শিরোনাম

দুবাইয়ে নিয়মিত বেতন না পেলে কী করবেন?

আমার সংবাদ ডেস্ক   |  ০৫:৪২, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০১৯

দুবাইয়ে সারা মাস কাজ করে কোন শ্রমিক বেতন না পেলে কী করবেন? এমন সময় প্রবাসীদের কী করতে হবে, তা অনেকেই অবগত নন। এমনকি দেশের স্থায়ী নাগরিকদেরও আইনী বিষয়ে ভাল জানাশোনা না থাকলে অনেক ঝামেলা পোহাতে হয়।

শ্রমিক আইনের বেতন পরিশোধ সংক্রান্ত আইন ও নীতিমালা প্রায় সব দেশে একই রকম। তিন মাস বেতন না দিলে যে কোন সময় আপনি আইনগত পদক্ষেপ নিতে পারবেন। দুবাইয়ে কর্মরত একজন শ্রমিকের প্রশ্ন, সে নির্দিষ্ট চুক্তির অধীনে একটি বৈদ্যুতিক ও ঠিকাদারি সংস্থায় নিযুক্ত। তার পারিশ্রমিক দুই ভাগে বিভক্ত- মূল বেতন ও অন্যান্য ভাতা। সময় মতো তার মূল বেতন কোম্পানীর মালিক পরিশোধ করলেও বাকী ভাতাসমূহ নিয়মিত পরিশোধ করছে না যা প্রায় চার মাস ধরে। তবে সে তার বাকি টাকা কিভাবে উদ্ধার করবেন?

আশীষ মেহেতা নামের এক বিজ্ঞ আইনজীবি ঠিকাদারি সংস্থার ঐ শ্রমিকের প্রশ্নের জবাবে বলেন, আপনার জিজ্ঞাসা অনুযায়ী ধরে নিই আপনি দুইবাইয়ের মূল ভূখণ্ডে অবস্থিত একটি সংস্থায় নিযুক্ত। তবে আপনার জন্য ১৯৮০ সালের ফেডারেল আইনের (৮) এর ধারাগুলো (নিয়োগ আইন) এবং মজুরি সুরক্ষা সম্পর্কিত ২০১৬ সালের মন্ত্রী পরিষদের ডিক্রি ৭৩৯ (২০১৬ সালের ৭৩৯ নং ডিক্রি বলে পরিচিত) কার্যকর হবে।

কর্মসংস্থান আইন ১ অনুচ্ছেদে বলা আছে, কর্মচারী চুক্তি আইনে কোন শ্রমিকের মজুরী মাসিক, বার্ষিক, সাপ্তাহিক, দৈনিক যে কোন চুক্তিতেই হতে পারে। কর্মসংস্থান আইন অনুযায়ী কোন শ্রমিককে যদি মাসে একবার পারিশ্রমিক প্রদান করা হবে মর্মে নিয়োগ করা হয় তবে যেন অন্তত দুই সপ্তাহে একবার বেতন দেয়া হয় অর্থাৎ যদি কোম্পানীর মালিক দুই ভাগে বেতন দিতে চায় তবে তা যেন অন্তত দুই সপ্তাহে একবার হয়।

নিয়োগ আইনের ৫৬ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী, যদি কোম্পানীর মালিক আপনাকে সারা মাসে শুধু একবার বেতন (আংশিক) দেয় তবে তা বেতন দেয়া হয়নি বলেই আইনত বিবেচনা করা হবে যা আইনের লঙ্ঘন। এরকম তিনমাস চললে চতুর্থ মাসে আপনি আইনের আশ্রয় নিতে পারবেন।

এরকম পরিস্থিতি আমিরাত সরকারের মানব সম্পদ ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ে লিখিত আবেদন করা যাবে। আবেদনে উল্লেখ করতে হবে, নিয়োগ কর্তা আপনার বেতন ঠিকভাবে পরিশোধ করেনি। বকেয়া আদায় পূর্বক সে কোম্পানীতে বহাল থাকতে হলে বা না হলেও আবদেনে উল্লেখ করতে হবে।

পরামর্শদাতাঃ আশীষ মেহতা
আশীষ মেহতা অ্যান্ড এসোসিয়েটস
সংযুক্ত আরব আমিরাত
www.amalawyers.com
সূত্রঃ খালিজ টাইম

এসএ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত