শিরোনাম

টাকা ছিনতাইচেষ্টার মামলায় পুলিশসহ দুই জন রিমান্ডে

আদালত প্রতিবেদক  |  ২০:২৪, সেপ্টেম্বর ০৫, ২০১৯

রাজধানীর মতিঝিল এলাকায় ১০ লাখ টাকা ছিনতাইচেষ্টার ঘটনায় করা মামলায় বংশাল থানার পুলিশ কনস্টেবল আল মামুন মাহমুদসহ দুজনের এক দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (৫ সেপ্টেম্বর) মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মতিঝিল থানার এসআই এনামুল হক শিমুল আসামিদের আদালতে হাজির করে ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করেন। ঢাকা মহানগর হাকিম সাদবীর ইয়াছির আহসান চৌধুরী শুনানি শেষে রিমান্ডের আদেশ দেন।

আদালতের সংশ্লিষ্ট থানার সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা মোতালেব হোসেন বিষয়টি নিশ্চত করেন। রিমান্ডে যাওয়া অপর আসামি হলেন জাহিদুল ইসলাম জিতু। তিনি নিজেকে সিআইডির পরিদর্শক হিসেবে পরিচয় দিতেন।

আসামিদের পক্ষের আইনজীবী প্রদীপ রঞ্জন দেবনাথ রিমান্ড বাতিলপূর্বক জামিনের আবেদন করে শুনানি করেন।

শুনানিতে তিনি বলেন, আসামিদের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ আনা হয়েছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট। আসামিরা পরিস্থিতির শিকার। মামলার ঘটনার সাথে কোনোভাবেই তারা জড়িত নন। এমন কোনো ঘটনাই সেখানে ঘটেনি। রিমান্ড চাওয়ার কোনো যৌক্তিকতা নেই। আসামিরা জামিন পেলে পলাতক হবেন না। নিয়মিত হাজিরা দিবে । আসামিরা সম্পূর্ণ নির্দোষ। তাই রিমান্ড বাতিলপূর্বক জামিনের প্রার্থনা জানাচ্ছি।

পুলিশের রিমান্ড আবেদনে বলা হয়- বংশাল থানার কনস্টেবল আল মামুন মাহমুদ। জিতু নিজেকে সিআইডির পরিদর্শক পরিচয় দিতেন। বুধবার আসামিরা জোরপূর্বক মামলার বাদী আবুল কালাম আজাদকে মোটরসাইকেলে উঠিয়ে তার কাছে থাকা ১০ লাখ ৪৫ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। ঘটনার বিষয়ে আসামিরা গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে। তদন্তের স্বার্থে তা যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে।

মামলার পলাতক আসামিদের সম্পর্কে আসামিরা অবগত। ঘটনার মূল রহস্য উদঘাটন, আসামিদের নাম-ঠিকানা সংগ্রহ, পলাতক আসামিদের নাম-ঠিকানা সংগ্রহ করে শনাক্তপূর্বক গ্রেপ্তারের জন্য আসামিদের ৭ দিনের রিমান্ডে নেয়া প্রয়োজন।

বুধবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে মতিঝিল এনআরবিসি ব্যাংক থেকে টাকা তুলে মোহামেডান ক্লাবের সামনের সড়কে এলে তিন ব্যক্তি পুলিশ পরিচয় দিয়ে আবুল কালাম আজাদের কাছ থেকে টাকার ব্যাগ ছিনিয়ে নিতে চায়। এতে বাধা দিলে মামুন তার হাতে থাকা হ্যান্ডকাপ দিয়ে আজাদের মাথায় আঘাত করে। পরে টাকার ব্যাগ নিয়ে পালানোর সময় জনতা দুজনকে ধরে ফেললেও একজন পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় বুধবার দিবাগত রাত ১টার দিকে মতিঝিল থানায় ব্যবসায়ী আবুল কালাম আজাদ বাদী হয়ে তিনজনের বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করেন। ছিনতাইয়ের শিকার আবুল কালাম আজাদের বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুরে। তিনি রাজধানীর আরামবাগে থাকেন এবং পল্টনের শখ টাওয়ারে ইলেক্ট্রিক সরঞ্জাম ব্যবসার অফিস ।

কেকে/আরআর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ


সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত