মঙ্গলবার ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

৫ ফাল্গুন ১৪২৬

ই-পেপার

প্রিন্ট সংস্করণ॥রফিকুল ইসলাম

জানুয়ারি ২৪,২০২০, ১২:২৫

ফেব্রুয়ারি ০৯,২০২০, ১০:০৯

বিএনপির শঙ্কা কারচুপি কৌশল দেখছে আ.লীগ

আর মাত্র সাতদিন পর ঢাকা উত্তর-দক্ষিণ সিটি ভোট। অনুষ্ঠেয় এ নির্বাচনকে সামনে রেখে ভোট প্রচারণায় জমজমাট সময় পার করছেন দেশের প্রধান রাজনৈতিক দলগুলোর প্রার্থী ও সমর্থকরা। তারা নিজ নিজ প্রতীকের বিজয় নিশ্চিত করতে নগরবাসীকে দিচ্ছেন উন্নয়নের নানা প্রতিশ্রুতি। এদিকে সিটি ভোটে প্রচারণায় প্রতিদিনই বিএনপি প্রার্থীরা ক্ষমতাসীন দল ভোট কারচুপি করার চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ তুলছেন। অন্যদিকে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা বলছেন, সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতেই বিএনপি নেতাকর্মীরা নানা অপকৌশলের অংশ হিসেবে ভোটের প্রচারণায় এসব বলছেন। ভোট কারচুপি হলে জনগণ জবাব দেবে : ইশরাক আসন্ন ঢাকা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ভোট কারচুপি হলে জনগণই জবাব দেবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি নির্বাচনে বিএনপির মনোনীত মেয়র প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার ইশরাক হোসেন। গতকাল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় চৌদ্দতম দিনের প্রচারণা শুরুর আগে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে তিনি এ হুঁশিয়ারি দেন। সিটি নির্বাচনকে ঘিরে অনেকেই বলছেন ভোট কারচুপি হতে পারে। পরিস্থিতি যদি এমন হয়, তাহলে আপনি এবং আপনার দল এটা কীভাবে প্রতিরোধ করবেন, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে ইশরাক হোসেন বলেন, ‘আমরা জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে রয়েছি। মানুষের ভোটের অধিকার ফিরিয়ে দেয়ার আন্দোলন রয়েছি, গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের আন্দোলনে রয়েছি। মহান মুক্তিযুদ্ধের মূলমন্ত্র ছিলো জনগণ হবে ক্ষমতার মালিক, জনগণ হবে রাষ্ট্রের মালিক। ভোটের দিন যদি সেরকম কোনো পরিস্থিতি হয়, তাহলে জনগণই সিদ্ধান্ত নেবে তারা কিভাবে তাদের অধিকার সংরক্ষণ করবে এবং তারা তাদের প্রতিবাদ জানাবে।’ নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে বিএনপি কৌশল করছে : তাপস ঢাকা দুই সিটির নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে বিএনপি প্রার্থীরা নানা কৌশল অবলম্বন করছে বলে দাবি করেছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটির আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস। গতকাল দুপুরে রাজধানীর মুগদা সিএনজি স্টেশন এলাকায় আয়োজিত পথসভায় তিনি এসব কথা বলেন। এসময় তিনি আরও বলেন, বিএনপি নেতাকর্মীরা নিজেরাই নির্বাচনি প্রচার-প্রচারণায় গিয়ে বলছে, তারা নির্বাচনকে খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলনের কৌশল হিসেবে নিয়েছেন। মূলত বিএনপি নির্বাচনকে প্রশ্নবৃদ্ধ করতে কৌশল অবলম্বন করছে।’ সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি আরও বলেন, ‘নির্বাচনি ইশতেহার তৈরির কাজ চলছে, খুব দ্রুত তা প্রকাশ করা হবে। সেখানে আমরা যেসব প্রতিশ্রুতি দেবো, তা বান্তবায়ন করা হবে। মেয়র নির্বাচিত হলে দল-মত নির্বিশেষে সবার জন্য কাজ করবো। সিটি কর্পোরেশনের যে উন্নয়ন করা হবে, তার সুবিধা সবাই গ্রহণ করবেন। এখানে কোনো দল-মত থাকবে না। আমি মুগদার মানুষের ঘরে ঘরে ভোট প্রার্থনা করতে চাই। আপনারা কোনো বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করবেন না। গণমাধ্যমকর্মীরা যাতে সুন্দর পরিবেশে কাজ করতে পারেন, তাদের সে সুযোগ সৃষ্টি করে দেবেন। বিশৃঙ্খল পরিবেশ সৃষ্টি হলে সুষ্ঠুভাবে কাজ করা যায় না।’ ২৪ ঘণ্টা সেবা দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে তাপস বলেন, এবার বৃহৎ পরিসরে সেবা করার জন্য মেয়র পদে দাঁড়িয়েছি। মেয়র নির্বাচিত হলে আপনাদের সঙ্গে নিয়ে প্রত্যেকটি এলাকার উন্নয়ন করে ঋণ শোধ করবো। নগর ভবন শুধু মেয়র, মন্ত্রী-এমপিদের জন্য নয়। সাধারণ মানুষের জন্য নগর ভবন ২৪ ঘণ্টা খোলা থাকবে। ৯০ দিনের মধ্যে মৌলিক সেবাগুলো সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছাব। ঢাকায় যতগুলো সেবা প্রতিষ্ঠান আছে, প্রত্যেক প্রতিষ্ঠানকে একটি নীতিমালায় আনা হবে।’ তিনি আরও বলেন, ‘ঢাকা দক্ষিণ সিটিতে ১৮টি নতুন ওয়ার্ড আছে। যেগুলোতে উন্নয়নের কোনো ছোঁয়া লাগেনি। এই ১৮টি ওয়ার্ডকে আধুনিক ও উন্নত শহরে পরিণত করা হবে। নাগরিক হিসেবে তারা যেন সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা পায়, সে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’ জনগণ স্বতঃস্ফূর্তভাবে বিএনপির পক্ষে অবস্থান নিচ্ছে : তাবিথ ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বিএনপির মনোনীত মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়াল বলেছেন, ‘সিটি নির্বাচনে জনগণ স্বতঃস্ফূর্তভাবে বিএনপির পক্ষে অবস্থান নিচ্ছে। কিন্তু সরকারদলীয় সন্ত্রাসীরা পরিকল্পিতভাবে বারবার আমাদের ওপর হামলার চেষ্টা চালাচ্ছে। আশা করছি, নির্বাচনি শৃঙ্খলা বজায় রাখতে নির্বাচন কমিশন পদক্ষেপ নেবে। সে জন্য নির্বাচন কমিশনের আশ্বাস নয়, দৃশ্যমান পদক্ষেপ দেখতে চাই।’ গতকাল রায়েরবাজারের প্রেমতলা এলাকা থে?কে গণসংযোগ শুরুর আগে আয়োজিত পথসভায় তিনি এসব কথা বলেন। তাবিথ আউয়াল বলেন, ‘প্রচারণার সময় জনগণের কাছে গিয়েছি। গণসংযোগে ব্যাপক গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। আমা?দের প্রতিপক্ষ গণজোয়ার দেখে বিরোধীরা হামলা করছে। এতে কিছু কিছু প্রার্থী আহত হয়েছেন।’ এদিন বিকেলে মোহাম্মদপুর টাউন হলের সামনে পথসভায় বিএনপির এই মেয়র প্রার্থী দলীয় নেতাকর্মীদের আগামী আট দিন সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়ে বলেন, সরকার এবং নির্বাচন কমিশন আমাদের বিপক্ষে যেকোনো পদক্ষেপ নিতে পারে। বিশেষ করে ভোটকেন্দ্র থেকে ভোটারদের বিমুখ করার জন্য। আমরা যেন ঐক্যে থাকি, মনোবল শক্ত রাখি। ভোটারদের নিয়ে যেন ভোটকেন্দ্রে যাই। মনে রাখতে হবে, আগামী আট দিন আমাদের কঠিন পরিশ্রম করতে হবে, সতর্ক থাকতে হবে।’ তাবিথ আউয়াল বলেন, ‘১০ জানুয়ারি থেকে আজ পর্যন্ত ৫৪ ওয়ার্ডে ৩২৫ কিলোমিটার পথ হেঁটে ঢাকা শহর ঘুরেছি, জনগণের কাছে গিয়েছি। যেভাবে জনগণের দুয়ারে দুয়ারে যাচ্ছি, তাতে দৃশ্যমান গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। সর্বত্র দেশনেত্রীর (খালেদা জিয়া) সালাম পৌঁছে যাচ্ছে। তা দেখে প্রতিপক্ষ এখন নিয়মিত পরিকল্পিতভাবে হামলা চালাচ্ছে।’ তাবিথ বলেন, ‘জনগণ জানতে চাইছে, খালেদা জিয়া কবে কখন মুক্তি পেয়ে আমাদের মাঝে ফিরে আসবেন। ইনশাআল্লাহ ১ ফেব্রুয়ারি ধানের শীষের বিজয় নিয়ে আমরা ঘরে ফিরবো। এর মধ্য দিয়ে দেশনেত্রীর মুক্তি এবং দুর্নীতি, দুঃশাসন থেকে দেশবাসীর মুক্তির পথ সুগম হবে।’ বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে নৌকায় ভোট দিন : আতিক বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে আসন্ন ঢাকা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে নগরবাসীকে নৌকায় ভোট দেয়ার অনুরোধ জানিয়ে উত্তরের আওয়ামী লীগের মনোনীত মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলাম বলেছেন, ‘আসন্ন সিটি নির্বাচনে আপনারা মেহেরবানী করে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে নৌকায় ভোট দিয়ে তার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন এবং নৌকাকে জয়যুক্ত করবেন।’ গতকাল রাজধানীর শেরেবাংলা নগর এলাকায় গণভবন ইউনিট আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে গণসংযোগের সময় তিনি এসব কথা বলেন। নেতাকর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আমরা যাতে কোনোভাবে রাস্তা আটকিয়ে মিছিল, পথসভা না করি। ভুলে গেলে চলবে না, রাস্তা আটকে গেলে একটা অ্যাম্বুলেন্স আটকে যেতে পারে। সেখানে আমার মা, বোন, ভাই থাকতে পারে।’ পোস্টারে পলিথিন বা প্লাস্টিকের ব্যবহারে পরিবেশ দূষিত হয়। এ ব্যাপারে সাংবাদিকদরা দৃষ্টি আকর্ষণ করলে আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘ডিজিটাল পদ্ধতিতে নির্বাচনি ক্যাম্পেইন করা যায় কি-না, এ ব্যাপারে ইসির কাছে অনুরোধ করেছি। যাতে প্রচারে প্লাস্টিক বা পলিথিনের ব্যবহার কমানো যায়। নতুন ১৮টি ওয়ার্ড প্রসঙ্গে মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘নতুন ১৮টি ওয়ার্ড নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছি। তিনি চার হাজার ২২৮ টাকার বাজেট একনেকে রেখেছেন। নগরবিদদের সঙ্গে কথা বলে সেখানে পরিকল্পিত নগর করা হবে।’ আমারসংবাদ/এসটিএমএ