শুক্রবার ০৩ জুলাই ২০২০

১৯ আষাঢ় ১৪২৭

ই-পেপার

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি

নভেম্বর ১২,২০১৯, ০৮:২৪

ফেব্রুয়ারি ০৯,২০২০, ১০:০৯

চট্টগ্রামে মন্ত্রীর উপস্থিতিতে যুবলীগের সংঘর্ষ, আহত ১৫

চট্টগ্রামে লালদিঘী মাঠে আয়োজিত আওয়ামী যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে মন্ত্রীর উপস্থিতিতে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে পণ্ড হয়ে গেছে। দু’পক্ষের চেয়ার ছোড়াছুড়ির মধ্যে অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগ করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান নওফেল। মঙ্গলবার বিকেল ৪টার দিকে এ মারামারির সূত্রপাত হয়। দুই গ্রুপের মারামারিতে এক কাউন্সিলরসহ কমপক্ষে ১৫ জন আহত হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। সমাবেশে আসা প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আওয়ামী যুবলীগের চট্টগ্রাম মহানগরীর উদ্যোগে আয়োজিত প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠান শুরু হয় বিকেল সাড়ে ৩টায়। নগরীর বিভিন্ন এলাকা থেকে মিছিল নিয়ে সমাবেশস্থলে প্রবেশ করেন। পৃথক মিছিল নিয়ে আসেন মহানগর যুবলীগের সদস্য ওয়াসিম উদ্দিন চৌধুরী ও যুবলীগ নেতা কাউন্সিলর মোবারক আলীর অনুসারীরা। সমাবেশে প্রবেশ করার সময় তাদের মধ্যে ধাক্কাধাক্কি হয়। এর রেশ ধরে সমাবেশের মাঝখানে দুই গ্রুপ হঠাৎ চেয়ার ছোড়াছুড়ি করে। এসময় উভয় পক্ষ ইট-পাটকেলও নিক্ষেপ করে। এ ঘটনায় কাউন্সিলর মোবারক আলীসহ কমপক্ষে ১০ থেকে ১৫ জন আহত হন। এ সময় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন শিক্ষা উপ-মন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। সমাবেশে চেয়ার ছোড়াছুড়ি ও বিশৃঙ্খল অবস্থা দেখে বক্তব্য না রেখেই তিনি অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগ করেন। চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার (দক্ষিণ) এসএম মেহেদী হাসান বলেন, যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে দুই গ্রুপের চেয়ার ছোড়াছুড়িতে পণ্ড হয়ে যায়। এতে দুই পক্ষের মারামারিতে ১০/১৫ জন আহত হয়েছে। পুলিশ দ্রুত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মিছিল নিয়ে মহানগর যুবলীগের সদস্য ওয়াসিম উদ্দিন চৌধুরী ও যুবলীগ নেতা কাউন্সিলর মোবারক আলীর অনুসারীদের মধ্যে চেয়ার ছোড়াছুড়ি ও ইটপাটকেল মারামারি হয়। মহানগর যুবলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক ফরিদ মাহমুদ বলেন, যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে এ ধরনের ঘটনা অনাকাঙ্ক্ষিত। আমরা ঘটনার ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করেছি। জড়িতদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বিশৃংখলাকারীরা কেউ রেহাই পাবে না। আরআর