শিরোনাম

যে যুগান্তকারী ওষুধ এলো ক্যান্সারের চিকিৎসায়

আমার সংবাদ ডেস্ক  |  ১০:৫২, সেপ্টেম্বর ৩০, ২০১৯

‘ল্যারোট্রেসটিনিব’ নামটি হয়ত কারো পরিচিত নয়। না হওয়ারই কথা। কারণ, প্রথমবারের মতো ইউরোপে অনুমোদন দেয়া হয়েছে এই ওষুধটি। এটি এক ধরণের ক্যান্সার-রোধী ওষুধ, যাকে ডাক্তাররা ‘যুগান্তকারী’ হিসেবে এরই মধ্যে আখ্যা দিয়েছেন।

তবে এটি যুক্তরাজ্যে যেসব ডাক্তার পরীক্ষা করেছেন, তারা বলছেন প্রকৃত অর্থেই এটিই একটি দারুণ ওষুধ। এর ফলে দ্রুত সময়ে আরো বেশি রোগীকে সুস্থ করা ও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া কমিয়ে আনা সম্ভব হবে বলে নিশ্চিত হয়েছেন চিকিৎসকরা।

আর নতুন এ ওষুধের নাম দেয়া হয়েছে ‘ল্যারোট্রেসটিনিব।’ এই ওষুধের প্রথম উপকারভোগীদের মধ্যে একজন শার্লোত্তে স্টিভেনসন। ২ বছর বয়সী এই শিশু থাকে বেলফাস্টে। তার শরীরের কানেকটিভ কোষে ক্যান্সার ধরা পড়েছিল। পরীক্ষামূলকভাবে তার চিকিৎসায় ল্যারোট্রেসটিনিব ব্যবহার করা হয় গত এক বছর ধরে।

তার মা ইসথার বলেন, আমরা জানতাম যে, আমাদের কাছে বিকল্প খুব কম। কাজেই আমরা পরীক্ষামূলক চিকিৎসায় অংশ নিতে সম্মতি জানাই। সেজন্য আজ আমি খুব খুশি। আমরা দেখছি যে, শার্লোত্তে খুব দ্রুতগতিতে বাড়ছে। তার এখন যে জীবনীশক্তি তা দেখে আমরা বিস্মিত। জীবনের যেটুকু সে হারিয়েছিল, এখন সে তা পুষিয়ে নিচ্ছে। সে এখন তুলনামূলকভাবে স্বাভাবিক জীবনযাপন করতে পারবে। তার টিউমারের বিরুদ্ধে ওই ওষুধ দারুণ প্রভাব ফেলেছে।

শার্লোত্তের কোষে টিউমার দেখা দেয় এক ধরণের জীনগত অস্বাভাবিকতার কারণে। তার ডিএনএ’র একটি অংশ দৈবক্রমে অন্য আরেকটির সঙ্গে একীভূত হয়ে গিয়েছিল। এই বিকৃতির কারণেই ক্যান্সার বাসা বাঁধে তার শরীরে। এ ধরণের সমস্যা অনেকের ব্রেন, কিডনি, থাইরয়েড ক্যান্সারেও দেখা যায়।

শার্লোত্তের চিকিৎসা হয়েছিল যেই রয়্যাল মার্সডেন হসপিটালে, সেখানকার একজন ডাক্তার জুলিয়া সিশম বলেন, এটি সত্যিই দারুণ একটি জিনিস। নানা ধরণের ক্যান্সারে এটি কার্যকরী। একটিতেই সীমাবদ্ধ নয়।

তিনি আরো বলেন, নির্দিষ্ট কোনো ক্যান্সারের জন্য নয়, এই ওষুধ মূলত জীনগত অস্বাভাবিকতাকেই টার্গেট করে। ফলে নানা ধরণের ক্যান্সারের ক্ষেত্রেই এটি কার্যকরী।

তবে ইউরোপিয়ান কর্তৃপক্ষ অনুমোদন দিলেও এই ওষুধ এখনই সহজলভ্য হচ্ছে না। এর আগে বৃটেনের জাতীয় স্বাস্থ্য সেবা (এনএইচএস) কর্তৃপক্ষ বলেছিল, এই ওষুধ যুগান্তকারী এবং ক্যান্সার চিকিৎসায় ‘ব্রেকথ্রু’। রোগীদের জন্য এই ওষুধ সহজলভ্য করার কাজ চলছে।

এনএইচএস-এর প্রধান নির্বাহী সিমন স্টিভেন্স বলেন, একটি ওষুধের মাধ্যমেই নানা ধরণের ক্যান্সারের চিকিৎসা করা গেলে রোগীদের জন্য, শিশুদের জন্য এর সম্ভাব্য সুবিধা বেশি পাওয়া যায়।

যুক্তরাজ্যের ক্যান্সার রিসার্চ-এর প্রধান অধ্যাপক চার্লস সোয়ানটন বলেন, এই নতুন ওষুধ দারুণ জিনিস।

এই ওষুধ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান বেয়ার-এর ডাক্তার ব্রেন্ডন গ্রে বলেন, ইউরোপে এটিই প্রথম টিউমার-রোধী ওষুধ। ল্যারোট্রেসটিনিবকে সত্যিকার অর্থেই ক্যান্সার চিকিৎসায় প্রকৃত পরিবর্তন বলা যেতে পারে।

জেডআই

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ


সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত