শিরোনাম

সৌদির পর্যটন ভিসা থেকে বাদ বাংলাদেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক  |  ১৬:৫২, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০১৯

সম্প্রতি সৌদি আরব দেশটিতে পর্যটন ভিসা চালু করেছে। তেল নির্ভর অর্থনীতি থেকে বেরিয়ে আসতে নতুন উদ্যোগ হিসেবে দেশটি পর্যটন ভিসা চালু করে। তবে পর্যটন ভিসা সুবিধা থেকে বাদ পড়েছে বাংলাদেশ।

২৭ সেপ্টেম্বর সৌদি কমিশন ফর ট্যুরিজম অ্যান্ড হেরিটেজের চেয়ারম্যান আহমেদ আল খাতিব একটি অনুষ্ঠানে ভিসার কার্যক্রম উদ্বোধন করেন। মোট ৪৯টি দেশের নাগরিকদের জন্য এ ভিসা চালু করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

পর্যটন ভিসা সুবিধা পাওয়া ৪৯টি দেশ হলো- যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, কাজাখস্তান, সিঙ্গাপুর, ব্রুনেই দারুস সালাম, নিউজিল্যান্ড, দক্ষিণ কোরিয়া, জাপান, স্পেন, বেলজিয়াম, মালয়েশিয়া, অস্ট্রিয়া, সাইপ্রাস, যুক্তরাজ্য, ক্রোয়েশিয়া, এস্তোনিয়া, অ্যান্ডোরা, ডেনমার্ক, জার্মানি, বুলগেরিয়া, ফ্রান্স, হাঙ্গেরি, চেক প্রজাতন্ত্র, হল্যান্ড, ইতালি, ফিনল্যান্ড, আয়ারল্যান্ড, লিথুয়ানিয়া, গ্রিস, লিচটেনস্টেইন, মোনাকো, আইসল্যান্ড, মাল্টা, পোল্যান্ড, লাটভিয়া, নরওয়ে, রাশিয়া, লুক্সেমবার্গ, রোমানিয়া, স্লোভেনিয়া, মন্টিনেগ্রো, স্লোভাকিয়া, সুইজারল্যান্ড, পর্তুগাল, সুইডেন, অস্ট্রেলিয়া, স্যান ম্যারিনো, ইউক্রেন, চীন।

এছাড়া হংকং, ম্যাকাউ ও তাইওয়ান চীনের অন্তর্ভুক্ত হিসেবে ভিসা পাবে বলে জানা গেছে।

জানা গেছে, এই ৪৯টি দেশের নাগরিক সাধারণ ভিসা বা ই-ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবে। এজন্য ভিজিটসৌদি.কম নামের একটি অনলাইন পোর্টাল চালু করা হয়েছে। বিমানবন্দরগুলোতে ইলেক্ট্রনিক কিওস্কও থাকবে।

এক বছর মেয়াদি এ ভিসায় একাধিকবার সৌদি আরবে যাওয়া যাবে। প্রতিবার দেশটিতে প্রবেশের পর সর্বোচ্চ তিন মাস অবস্থান করতে পারবেন।

তালিকায় থেকে কেবল বাংলাদেশই বাদ পড়েনি বরং মুসলিম জনবহুল অনেক দেশই তালিকায় নেই। ৪৯টি দেশের মধ্যে মুসলিম দেশ রয়েছে মাত্র ৩টি। সবচেয়ে মুসলিম জনবহুল ইন্দোনেশিয়া, পাকিস্তান এমনকি মধ্যপ্রাচ্যের উল্লেখযোগ্য কোনো মুসলিম দেশও নেই তালিকায়। এ জন্য এ ভিসা প্রক্রিয়ার সমালোচনাও হচ্ছে বেশ।

আরআর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ


সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত