শিরোনাম

জনগণের অর্থে হজে যাওয়া জায়েজ কি?

আমার সংবাদ ডেস্ক   |  ০৭:৪৩, জুলাই ১৭, ২০১৯

সামর্থ্যবান মুসলিমদের জন্য মূলত ইসলামে ফরজ করা হয়েছে। তবে বাংলাদেশে প্রতি বছরই সরকারি প্রতিনিধি দলের হয়ে নানা নামে অনেকে হজে গিয়ে থাকেন। তাদের হজের খরচ যোগানো হয় রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে।

জনগনের করের টাকাতেই এ রাষ্ট্রীয় কোষাগার গঠিত। এ টাকায় হজে যাওয়া কি জায়েজ?

এ ব্যাপারে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামি স্টাডিজ বিভাগের শিক্ষক খায়রুল ইসলাম সম্প্রতি বিবিসি বাংলাকে দেয়া সাক্ষাৎকারে বলেন, ব্যক্তির একটা নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ থাকতে হবে। আর্থিক সচ্ছলতা, হজের সমস্ত খরচ এবং তার অনুপস্থিতিতে তার পরিবারের সদস্যদের জন্য অর্থ রেখে যেতে হবে। সমস্ত ঋণ পরিশোধ করতে হবে।

এমনকি ইসলামের বিধান অনুযায়ী একজন ব্যক্তির যদি এসব সামর্থ্য থাকে তাহলে তিনিই হজ পালন করতে পারবেন।

তিনি আরো বলেন, হজে পুত্র-পিতার, মা বা আত্মীয় পরিজনের অর্থ সাহায্য করতে পারেন। কিন্তু জনগণের অর্থে হজ পালন করাটা ইসলাম ধর্মের বিধানের মধ্যে পড়ে না।

তবে হেফাজতে ইসলামের নেতা মুফতি ফয়জুল্লাহ বলেন, যদি কারো ইচ্ছা থাকে হজ করার তাহলে তিনি সরকারি-বেসরকারি অর্থ সাহায্য নিয়ে হজ করতে পারেন। সেটা খুব বেশি অন্যভাবে দেখার সুযোগ নেই।

জেডআই

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত