শিরোনাম

সম্পত্তি জবর দখল মামলায় শিল্পপতিসহ ৪জনের বিরুদ্ধে পরোয়ানা

নজরুল ইসলাম মুকুল, কুষ্টিয়া  |  ১৩:৫৯, সেপ্টেম্বর ১৭, ২০১৯

কুষ্টিয়ায় জেলা পরিষদের সহায়তায় শিল্পপতি কর্তৃক মার্কেট ভেঙ্গে ব্যক্তি মালিকানা জমি দখল মামলায় অভিযুক্ত শিল্পপতিসহ জেলা পরিষদের তিন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা ইস্যু করেছে আদালত।

সোমবার সাড়ে ১১টায় অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক রেজাউল করীম এই আদেশ দিয়েছেন।

মামলার বাদিপক্ষের আইনজীবী এ্যাডঃ মাহাতাব উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, গত ৬ আগস্ট আদালতের দেয়া আদেশ মতে, সোমবার স্বশরীরে আদালতে হাজির হওয়া কথা থাকলেও আসামিরা উপস্থিত না হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে এই গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত।

কুষ্টিয়া ‘কেএনবি এগ্রো ইন্ডাষ্ট্রিজ লি:’ এর মালিক শিল্পপতি কামরুজ্জামানসহ জেলা পরিষদের ৪ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে গত ১০জুন কুষ্টিয়া-ঝিনাইদাহ মহাসড়কের পশ্চিম পার্শ্বস্থ বটতৈল এলাকায় ২২টি দোকান বিশিষ্ট প্রামানিক সুপার মার্কেট গুড়িয়ে দিয়ে জমি দখলের অভিযোগে মামলা করেন ক্ষতিগ্রস্থ রাকিবুল ইসলাম।

আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে কুষ্টিয়া পুলিশ সুপারকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের আদেশ দেন আদালত। তদন্ত শেষে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ) একেএম জহিরুল ইসলাম প্রতিবেদন দাখিল করেন আদালত। প্রতিবেদনে ঘটনার সত্যতা আছে মর্মে পুলিশের নেয়া স্বাক্ষীদের বক্তব্যে উঠে আসলেও প্রতিবেদন সারমর্মে অভিযুক্ত বিবাদিদের সম্পৃক্ততা নেই উল্লেখ করে অভিযোগ থেকে তাদের অব্যহতি চেয়ে সুপারিশ করেন এই পুলিশ কর্মকর্তা।

এতে পক্ষপাতদুষ্টের অভিযোগ এনে এমন তদন্ত প্রতিবেদনে নারাজি দরখাস্ত দাখিল করেন বাদির কৌশুলী। গত ৬ আগস্ট আদালত উভয়পক্ষের শুনানী শেষে বাদিপক্ষের দাখিলকৃত নারাজি পিটিশন আমলে নেন এবং অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে সমন জারি করেন।

যাদের বিরুদ্ধে আদালত গ্রেপ্তারি পরোয়ানা আদেশ দিয়েছেন তারা হলেন-বটতৈল বিসিক এর সামনে কুষ্টিয়ার কেএনবি এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লি:র ব্যবস্থাপনা পরিচালক শিল্পপতি কামরুজ্জামান, কুষ্টিয়া জেলা পরিষদের সহকারী প্রকৌশলী শফিকুল আজম, সার্ভেয়ার মো: মনিরুজ্জামান এবং প্রশাসনিক কর্মকর্তা শাহিনুজ্জামান ওরফে শাহীন।

উল্লেখ্য, গত ১০ জুন বিকাল ৪টায় সদর উপজেলার কুষ্টিয়া-ঝিনাইদহ মহাসড়কের পশ্চিম পার্শ্বস্থ বটতৈল এলাকার রাকিবুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তির মালিকানা স্বত্ত্ব দখলীয় ও রেকর্ডভুক্ত জমির উপর নির্মিত ২২টি দোকান বিশিষ্ট ‘প্রমানিক সুপার মার্কেট’ নামের দ্বি-তল ভবনটি গুড়িয়ে দিয়ে জবর দখলের অভিযোগ উঠে ঘটনাস্থলেরই ‘কেএনবি এগ্রো ইন্ডা: লি:’ নামক একটি পোল্ট্রি, মৎস্য ও পশুখাদ্য প্রস্তুতকারী কারখানা মালিক কামরুজ্জামানের বিরুদ্ধে।

তবে তিনি দাবি করেন জমিটি কুষ্টিয়া জেলা পরিষদ থেকে ইজারা সূত্রে প্রাপ্ত। এঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত রাকিবুল ইসলাম বাদি হয়ে আড়াই কোটি টাকা ক্ষতিসাধনের দাবি করে কুষ্টিয়া জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, শিল্পপতি কামরুজ্জামানসহ জেলা পরিষদের আরও তিন কর্মকর্তার নাম উল্লেখসহ ১২-১৫জন অজ্ঞাতদের বিরুদ্ধে দ:বি: ১২০(খ)/১৪৩/৪৪৭/ /৪৪৮/৪০৩/১০৯ ও ৪২৭ ধারায় অভিযোগ এনে কুষ্টিয়া মডেল থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ মামলা না নেয়ায় অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালতের বিজ্ঞ বিচারক রেজাউল করীম এর আদালতে মামলা করেন।

অভিযোগ আমলে নিয়ে বিজ্ঞ আদালত ঘটনার তদন্তসহ প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছিলেন কুষ্টিয়া পুলিশ সুপারকে।

এমআর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ


সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত