ছে এবং ২০৩০ সাল নাগাদ মুসলিম অধিবাসীর সংখ্যা বর্তমান সংখ্যার তিন গুণ হবে। কানাডার টরেন্টোতে সবচেয়ে বেশি মুসলমানের বাস।

এবার কানাডার মুসলমানদের রোজা রাখতে হবে ১৭ ঘণ্টা ১০ মিনিট। প্রথম রোজায় তাদের সেহরির শেষ সময় রাত ৪টা ১২ মিনিটে আর ইফতার রাত ৯টা ২২ মিনিটে।

তুরস্ক : ১৬ ঘণ্টা ৫৭ মিনিট
মুসলিম প্রধান দেশ তুরস্কে এবার সেহরির প্রায় সাড়ে ১৭ ঘণ্টা পর ইফতার করতে হচ্ছে ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের। সেখানে রাত ৩টা ১৯ মিনিটে সেহরি খেয়ে পরের দিন রাত ৮টা ১৬ মিনিটে ইফতার করতে হচ্ছে।

আমারসংবাদ/এআই