বুধবার ১২ আগস্ট ২০২০

২৮ শ্রাবণ ১৪২৭

ই-পেপার

ক্রীড়া প্রতিবেদক

ডিসেম্বর ১৪,২০১৯, ১১:৩০

ফেব্রুয়ারি ০৯,২০২০, ১০:০৯

সাংবাদিকদের খাবারে বিষক্রিয়া, যা বললেন পাপন

বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) সাংবাদিকদের জন্য সরবরাহ করা খাবার খেয়ে অন্তত ২০ জন সাংবাদিক অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার (১৩ ডিসেম্বর) হার্ট অ্যাটাকে প্রয়াত তরুণ সাংবাদিক দীপায়ন অর্ণবও এই খাবার খেয়ে পেটের পীড়ায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। এ বিষয়ে শনিবার (১৪ ডিসেম্বর) বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন গণমাধ্যমকে বলেন, প্রেসবক্সে সাংবাদিকদের জন্য খাবার সরবরাহ করেছে সেভেনহিল নামের একটি রেস্টুরেন্ট। তাদের সরবরাহকৃত খাবার খেয়ে গত তিনদিনে একের পর এক সাংবাদিক অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। শুধু সাংবাদিকরাই নন, অসুস্থ হয়েছেন বিসিবির মিডিয়া বিভাগের কর্মীরাও। এ নিয়ে পাপন অনেকটা দায় সাংবাদিকদের ওপরেই চাপালেন, প্যাকেটে যদি অনেকক্ষণ খাবার থাকে তখন সমস্যা হয়। এটা ওরা ১২ টার মধ্যে পৌঁছে দেয়। কেউ যদি ৩-৪ টার দিকে খেতে যায় এখানে সমস্যা হতেই পারে। তাৎক্ষণিকভাবে ওই জায়গাটা (সেভেন হিল রেস্টুরেন্ট) বদল করতে বলা হয়েছে। যে কোনো সিরিজ বা টুর্নামেন্টে প্রেসবক্সে কাজ করা সাংবাদিকদের জন্য দুপুর কিংবা রাতে খাবারের আয়োজন করেন আয়োজকেরা। সেই খাবার খেয়ে যাবে ভবিষ্যতে এমন ঘটনা না ঘটে তা নিয়ে সতর্কতার বাণী শোনালেন বিসিবি সভাপতি। তিনি আরো বলেন, এখন থেকে সময় নির্ধারণ করে দেয়া হবে। খাবার তো আর বেশিক্ষণ রেখে দেয়া যাবে না। সময় থাকবে ১টা থেকে ৩টা পর্যন্ত বা সাড়ে ১২টা থেকে ৩ টা পর্যন্ত। এর মধ্যেই আমরা দুপুরের খাবারের ব্যবস্থা করব। আমরা বৈষম্য করতে চাই না। প্রেসিডেন্ট বক্সে ঢাকা ক্লাব থেকে খাবার আসে। ওখানেও (প্রেসবক্স) আসবে এবং আমরা বলেছি বুফে সার্ভ করতে। এদিকে, শনিবার (১৪ ডিসেম্বর) সাংবাদিকদের অসুস্থতার অভিযোগের জের ধরে সেভেন হিল রেস্তোরাঁর সঙ্গে চুক্তি বাতিল করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। ১১ ডিসেম্বর বিপিএল মাঠে গড়ানোর দিন থেকেই স্টেডিয়ামের মিডিয়া সেন্টারে খাবার সরবরাহ করছে রেস্তোরাঁটি। তখন থেকেই খাবারের মান নিয়ে সবার মধ্যে অসন্তোষ ছিল বলে জানা গেছে। অভিযোগ ছিল, দুপুর কিংবা রাতে খাওয়ার জন্য আনা খাবারগুলো অনেক আগেই রান্না করে রাখা হতো। এমএআই