শিরোনাম

প্রস্রাব ইনফেকশনের লক্ষণ ও ঘরোয়া প্রতিকার

আমার সংবাদ ডেস্ক   |  ০৯:৪৪, অক্টোবর ১৪, ২০১৯

সারাদিনে আমরা যত পানি খাই তা আমাদের বৃক্ক বা কিডনির মাধ্যমে ছেঁকে মূত্রনালি দিয়ে মূত্র হিসেবে বেরিয়ে যায়। মানুষের শরীরের দু’টি কিডনি, দু’টি ইউরেটার, একটি ইউরিনারি ব্লাডার (মূত্রথলি) এবং ইউরেথ্রা (মূত্রনালি) নিয়ে রেচনতন্ত্র গঠিত। এই রেচনন্ত্রের যে কোনও অংশে যদি কোনও রকম সংক্রমণ হয় তাহলে তাকে ‘ইউরিনারি ট্র্যাক্ট ইনফেকশন’ বলা হয়। কিডনি, মূত্রনালি, মূত্রথলি বা একাধিক অংশে একইসঙ্গে এই ধরণের সংক্রমণ হতে পারে। এই সংক্রমণকেই সংক্ষেপে ‘ইউরিন ইনফেকশন’ বলা হয়। সাধারণত এই সমস্যাটি নারী ও পুরুষ উভয়ের মধ্যে হলেও নারীদের মধ্যে ইউরিন ইনফেকশনে আক্রান্ত হওয়ার প্রবণতা বেশি। এবার ইউরিন ইনফেকশনের উপসর্গগুলি সম্পর্কে জেনে নেয়া যাক:

প্রস্রাব ইনফেকশনের প্রাথমিক লক্ষণ
*প্রস্রাব গাঢ় হলুদ বা লালচে হওয়া।
*প্রস্রাবে দুর্গন্ধ।
*একটু পর পর প্রস্রাবের বেগ অনুভব করলেও ঠিক মতো প্রস্রাব না হওয়া।
*প্রস্রাব করার সময় জ্বালা বা ব্যথা অনুভব করা।
*তলপেটে বা পিঠের নিচের দিকে মারাত্মক ব্যথা হওয়া।
*সারাক্ষণ জ্বর জ্বর ভাব বা কাঁপুনি দিয়ে ঘন ঘন শরীরের তাপমাত্রা বৃদ্ধি পাওয়া।
*বমি ভাব বা বমি হওয়া।

প্রস্রাব ইনফেকশনের ঘরোয়া প্রতিকার
প্রস্রাব ইনফেকশনের কয়েকটি ঘরোয়া প্রতিকার রয়েছে যেগুলি মেনে চলতে পারলে এই সমস্যা থেকে সহজেই মুক্তি পাওয়া সম্ভব। আসুন জেনে নেয়া যাক ইউরিন ইনফেকশনের কয়েকটি কার্যকরী ঘরোয়া প্রতিকার।

*প্রস্রাব ইনফেকশন হলে কিংবা ঘন ঘন ইউরিন ইনফেকশন হওয়ার প্রবণতা থাকলে প্রতিদিন অন্তত আড়াই লিটার পানি খাওয়া উচিত। বিশেষ করে প্রসাবে হলুদ ভাব দেখা গেলেই দেরি না করে প্রচুর পরিমাণে পানি খাওয়া শুরু করা উচিত। আর যাদের প্রায়ই এই সমস্যা হয় তাঁরা সব সময়েই একটু বেশি পানি খাওয়ার অভ্যাস করবেন। সাধারণত প্রতি ৪ থেকে ৫ ঘন্টা পর পর প্রস্রাব হওয়া উচিত। প্রস্রাব হতে এর চাইতে বেশি দেরি হলে বার বার পানি খেতে থাকুন।

*প্রস্রাব ইনফেকশন হলে অনেক চিকিত্সকই রোগীদেরকে দৈনিক ৫ হাজার মিলিগ্রাম ভিটামিন-সি খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন। ভিটামিন সি মুত্রথলীকে ভালো রাখে এবং প্রস্রাবের সময় জ্বালাভাব কমাতে সহায্য করে। এছাড়াও ভিটামিন সি ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস করতে সহায়তা করে। তাই প্রস্রাব ইনফেকশন হলে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি যুক্ত খাবার খাওয়া উচিত।

*আনারসে আছে ব্রোমেলাইন নামক একটি উপকারী এঞ্জাইম। গবেষণায় দেখা গেছে, প্রস্রাব ইনফেকশনে আক্রান্ত রোগীদেরকে সাধারণত ব্রোমেলাইন সমৃদ্ধ অ্যান্টিবায়োটিক দেয়া হয়। তাই ইউরিন ইনফেকশন হলে প্রতিদিন এক কাপ আনারসের রস খান।

*ইউরিন ইনফেকশন অন্তত দুই দিনের বেশি সময় থাকে। আর এই সময়ের মধ্যে সংক্রমণ কিডনিতে ছড়িয়ে পড়ার ঝুঁকি থেকেই যায়। তাই যত দ্রুত সম্ভব এর ব্যবস্থা নেয়া জরুরি। বেকিং সোড়া দ্রুত ইউরিন ইনফেকশন সারিয়ে তুলতে সাহায্য করে। আধা চামচ বেকিং পাউডার এক গ্লাস পানিতে ভালো করে মিশিয়ে দিনে একবার করে খেলেই প্রস্রাবের সময় জ্বালা বা ব্যথা ভাব কমে যাবে।

এমএআই

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত