বুধবার ০৩ জুন ২০২০

২০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

ই-পেপার

স্পোর্টস ডেস্ক

মে ০৮,২০২০, ০৪:২৮

মে ০৮,২০২০, ০৪:২৮

বিপিএলে আইপিএলের মত আইকন সংস্কৃতি চায় টাইগাররা

 

আরো বেশি একাগ্রচিত্তে খেলা ও দৃঢ় বন্ধনের মাধ্যমে দলীয় সংস্কৃতি গড়ে তুলতে, একটি দল যাতে অন্তত দুই-তিন বছরের জন্য একজন আইকন খেলোয়াড়কে চুক্তিবদ্ধ করে তা নিশ্চিত করতে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোকে নির্দেশনা দিতে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) টি-২০ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের গর্ভনিং কাউন্সিলের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন দেশের তারকা ক্রিকেটাররা।

তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, সাকিব আল হাসান ও মাশরাফি বিন মর্তুজার মত তারকা খেলোয়াড়রা যারা টানা দু’বছর বিপিএলে একটি দলের হয়ে খেলতে পারেন। তামিমের মতে, ভারতের মহেন্দ্র সিং ধোনি, রোহিত শর্মা, বিরাট কোহলিরা একই দলের হয়ে বেশ কয়েক বছর খেলে থাকেন। কিন্তু বিপিএলে এমন সুযোগ নেই।

সম্প্রতি মুশফিকুর রহিমের সাথে ইনস্টগ্রামে আলাপকালে তামিম ইকবাল বলেন, ‘আমি টানা দু’বছর কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের হয়ে খেলেছি। প্রথম বছর, দলের জন্য তেমন কোন টানই অনুভব করিনি। কিন্তু দ্বিতীয় বছর, আমার মনে হয়েছে দলটি আমার।’

তিনি আরও বলেন, ‘বিপিএল আমাদের খেলোয়াড়দের জন্য একটি বিশাল মঞ্চ, সুতরাং এটিকে আমাদের কাজে লাগাতে হবে। আমি সত্যিই অনুভব করি যে, আমরা খেলোয়াড়রা যদি নির্দিষ্ট দলের হয়ে দু’তিন বছর বা দীর্ঘমেয়াদে খেলতে পারি তবে দল ও ভক্তদের সাথে আমাদের আরো শক্তিশালী বন্ধন তৈরি হবে।’

তামিম বলেন, ‘আইপিএলের দিকে তাকান, আপনি এই ধরনের ধারাবাহিকতা দেখতে পাবেন। ধোনি চেন্নাইয়ের হয়ে এবং রোহিত শর্মা মুম্বাই নিজ নিজ শহরের হয়ে খেলছেন। এতে মূলত ভক্ত ও সমর্থকদের জন্য সহায়ক হয় এবং পাশাপাশি তাদের প্রিয় খেলোয়াড়দের প্রতি শ্রদ্ধাশীল রাখতে সহায়ক হয়।’

বিপিএলের বেশিরভাগ আসরেই খেলোয়াড় ও টিম ম্যানেজমেন্টের মধ্যে দ্বন্দ সৃস্টি হয়। যা থেকে প্রমাণিত হয় খেলোয়াড়-ম্যানেজমেন্ট সর্ম্পক ততটা শক্তিশালী নয়। খেলোয়াড়দের কাছ থেকে সেরা পারফরমেন্সটা বের করে নিতে দীর্ঘ সময়ের জন্য তাদের সঙ্গে চুক্তি করতে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোকে নির্দেশ দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তামিম।

তিনি বলেন, ‘ বিপিএলে যেহেতু আমরা ঘনঘন দল পরিবর্তন করি, ফলে টিম ম্যানেজমেন্ট-খেলোয়াড় সম্পর্কে ভাল জানাশোনা হয়না, ভক্ত-সমর্থকরাও পারেন না, এই মৌসুমে কোন খেলোয়াড় কোন দলে খেলবে। আমি মনে করি কর্তৃপক্ষ যদি এমন কোন নির্দেশ দেয় যে,খেলোয়াড়রা অন্তত তিন বছরের জন্য নির্দিস্ট একটা দলের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ থাকবে। তবে এটি ভালো হবে। এছাড়া দল ও খেলোয়াড়রা তাদের পারস্পরিক চুক্তি ফ্র্যাঞ্চাইজির সাথে পরিবর্তন করতে সেই ধারাও থাকা উচিত, যদি তারা চায়। এটি খেলোয়াড়দের ফ্র্যাঞ্চাইজির প্রতি আরো দায়বদ্ধতা আনতে সহায়তা করবে এবং ভক্তদেরও নিজস্ব ভিত্তি থাকবে।’

মুশফিকুর বলেন, ‘সত্যি বলতে, প্রতি বছর নতুন দলে যাওয়া, নতুন ম্যানেজমেন্ট, খেলোয়াড়দের সাথে মানিয়ে নিয়ে থিতু হওয়াটা খুবই কঠিন। আমি সবসময়ই চিন্তা করি, যদি একটি দলের হয়ে দীর্ঘ সময় খেলতে পারি, আমি মানসিকভাবে উপকৃত হতাম, এটি ভক্তদের ভিত্তি ও সংস্কৃতিকে তৈরি করবে।’

আমারসংবাদ/জেআই