বৃহস্পতিবার ০৯ এপ্রিল ২০২০

২৬ চৈত্র ১৪২৬

ই-পেপার

নিজস্ব প্রতিবেদক

ফেব্রুয়ারি ০৮,২০২০, ০৫:০৪

ফেব্রুয়ারি ০৯,২০২০, ১০:০৯

সীমান্ত হত্যা আগের চেয়ে বেড়েছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

গত কয়েকদিনে সীমান্ত হত্যা আগের চেয়ে বেড়েছে। আগে কম ছিল। তবে আমরা এটা নিয়ে কাজ করছি যাতে এটা কমিয়ে আনা যায়। তাই দুই দেশের যা যা করণিয় সেটা আমরা করবো। ইতোমধ্যে পতাকা বৈঠক থেকে শুরু করে সব রকমের আলোচনা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। শনিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে জাতীয় মানবাধিকার কমিশন আয়োজিত ‘মানবাধিকার সুরক্ষা এবং নারী ও শিশু নির্যাতন বন্ধে করণীয়’ শীর্ষক এক সেমিনারে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন- জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের পরিচালক নাছিমা বেগম, সার্বক্ষণিক সদস্য ড. কামাল উদ্দিন আহমেদ, বিচারপতি ওবায়দুল হাসান এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মোস্তফা কামালসহ অন্যরা। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সীমান্ত হত্যা নিয়ে আমাদের দুই দেশের মধ্যে আন্ডারস্ট্যন্ডিং রয়েছে। আমি কিছুদিন আগে ভারতে গিয়েছিলাম। সে দেশের হোম মিনিস্টারের সঙ্গে আমরা দীর্ঘ আলোচনা করেছি। সীমান্ত হত্যা নিয়ে আমরা সব সময় বলে এসেছি, যাতে বন্ধ করা হয়। খালেদা জিয়াকে উপযুক্ত চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে না- বিএনপির এমন অভিযোগ মিথ্যা বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। তিনি বলেন, খালেদা জিয়াকে উপযুক্ত চিকিৎসা দেওয়ার জন্যই দেশের সর্বোচ্চ চিকিৎসা কেন্দ্রে রাখা হয়েছে। সেখানে তার উপযুক্ত চিকিৎসা হচ্ছে। নির্বাচনের দিন সাংবাদিকদের ওপর হামলা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, পৃথিবীর অনেক দেশেই নির্বাচন হয়। কিন্তু আমাদের এ সাবকন্টিনেন্টের নির্বাচন এতো সুন্দর, এতো অহিংস নির্বাচন বোধ হয় আপনারা আর দেখেননি আমি মনে করি। কোনো ধরণের হত্যাকান্ড তো নাই-ই, মাথা ফাটাফাটিও খুব কম হয়েছে। এই যে মোহাম্মদপুরে সাংবাদিকের হামলার ঘটনাটা এটাও আমাদের নজরে এসেছে। আমরা ভিকটিমের কথা অনুযায়ী এবং তার বর্ণনা অনুযায়ী একজনকে অলরেডি গ্রেপ্তার করেছি। সেই সঙ্গে আর দুই-একজন যাদের শনাক্ত করা হয়েছে তাদেরও গ্রেপ্তার করা হবে। উল্লেখ্য, সীমান্ত হত্যা বন্ধে গত কয়েক বছরে নানা প্রতিশ্রুতি দিয়েছে ভারত। দেশটি বলছিল সীমান্তে হত্যা শূন্যের কোটায় নামিয়ে আনার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে তারা। ২০১৮ সালে এর কিছুটা প্রতিফলন দেখা গেলে বাংলাদেশও তাতে আস্থা রেখেছিল। কিন্তু সাম্প্রতিক বাস্তব চিত্র নতুন করে উদ্বেগের সৃষ্টি করেছে। নিরাপত্তা বিশ্লেষকরা বলছেন, সাম্প্রতিক সময়ে সীমান্তে বাংলাদেশি হত্যার ঘটনা বলছে বিএসএফের আচরণ খারাপের দিকেই যাচ্ছে, যা বাংলাদেশের জন্য খুব উদ্বেগের। তাদের পরামর্শ, সীমান্ত হত্যা বন্ধে বাংলাদেশ যেন যত দ্রুত সম্ভব ভারত সরকারের সঙ্গে আলোচনায় বসে। আমারসংবাদ/এমএআই