মঙ্গলবার ০২ জুন ২০২০

১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

ই-পেপার

বেলাল হোসেন

প্রিন্ট সংস্করণ

এপ্রিল ০৮,২০২০, ০২:৫৪

এপ্রিল ০৮,২০২০, ০২:৫৪

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি বাড়তে পারে

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে সংক্রমণের কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়িয়ে রোজার ঈদ পর্যন্ত করার চিন্তা-ভাবনা করছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

দিন যতই গড়াচ্ছে করোনা ভাইরাসের প্রকোপ লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয় সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন বর্তমান পরিস্থিতিতে শিক্ষার্থীদের রক্ষা করাই মুল দায়িত্ব।

সূত্রে জানা যায়, রমজান মাস শুরুর আগের দিন পর্যন্ত (চাঁদ দেখা সাপেক্ষে রমজান শুরু ২৫ এপ্রিল) শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ছুটি ঘোষণা করা হবে। ফলে এর সঙ্গে যুক্ত হবে পবিত্র রমজানের ছুটি। সব মিলিয়ে ঈদের ছুটি পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিচ্ছে দুই মন্ত্রণালয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে প্রাথমিক গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব আকরাম আল হোসেন আমার সংবাদকে বলেন, ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত সকল পর্যায়ের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ আছে। রমজান মাস শুরু হওয়ার আর বেশি সময় নেই।

তিনি বলেন, করোনার পরিস্থিতিও এখন প্রকোট সবদিক বিবেচনায় আমরা শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সাথে দু-একদিনের মধ্যে বসবো। পরিস্থিতি বিবেচনায় ছুটি বাড়িয়ে ঈদ পর্যন্ত হতে পারে।

এদিকে সবকিছু বিবেচনা করে ধারাবাহিকভাবে বন্ধের ঘোষণা আসতে পারে বলে জানিয়েছেন মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) মহাপরিচালক ড. মো. গোলাম ফারুক।

তিনি বলেন, একবারেই ঈদ পর্যন্ত ছুটি হবে কি না সেটি নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না।

মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, রমজানের ছুটির আগের দিন পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়া হচ্ছে। তারপর রমজানের ছুটি শুরু হবে। করোনা পরিস্থিতির উন্নতি ঘটলেও ১৪ এপ্রিলের পর রোজার ছুটির আগ পর্যন্ত কর্মদিবস আছে মাত্র ৬টি। সেই হিসেবে ঈদ পর্যন্ত বন্ধ থাকছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।

এদিকে দীর্ঘ ছুটির সময় শিক্ষার্থীদের সংসদ টেলিভিশনের ক্লাস অব্যাহত থাকবে। ষষ্ঠ শ্রেণি থেকে দশম শ্রেণির ভিডিও ক্লাস কিশোর বাতায়নে এবং ‘আমার ঘরে আমার স্কুল’ নামের ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করা হবে।

সেখান থেকে শিক্ষার্থীরা তাদের শ্রেণি কার্যক্রম আয়ত্ত করবে। আর প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের ‘ঘরে বসে শিখি’ শিরোনামে সংসদ টিভিতে ভিডিও শ্রেণি কার্যক্রম প্রচার করা হবে।

এছাড়া প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর নিজস্ব পোর্টাল তৈরি করছে। সেখানে শ্রেণি কার্যক্রম ভিডিও আপলোড করা হবে। সেখান থেকে শিক্ষার্থীরা লেখাপড়া চালিয়ে নিতে পারবে।

করোনা ভাইরাসের কারণে গত ১৮ মার্চ থেকে ৯ এপ্রিল পর্যন্ত দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করে সরকার। পরে সাধারণ ছুটি ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ালে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানও এ ছুটির আওতায় আসে।

আমারসংবাদ/এসটিএমএ